ইরানের কমিউনিস্ট পার্টি সম্পর্কে আফগানিস্তান কমিউনিস্ট পার্টি(মাওবাদী)’র মূল্যায়ন –

Maoist-Flag

 

অনুবাদ ইউনিট – লাল সংবাদ/Red News  

একটি গুরুত্বপূর্ণ দলিল …

মার্কসবাদ-লেনিনবাদ-মাওবাদের(Marxist Leninst Maiost-MLM) মূল চেতনা থেকে অনেকটাই সরে দাঁড়িয়েছে দ্য কম্যুনিস্ট পার্টি অব ইরান/ The Communist Party of Iran(MLM)।  যার মধ্য দিয়ে ইরানের এই কম্যুনিস্ট পার্টি নিজস্ব লক্ষ্যের বিচ্যুতি ঘটিয়েছে —তারই চুলচেরা বিশ্লেষণ নিয়ে বিভিন্ন তথ্য, যুক্তি ও বাহাসের মধ্য দিয়ে The Communist Party of Afghanistan (Maoist) অনলাইন, ব্লগ ও ইমেইলে বেশ কিছু লেখা প্রকাশ করেছিল। আগ্রহী পাঠকদের কথা বিবেচনায় এনে বিষয়টি আবারও তুলে ধরা হলো।

Download করুন –

ইরান-লাল সংবাদ


নেপালের মাওবাদী নারী গেরিলার ডায়েরী

অনুবাদ -২০১০ সাল

সাংবাদিক ও নন-ফিকশন লেখক দেবেন্দ্র ভট্টরায় মাস ৬ পূর্বে নেপালের ইলম জেলার চা বাগানে যান। সেখানে তার নিমন্ত্রণকর্তা, একজন অল্পবয়সী মহিলার সাথে তাকে পরিচয় করিয়ে দেন, যিনি ভট্টরায় এর সাথে সাক্ষাৎ করার জন্য তার গ্রাম থেকে প্রায় তিন ঘন্টা হেঁটে এসেছেন।

“ও আটঘর গ্রামের এক কৃষক পরিবারের মেয়ে,” স্মৃতিচারণ করেন ভট্টরায়। “পরিবারের তিন সন্তানের ভিতর সবার বড়। সামান্য যে জমিটুকু ছিল তাতে চাষাবাদে সাহায্য করত। গরুর দুধ দুইয়ে সেই দুধ গ্রামের বাজারে বিক্রি করতে নিয়ে যেত। গ্রামের স্কুলে ষষ্ঠ শ্রেণী অব্দি পড়াশোনা করেছিল”। খানিকটা ঘাবড়ে যাওয়া অল্পবয়সী হাস্যোজ্জ্বল মহিলার সাথে ছিল একতাড়া কাগজের একটি পাণ্ডুলিপি। তাতে তার বিশ বছর বয়সী জীবনের কাহিনী পুঙ্খানুপুঙ্খভাবে আন্তরিক সরলতার সাথে বর্ণিত। “লেখাটা পড়ে মুগ্ধ হয়ে আমার প্রকাশককে পাণ্ডুলিপিটি দেখাই,” ভট্টরায় বলেন।

তারা রায় এর “একজন নারী গেরিলার ডায়রি” এখন বিক্রি তালিকার শীর্ষে  অবস্থান করছে। দুমাসেই এটির ৫০০০ এর অধিক কপি বিক্রি হয়েছে। বর্তমানে এর পঞ্চম সংস্করণের কাজ চলছে ।

১৯৯৬ সাল থেকে পরবর্তী ১০ বছর গৃহযুদ্ধ চালিয়ে আসা গোপন মাওবাদী পার্টির সাথে লেখক কীভাবে মাত্র ১৫ বছর বয়সে যুক্ত হলেন তার বিবরণ তিনি এ ‘ডায়রি’ তে তুলে ধরেছেন।

 

উদঘাটিত কাহিনী- 
তারা রায়ের উপর পার্টির সাংস্কৃতিক অঙ্গের দায়িত্ব অর্পণ করা হয়। মাত্র তিন মাস সেখানে অবস্থানের পর তিনি গ্রেপ্তার হন। “আর্মি আমাদের চারদিক থেকে ঘিরে ফেলেছিল। একজন সৈন্য এসে চুলের মুঠি ধরে আমাকে টেনে আনল”, লিখেছেন তিনি। তিনি মাটি খোঁড়ার শব্দ শুনতে পান এবং ভাবেন হয়তো তাকে খুন করে মাটি চাপা দেওয়া হবে। কিন্তু তা না করে তাকে বিভিন্ন কারাগারে প্রেরণ করা হয় যেখানে দুর্বিষহ অভিজ্ঞতা ও অপ্রত্যাশিত ভালোবাসা প্রাপ্তির ভিতর দিয়ে তার প্রায় একটি বছর কাটে। ধর্মশিলা চাপাগাইন নামে জেষ্ঠ্য এক মাওবাদী নেতার সাথে তারার পরিচয় ঘটে যাকে তার মেয়ে সহ গ্রেপ্তার করা হয়। চাপাগাইন তারার মা হয়ে ওঠেন, ওকে দেখাশোনা করেন। তারার কালাজ্বর হলে তার চিকিৎসার ব্যবস্থা করে দেওয়ার জন্য জেলের কর্মকর্তাদের সাথে লড়াই করেন।

বইটি শেষ হয় ২০০৭ সালে তারার মুক্তিপ্রাপ্তির ঘটনার মাধ্যমে। তার আগের বছর মাওবাদীরা একটি শান্তি চুক্তি স্বাক্ষর করে এবং নেপালে অস্ত্র ত্যাগ করে। যে কোন ভাবেই হোক না কেন, এই আন্দোলনের বিষয়ে মোহমুক্তি ঘটার ফলে তারা আর পার্টিতে ফিরে না গিয়ে গ্রামে তার পরিবারের কাছে ফিরে যাবার সিদ্ধান্ত নেন।

বইটির সম্পাদক ভট্টরায় বলেন, “কিছু মানুষ বইটি পড়বে সম্ভবত কৌতূহল থেকে, তবে এটির নিজস্ব কিছু গুণ রয়েছে। যদিও তারা ষষ্ঠ শেণীর বেশি পড়াশোনা করেন নি, লেখার ব্যাপারে তার একটি স্বাভাবিক নৈপুণ্য আছে। একই সাথে তার ডায়রিটি পড়তে গিয়ে স্লোগানসর্বস্ব মনে হয় না যা গৃহযুদ্ধ শেষ হবার পর মাওবাদী নেতাদের লেখা বইগুলোতে লক্ষ্য করা যায়। এতে ভারসাম্য রক্ষা করা হয়েছে। তারা এতে মাওবাদীদের ভালো ও মন্দ দুটি দিক তুলে ধরেছেন এবং আর্মিকে আপাদমস্তক শত্রু হিসেবে দেখানো হয়নি। খারাপ সৈন্যদের পাশাপাশি ভালো সৈন্যও রয়েছে। যেসকল সৈন্য তাকে বন্দী করেছিল, তারা তাদেরই একজনের প্রেমে পড়েন।


ভারতে নকশালরা ২০শে ফেব্রুয়ারি থেকে ৫ রাজ্যে বন্ধ ডেকেছে …

বিশাখাপত্তনম : রাজ্য ও কেন্দ্রীয় সরকারের জন বিরোধী কার্যক্রমের প্রতিবাদে সিপিআই (মাওবাদী) ফেব্রুয়ারীর ২০ তারিখ থেকে অন্ধ্র প্রদেশ ও তেলেঙ্গানা সহ পাঁচ রাজ্যে বন্ধ ডেকেছে। বৃহস্পতিবার টিওআই পাঠানো একটি প্রেস রিলিজে মাওবাদীদের কেন্দ্রীয় আঞ্চলিক ব্যুরো (CRb) মুখপাত্র প্রতাপ- ছত্তিশগড়, উড়িষ্যা এবং মহারাষ্ট্রে ধ্বংসাত্মক এবং গণবিরোধী নীতি বাস্তবায়নকারী হিসেবে, প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি , পি মুখ্যমন্ত্রী এন চন্দ্রবাবু নাইডু, তেলেঙ্গানা মুখ্যমন্ত্রী চন্দ্রশেখর রাও কে দায়ী করেন। 

Source – http://timesofindia.indiatimes.com/city/visakhapatnam/Naxals-call-for-5-state-bandh-on-Feb-20/articleshow/46224136.cms