ভারতঃ কলকাতা- আগামী ১১ই জুলাই, মুক্তাঙ্গন প্রেক্ষাগৃহে গণ সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান ‘মুক্তি চাই’ সফল করুন

CORPoster_Web-724x1024

মুক্তি চাই!
ছত্রধর মাহাতো সহ সমস্ত রাজনৈতিক বন্দীদের মুক্তির দাবিতে গণ সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান

দাবী
এই নিরন্ন স্তব্ধ মধ্যরাত্রির রক্তচোষা উদারতায় নীল নক্ষত্রের
কোটি কোটি মশাল জ্বালানো মুক্ত আকাশের নীচে
ভারতবর্ষ নামক এই বিশাল নিখুঁত ভাবে নির্যাতিত
মনুষ্যত্বগ্রাসী জেলখানা থেকে
সমস্ত রাজনৈতিক বন্দী সহ
সমস্ত গরীব মানুষের
শর্তহীন মুক্তি চাই।”
– ‘মানুষের অধিকার’, মণিভূষণ ভট্টাচার্য।

সুধী,

আজ থেকে দু’মাস আগে, মেদিনীপুরের সেশন কোর্ট ছত্রধর মাহাতো, সুখশান্তি বাস্কে, সগুন মূর্মু, শম্ভু সোরেন, রাজা সরখেল ও প্রসূন চ্যাটার্জীকে যাবজ্জীবন কারাদন্ড দেয়। অপরাধ ‘রাষ্ট্রদ্রোহ’! প্রথম চারজনের বিরুদ্ধে ইউ-এ-পি-এ নামক একটি দানবীয় আইনও ব্যবহার করা হয়। সারা দেশ জুড়েই এই রায়ের বিরুদ্ধে গণতান্ত্রিক, শুভবুদ্ধিসম্পন্ন মানুষ সরব হয়েছেন। আইনের লড়াই-এর পাশাপাশি অন্যান্য ভাবে প্রতিরোধ খাড়া করা ছাড়া আমাদের সামনে আজ পথ নেই।

কিন্তু ছত্রধর মাহাতোরা একা নন। কাশ্মীর থেকে মণিপুর। ছত্তিসগড় থেকে বিহার। মারুতি কারখানার ১৪৮ জন শ্রমিক থেকে সন্ত্রাসবাদী সন্দেহে অসংখ্য মুসলিম যুবক। জমি লুঠ, জঙ্গল লুঠ, শ্রম লুঠ, দেশ লুঠের বিরুদ্ধে কথা বলার অপরাধে সাংস্কৃতিক কর্মীরাও। ভারতরাষ্ট্রের জেলখানাগুলিতে পচছেন অনেক ছত্রধর মাহাতো আর অনেক মৌলানা মাদানি। অনেক সাইবাবা আর অনেক শচীন মালি। দেশের যে মানুষেরা খেতে ফসল ফলান, কারখানায় ঘাম ঝরান, বা যারা বনের সম্পদকে বহুযুগ ধরে ব্যবহার ও রক্ষা করে বেঁচে আছেন, তাদের বিরুদ্ধে রাষ্ট্রের আক্রমণ আরো সুচারুরূপে প্রাণঘাতী হচ্ছে। দেশের আইন-কানুন অতীতের ধারাবাহিকতা মেনেই যেন আরো বেশি সর্বনেশে হয়ে উঠছে। বিচার-ব্যবস্থাও।

এই প্রেক্ষিতকে মাথায় রেখেই, ‘প্রতিরোধের সিনেমা’র পক্ষ থেকে সমস্ত রাজনৈতিক বন্দীদের মুক্তির দাবিতে আগামী ১১ই জুলাই, মুক্তাঙ্গন প্রেক্ষাগৃহে (বেলা ৩টে থেকে সন্ধ্যে ৭টা) একটি গণ সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়েছে। বক্তব্য রাখবেন ডাঃ বিনায়ক সেন, সোনি সোরি, শুভেন্দু দাশগুপ্ত, রাজীব যাদব, অজয় টিজি ও অন্যান্যরা। গান নিয়ে থাকবেন অনুশ্রী-বিপুল, নীতিশ রায়, সুস্মিত বোস, স্বভাব নাটক দল, রঞ্জন প্রসাদ ও ‘প্রতিরোধের গান’। আনন্দ পটবর্ধনের তথ্যচিত্র ‘জমির কে বন্দী’ (প্রিজনার্স অফ কনশেন্স) প্রদর্শিত হবে।

আপনার/আপনার সংগঠনের উপস্থিতি অনুষ্ঠানকে সমৃদ্ধ করবে।

Advertisements

ভারতঃ পুলিশের গুপ্তচর হিসেবে শনাক্ত মাওবাদীকে খতম করল সিপিআই(মাওবাদী)

12killing

গত ৩ জুলাই সুকমা জেলায় নিজেদের ক্যাডারদের হাতে সিপিআই (মাওবাদী) এর এক ক্যাডার নিহত হয়েছে বলে জানা গেছে। পুলিশের এএসপি সন্তোষ সিং বলেন, ” গাদিরাস থানাধীন পেরমপারা গ্রামের জঙ্গল থেকে উদ্ধারকৃত দগ্ধ মৃতদেহটি মাওবাদীদের প্লাটুন ২৪ এর সেকশন কমান্ডার বদ্রু ওরফে মাসার বলে জানা গেছে।” তিনি আরো জানান, ৩ জুলাই জনতার আদালতে এই মাওবাদী ক্যাডারকে দোষী সাব্যস্ত করা হয় ও ধারালো অস্ত্র দিয়ে তাকে হত্যা করার পর মৃতদেহ পুড়িয়ে ফেলা হয়।”

তিনি আরো জানান, বদরুর পরিবারের কাছে খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে মৃতদেহের অংশবিশেষ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য পাঠায়। অপরদিকে গত সপ্তাহে পৃথক ঘটনায় সুকমা জেলায় তিন মাওবাদী নেতাকে তাদের ক্যাডাররা হত্যা করে বলে জানান সন্তোষ সিং। তাদের মৃতদেহ এখনো উদ্ধার করা যায়নি। সিং বলেন, “আমাদের সূত্র জানায়, নিহতদের মধ্যে দুইজন মাওবাদীদের মিলিটারি শাখার সিনিয়র পর্যায়ের ক্যাডার হেমলা ভগত ও তার স্ত্রী দণ্ডকারণ্য কিষান মজদুর সংগঠনের প্রধান কোসি বলে জানা গেছে। গত সপ্তাহে তাদের নিজেদের দলের ক্যাডাররা তাদের হত্যা করে। বদ্রুকে পুলিশের গুপ্তচর হিসেবে শনাক্ত করে হত্যা করা হয়।”

সূত্রঃ

http://www.satp.org/satporgtp/detailed_news.asp?date1=7/6/2015&id=5#5


ভারতঃ নকশালদের বিরুদ্ধে তথ্য সংগ্রহ করতে পুলিশের বিশেষ মোবাইল অ্যাপ্লিকেশন

yourstory_RajCop

নকশাল দমনে তথ্য নেটওয়ার্ক সুদৃঢ় করার জন্যে, নকশালদের সম্পর্কিত তথ্য সংগ্রহের জন্য ছত্তীসগঢ় পুলিশ একটি বিশেষ মোবাইল অ্যাপ্লিকেশন চালু করেছে। ‘chhattisgarh police’ নামের এই অ্যাপ্সটি android এর জন্য,  ‘গুগল প্লে স্টোর’ থেকে যে কেউ এটা বিনামূল্যে ডাউনলোড করতে পারবে, অ্যাপ্সটির সাইজ ১.৮ মেগাবাইট। অ্যাপ্লিকেশনটি গত শনিবার পুলিশ মহাপরিচালক এ এন  উপাধ্যায় কর্তৃক আনুষ্ঠানিক ভাবে চালু করা হয়।

যে কোন ব্যক্তি, এই অ্যাপ্সের মাধ্যমে তার পরিচয় গোপন রেখে নকশাল সংক্রান্ত অডিও ভিজুয়াল বা ভয়েস মেসেজ, ছবি পুলিশ সঙ্গে শেয়ার করতে পারবে।

অ্যাপ্লিকেশনটি পুলিশ সদর দপ্তরের নকশাল বিরোধী শাখা এবং ছত্তিশগড় ইনফোটেক এবং বায়োটেক প্রমোশান সোসাইটি (CHiPS) এর যৌথ প্রচেষ্টায় উন্নত করা হয়েছে। মহাপরিচালক এই মোবাইল অ্যাপ্লিকেশনটির মাধ্যমে পুলিশের কাছে নকশাল সম্পর্কিত আরও তথ্য প্রদান করতে ছত্তিসগড়ের জনগণের প্রতি আহ্বান জানায়। ‘ডিজিটাল ভারত সপ্তাহ’ এর সময় ছত্তিসগড় পুলিশের এই প্রচেষ্টা জনগণকে তাদের পরিচয় গোপন রেখে নকশাল বিরোধী তথ্য দিতে সাহায্য করবে বলে তিনি জানান।

সূত্রঃ  http://www.dailypioneer.com/state-editions/raipur/mobile-app-to-gather-info-against-naxals.html