বাংলাদেশঃ বেতন-বোনাসের দাবিতে সোয়ান গার্মেন্টের শ্রমিকদের ইসলামী ব্যাংক ঘেরাও

IMG_3305_55a9ec4cd877b

বাংলাদেশের সোয়ান গার্মেন্টসের শ্রমিকরা তাদের বকেয়া বেতন পরিশোধ করে কারখানা চালু এবং মামলা প্রত্যাহারের দাবিতে রাজধানীর দিলখুশা বানিজ্যিক এলাকায়  অবস্থিত  ইসলামী ব্যাংকের প্রধান কার্যালয় ঘেরাও করেছে।

টানা ১২ দিন ধরে রাজধানীর জাতীয় প্রেস ক্লাবের সামনে অবস্থান কর্মসূচী পালন করছে শ্রমিকরা। সেখান থেকে আজ (বৃহস্পতিবার) সকাল সাড়ে ১০টায় বিক্ষোভ  মিছিল নিয়ে শ্রমিকরা দিলকুশায় ইসলামী ব্যাংকের সামনে অবস্থান নেয়। দুপুরের পরে তারা আবার প্রেস ক্লাবের সামনে ফিরে আসে।

সোয়ান গার্মেন্টসের শ্রমিকরা জানান, তারা ঈদের আগ থেকে বকেয়া বেতন ও বোনাসের দাবিতে আন্দোলন করে আসছেন। কিন্তু সরকার বা মালিক কর্তৃপক্ষ তাদের দাবিদাওয়া পূরণে কোনো কার্যকরী পদক্ষেপ নেয়নি।

শ্রমিবরা আরো জানান, সোয়ান গার্মেন্টসের মালিকরা  ইসলামী ব্যাংকে কারখানা বন্ধক রেখে ঋণ নিয়েছে। এ ছাড়া গত ১৮ জুন সোয়ান গার্মেন্টেসের গোডাউনের মালামাল লুটের অভিযোগে ইসলামী ব্যাংক কর্তৃপক্ষ শ্রমিকদের বিরুদ্ধে একটি মামলা করেছে।

ঘেরাও কর্মসূচিতে গার্মেন্টস শ্রমিক ট্রেড ইউনিয়ন কেন্দ্রের সভাপতি অ্যাডভোকেট মন্টু  ঘোষ বলেন, ইসলামী ব্যাংক চাইলেই শ্রমিকদের বকেয়া পরিশোধ করে দিতে পারে। তাই তাদের বকেয়া পরিশোধ করে দ্রুত পুনরায় গার্মেন্টস চালুর উদ্যোগ নিতে হবে।

এ ছাড়া শ্রমিকদের বিরুদ্ধে ইসলামী ব্যংকের দায়ের করা মামলা প্রত্যাহার করে নিতে হবে। তা নাহলে ভবিষ্যতে আরও কঠোর কর্মসূচি দেওয়া হবে।

এ প্রসঙ্গে আন্দোলনরত গার্মেন্টস  শ্রমিক ট্রেড  ইউনিয়ন কেন্দ্রের  সাধারণ সম্পাদক রুহুল আমিন রেডিও তেহরানকে জানান, আগামী মঙ্গলবারের মধ্যে শ্রমিকদের পাওনা পরিশোধের ব্যাপারে আশ্বাস দেয়া হয়েছে। তবে পাওনা বুঝে না পাওয়া পর্যন্ত তাদের অবস্থান কর্মসূচি চলবে।

সূত্রঃ http://bangla.irib.ir/%E0%A6%AC%E0%A6%BE%E0%A6%82%E0%A6%B2%E0%A6%BE%E0%A6%A6%E0%A7%87%E0%A6%B6-%E0%A6%AA%E0%A6%B0%E0%A6%BF%E0%A6%B8%E0%A7%8D%E0%A6%A5%E0%A6%BF%E0%A6%A4%E0%A6%BF/item/75614-%E0%A6%AC%E0%A7%87%E0%A6%A4%E0%A6%A8-%E0%A6%AC%E0%A7%8B%E0%A6%A8%E0%A6%BE%E0%A6%B8%E0%A7%87%E0%A6%B0-%E0%A6%A6%E0%A6%BE%E0%A6%AC%E0%A6%BF%E0%A6%A4%E0%A7%87-%E0%A6%B8%E0%A7%8B%E0%A7%9F%E0%A6%BE%E0%A6%A8-%E0%A6%97%E0%A6%BE%E0%A6%B0%E0%A7%8D%E0%A6%AE%E0%A7%87%E0%A6%A8%E0%A7%8D%E0%A6%9F%E0%A7%87%E0%A6%B0-%E0%A6%B6%E0%A7%8D%E0%A6%B0%E0%A6%AE%E0%A6%BF%E0%A6%95%E0%A6%A6%E0%A7%87%E0%A6%B0-%E0%A6%87%E0%A6%B8%E0%A6%B2%E0%A6%BE%E0%A6%AE%E0%A7%80-%E0%A6%AC%E0%A7%8D%E0%A6%AF%E0%A6%BE%E0%A6%82%E0%A6%95-%E0%A6%98%E0%A7%87%E0%A6%B0%E0%A6%BE%E0%A6%93

Advertisements

যুক্তরাষ্ট্রের জেলে এক কৃষ্ণাঙ্গ নারীকে হত্যা করা হয়েছে

maxresdefault

যুক্তরাষ্ট্রে জেলে স্যান্ড্রা ব্লান্ড নামের এক কৃষ্ণাঙ্গ নারীর মৃত্যু হয়েছে। আটকের তিনদিন পর ব্লান্ড জেলে আত্মহত্যা করেছেন, পুলিশ এমনটা দাবি করলেও পরিবারের পক্ষ থেকে অভিযোগ উঠেছে পুলিশই ব্লান্ডকে হত্যা করেছে। এদিকে আবার রোববার ওহাইওতে একজন কৃষ্ণাঙ্গ বাইক চালককে গুলি করে হত্যা করেছে ট্রাফিক পুলিশ। এমন পরিস্থিতিতে মার্কিন পুলিশ বাহিনী বলছে এইসব ঘটনার সুষ্ঠু তদন্ত করে দেখা হচ্ছে।

গত ১০ জুলাই ট্রাফিক আইন ভঙ্গের অভিযোগে টেক্সাসের শেরিফ ২৮ বছর বয়সী আফ্রিকান-আমেরিকান স্যান্ড্রা ব্লান্ডকে আটক করে। এর তিনদিনের মাথায় জেলে ব্লান্ডের ঝুলন্ত মরদেহ পাওয়া যায়। এরপর ব্লান্ডের মৃত্যু নিয়ে নানা ধোঁয়াশার সৃষ্টি হলে পুলিশের পক্ষ থেকে জানানো হয় তিনি আত্মহত্যা করেছেন। আটকের পর জিজ্ঞাসাবাদে স্যান্ড্রা আগে একবার আত্মহত্যার চেষ্টা করেছিলেন বলে জানায় পুলিশ। তবে স্যান্ড্রা ব্লান্ডের পরিবার পুলিশের এই দাবি অস্বীকার করে, পাল্টা পুলিশের বিরুদ্ধে হত্যার অভিযোগ আনে।

ব্লান্ডের আইনজীবী ক্যানন ল্যামবার্ট বলেন, ‘আপনারা যদি ভিডিওটি দেখেন তাহলে দেখবেন যে পুলিশ স্যান্ড্রার উপর নির্যাতন করেছে তা স্পষ্ট। আমি এই বুঝতে পারছি না কেন ছোট্ট একটা বিষয়ের জন্য তাকে গাড়ি থেকে বের হতে বলা হবে, তাকে ধাক্কা দিয়ে নিচে ফেলা হবে, আর কেনইবা তাকে আটক করা হবে। শুধু তাই নয় ভিডিওটিতে এও দেখা যাচ্ছে পুলিশ স্যান্ড্রাকে হত্যার হুমকি দিচ্ছে। এগুলো প্রমাণ করছে পুলিশই স্যান্ড্রার হত্যাকারী।’

এই অভিযোগ মানতে নারাজ টেক্সাসের পুলিশ বাহিনী। তারা জানিয়েছে ঘটনা তদন্ত করে দেখা হচ্ছে।

টেক্সাসের নিরাপত্তা বিভাগের মহাপরিচালক স্টিভ ম্যাক্রো বলেন, ‘আমরা তদন্ত করছি। এটা সত্যি স্যান্ড্রাকে আটকের কোনো প্রয়োজনীয়তা ছিল না। তবে তদন্তের ফলাফলের আগে কিছু বলা সম্ভব নয়। কিন্তু আমি আশ্বাস দিচ্ছি এর সুষ্ঠু তদন্ত হবে এবং দোষীকে বিচারের কাঠগড়ায় দাড় করানো হবে।’

এদিকে রোববার ওহাইওতে নিরস্ত্র কৃষ্ণাঙ্গ স্যামুয়েল ডুবোসকে মাথায় গুলি করে হত্যা করেছে সেখানকার ট্রাফিক পুলিশ। ঘটনাটি জানাজানি হলে বুধবার পুলিশবাহিনীর পক্ষ থেকে বলা হয় মদ্যপ ডুবোসের হামলা থেকে বাঁচতেই পাল্টা হামলা চালানো হয়। তবে এই ঘটনার এখনও তদন্ত চলছে।

গত বছর থেকে এই পর্যন্ত দেশটিতে শ্বেতাঙ্গ পুলিশের হামলায় প্রায় ১৫ জন কৃষ্ণাঙ্গের মৃত্যু হয়েছে। পুলিশ বাহিনীর বর্ণবাদী আচরণ থেকে বাদ পড়েনি খোদ প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামা এবং ফার্স্ট লেডি মিশেল ওবামাও। পুলিশ সদস্যদের এমন আচরণ থেকে বিরত রাখতে ফার্গুসনের পুলিশ বাহিনীর প্রধান হিসেবে নিয়োগ দেয়া হয়েছে এন্ড্রু এন্ডারসন নামের এক কৃষ্ণাঙ্গ কমান্ডারকে। কিন্তু তার পরেও শ্বেতাঙ্গদের বর্ণবাদী আচরণ বেড়েই চলেছে।

সূত্রঃ http://www.vox.com/2015/7/20/9002747/sandra-bland-arrest-video


কলকাতাঃ কিষেণজি নিয়ে মিছিল করল গণতান্ত্রিক অধিকার রক্ষা সমিতি (এপিডিআর)

1336263185

কিষেণজির মৃত্যু নিয়ে বিতর্ককে কেন্দ্র করে বুধবার কলেজ স্কোয়ার থেকে ধর্মতলা পর্যন্ত মিছিল করে গণতান্ত্রিক অধিকার রক্ষা সমিতি (এপিডিআর)। পরে পথসভায় অভিনন্দনও জানানো হয় তৃণমূল সাংসদ তথা রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রীর ভাইপো অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়কে। যিনি সম্প্রতি এক জনসভায় জানান, কিষেণজিকে হত্যা করেছে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের সরকার। এপিডিআরের সাধারণ সম্পাদক ধীরাজ সেনগুপ্ত বলেন, ‘‘অভিষেককে অভিনন্দন। তিনি সত্যকে সামনে এনেছেন।’’ তাঁদের অভিযোগ, কিষেণজিকে ভুয়ো সংঘর্ষে হত্যা করা হয়েছে। ২০১১-র ২৪ নভেম্বর ঝাড়গ্রামের কাছে বুড়িশোলের জঙ্গলে ওই মাওবাদী নেতার ক্ষতবিক্ষত মৃতদেহ মেলে।

সূত্রঃ http://www.anandabazar.com/state/rally-for-kishenji-at-dharmatala-1.180664


ভারতঃ ঝাড়খণ্ডে মাওবাদীদের ধরিয়ে দিতে রাজ্য সরকারের কোটি রুপি পুরস্কার ঘোষণা

hqdefault

ভারতের ঝাড়খণ্ড রাজ্যের ৭৩ মাওবাদী নেতাকে ধরিয়ে দিতে গতকাল মঙ্গলবার মোট আট কোটি ৬৯ লাখ রুপি অর্থ পুরস্কার ঘোষণা করেছে রাজ্য সরকার।

রাজ্যের ২৪টি জেলার মধ্যে ২২টি মাওবাদী অধ্যুষিত। সিপিআইয়ের (মাওবাদী) বিভিন্ন পর্যায়ের নেতা ও পিপলস লিবারেশন ফ্রন্ট অব ইন্ডিয়ার (পিএলএফআই) শীর্ষস্থানীয় নেতাকে ধরিয়ে দিলে এ পুরস্কার মিলবে বলে রাজ্য সরকার প্রচার করছে ।

রাজ্য সরকারের দাবি, মাওবাদী সংগঠন দুটি বিভিন্ন সময় রাজ্যের নিরাপত্তা বাহিনীর ওপর হামলা চালিয়েছে। অনেক সরকারি সম্পত্তির ক্ষতি করেছে। ২০০০ সাল থেকে এ পর্যন্ত মাওবাদীদের হামলায় রাজ্যের কমপক্ষে ৫০০ নিরাপত্তারক্ষী প্রাণ হারিয়েছে।

ঝাড়খণ্ডের স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় থেকে জানানো হয়, বিভিন্ন পর্যায়ের মাওবাদী নেতাদের ধরিয়ে দিলে সর্বনিম্ন এক লাখ রুপি আর সর্বোচ্চ ২৫ লাখ রুপি অর্থ পুরস্কার দেওয়া হবে। সিপিআই (মাওবাদী) দলের কেন্দ্রীয় কমিটি, বিশেষ এলাকা কমিটি ও স্থানীয় ব্যুরোর সদস্যদের ধরিয়ে দিলে ২৫ লাখ রুপির পুরস্কার মিলবে। পিএলএফআইয়ের প্রতিষ্ঠাতা প্রধান দীনেশ গোপকে ধরিয়ে দিলেও মিলবে ২৫ লাখ রুপি।

এ ছাড়া মাওবাদীদের রিজওনাল কমিটির সদস্যদের জন্য ১৫ লাখ, জোনাল কমিটির সদস্যদের জন্য ১০ লাখ, সাব-জোনাল কমিটির সদস্যদের জন্য পাঁচ লাখ, কমান্ডারস এরিয়া কমিটির সদস্যদের জন্য দুই লাখ ও স্থানীয় গেরিলা স্কোয়াডের সদস্যদের জন্য এক লাখ রুপি পুরস্কার দেওয়া হবে।

সূত্রঃ http://www.hindustantimes.com/india-news/jharkhand-announces-rs-8-7-crore-bounty-on-head-of-73-maoists/article1-1371564.aspx

http://timesofindia.indiatimes.com/india/Jharkhand-announces-Rs-8-69-crore-bounty-on-73-Maoists/articleshow/48157666.cms


ভারতঃ আত্মহত্যায় কৃষকদের থেকে এগিয়ে গৃহবধূদের লাশের মিছিল

image_232969.deth-1

নয়াদিল্লি: আত্মহত্যার ক্ষেত্রে কৃষকদের চেয়ে অনেকটাই এগিয়ে রয়েছে গৃহবধূদের লাশের মিছিল৷ কৃষকদের তুলনায় প্রায় চারগুণ আত্মহত্যা করতে দেখা গিয়েছে গৃহবধূদের৷ ন্যাশনাল ক্রাইম ব্যুরোর সমীক্ষা এমনটাই জানাচ্ছে৷

 এই সমীক্ষা রিপোর্টে দেখা গিয়েছে, গত বছর ২০হাজার ১৪৮ জন গৃহবধূ আত্মহত্যা করেছে৷ সেখানে কৃষক আত্মহত্যার সংখ্যাটি হল ৫৬৫০৷ কৃষক আত্মহত্যার কারণে বেশ কয়েকবার বিভিন্ন সরকারকে সমালোচনার মুখে পড়তে হয়েছে ৷ অন্যদিকে গৃহবধূদের আত্মহত্যার পিছনে রয়েছে পণ, মানসিক অবসাদ, দাম্পত্য কলহ, বিবাহবহির্ভূত জীবনসহ নানা ধরনের সামাজিক বিশৃঙ্খলতার কারণ ৷

সূত্রঃ http://www.bengali.kolkata24x7.com/farmers-wife-suicide.html