TIKKO কারা ? তুরস্কের গণযুদ্ধ

Advertisements

বাংলাদেশঃ ব্রাশফায়ারে তিন পুলিশ হত্যায় ‘মাওবাদী’ গ্রেপ্তার

poster

পাবনার বেড়া উপজেলার ঢালারচরে ব্রাশফায়ারে তিন পুলিশ হত্যা মামলায় আবদুল লতিফকে (৪৮) গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ।

গত শনিবার বিকেল ৩টার দিকে সদর উপজেলার শালাইপুর গ্রামে অভিযান চালিয়ে লতিফকে গ্রেপ্তার করা হয়। এ সময় তাঁর কাছ থেকে একটি ধারালো অস্ত্র উদ্ধার করা হয়।

পাবনা সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আহসানুল হক দাবি করেন, লতিফ  পূর্ববাংলা সর্বহারা পার্টির আঞ্চলিক নেতা।

পুলিশ জানায়, “বেড়া উপজেলার ঢালারচর পুলিশ ফাঁড়িতে হামলা চালিয়ে ২০১০ সালের ২০ জুলাই ব্রাশফায়ারে উপপরিদর্শক (এসআই) কফিলসহ তিন পুলিশ সদস্যকে হত্যা করা হয়। এ ছাড়া ১৯৯৬ সালের ১১ সেপ্টেম্বর ঢালারচরে পুলিশি অভিযানের সময় চরমপন্থীদের গুলিতে এসআই হেদায়েতসহ তিনজন নিহত হন। আবদুল লতিফ দুই মামলারই পলাতক আসামি।”

এ ছাড়া তাঁর বিরুদ্ধে পাবনা সদর, আমিনপুর, বেড়া, সুজানগর, সদর, পাংশা, রাজবাড়ী থানায় হত্যা সহ ডজন খানেক মামলা রয়েছে বলে জানায় পুলিশ।

সূত্রঃ http://www.ntvbd.com/bangladesh/20153/%E0%A6%AC%E0%A7%8D%E0%A6%B0%E0%A6%BE%E0%A6%B6%E0%A6%AB%E0%A6%BE%E0%A7%9F%E0%A6%BE%E0%A6%B0%E0%A7%87-%E0%A6%A4%E0%A6%BF%E0%A6%A8-%E0%A6%AA%E0%A7%81%E0%A6%B2%E0%A6%BF%E0%A6%B6-%E0%A6%B9%E0%A6%A4%E0%A7%8D%E0%A6%AF%E0%A6%BE%E0%A7%9F-%E0%A6%9A%E0%A6%B0%E0%A6%AE%E0%A6%AA%E0%A6%A8%E0%A7%8D%E0%A6%A5%E0%A7%80-%E0%A6%97%E0%A7%8D%E0%A6%B0%E0%A7%87%E0%A6%AA%E0%A7%8D%E0%A6%A4%E0%A6%BE%E0%A6%B0


কমিউনিস্ট পিকেকে’র বোমা হামলায় ১৪ তুর্কি পুলিশ নিহত

62599db05da3400dac249ff7670c3e97_18

তুরস্কে পুলিশের একটি মিনিবাসে বোমা হামলার ঘটনায় অন্তত ১৪ পুলিশ সদস্য নিহত হয়েছেন।

মঙ্গলবার (০৮ সেপ্টেম্বর) ইগদির প্রদেশে এ হামলার ঘটনা ঘটে বলে কর্তৃপক্ষের বরাত দিয়ে জানিয়েছে আন্তর্জাতিক সংবাদমাধ্যমগুলো।

তুরস্কের কুর্দিস্তান ওয়ার্কার্স পার্টি (পিকেকে) এ হামলার দায় স্বীকার করে নিয়েছে।

এর আগে মঙ্গলবার (০৮ সেপ্টেম্বর) স্থানীয় সময় মধ্যরাতে দেশটির পার্বত্য অঞ্চল ও ইরাকের উত্তরাঞ্চলে পিকেকে অধ্যুষিত এলাকাগুলোয় ব্যাপক বিমান হামলা চালায় তুর্কি বাহিনী। ছয় ঘণ্টাব্যাপী ওই অভিযানে অর্ধ শতাধিক জঙ্গিবিমান অংশ নেয়।

সূত্রঃ http://www.hurriyetdailynews.com/at-least-13-policemen-killed-in-pkk-attack-in-eastern-turkey-report.aspx?pageID=238&nID=88143&NewsCatID=341


ছবিঃ কলকাতায় “শেকল ভাঙ্গার গান”

নীতীশ রায়

নীতীশ রায়

 

নীতীশ রায় ও তার দল

নীতীশ রায় ও তার দল

 

জীতেন মারান্ডি ও তার দল

জীতেন মারান্ডি ও তার দল

 

"ঝাড়খন্ডের জঙ্গলে জানি আজও প্রতিরোধ হয়..."

“ঝাড়খন্ডের জঙ্গলে জানি আজও প্রতিরোধ হয়…”

 

রাজনৈতিক বন্দিদের মামলার খরচ নির্বাহের জন্য সংগঠকের তরফ থেকে বর্ষীয়ান বিপ্লবী সাহিত্যিক কাঞ্চন কুমার সংগৃহিত অর্থ তুলে দিচ্ছেন কমিটি ফর রিলিজিং অব পলিটিকাল প্রিজনার্স-এর সাধারণ সম্পাদক অমিত ভট্টাচার্য-এর হাতে

রাজনৈতিক বন্দিদের মামলার খরচ নির্বাহের জন্য সংগঠকের তরফ থেকে বর্ষীয়ান বিপ্লবী সাহিত্যিক কাঞ্চন কুমার সংগৃহিত অর্থ তুলে দিচ্ছেন কমিটি ফর রিলিজিং অব পলিটিকাল প্রিজনার্স-এর সাধারণ সম্পাদক অমিত ভট্টাচার্য-এর হাতে

 

হালিশহর সাংস্কৃতিক সংস্থার নাটক 'উচ্ছেদ

হালিশহর সাংস্কৃতিক সংস্থার নাটক ‘উচ্ছেদ

 

হালিশহর সাংস্কৃতিক সংস্থার নাটক 'উচ্ছেদ'

হালিশহর সাংস্কৃতিক সংস্থার নাটক ‘উচ্ছেদ’


ছবি- মাওবাদী TKP/ML TİKKO, আন্তর্জাতিকতাবাদী মুক্তি ব্যাটেলিয়নের সহযোগী সদস্য

11990647_121615188189177_4591009226755017367_n

1

2

3

4

5

6

7


ছবি-

1927540640614836169

 

05-vzgnrns1-Wea_06_2537569f


বাংলাদেশঃ রাজবাড়ীতে কথিত বন্দুক যুদ্ধে বিপ্লবী কমিউনিস্ট পার্টির ২ সদস্য নিহত

5adc5f195c6704608b041acbe38ad10c

রাজবাড়ীর পাংশায় পুলিশের সঙ্গে কথিত ‘বন্দুকযুদ্ধে’ পাংশা থানার সাবেক ওসি মিজানুর রহমান ও সজল হত্যার প্রধান আসামি তালিকাভুক্ত কামাল হোসেন কামাল (৪৭) ও ওমর খাঁ (৩৫) নিহত হয়েছেন। এসময় পাংশা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) সহ ৫ পুলিশ সদস্য আহত হন।

গত শুক্রবার রাত সোয়া ৩টার দিকে রাজবাড়ীর পাংশা উপজেলার পূর্ব পাট্টা ইউনিয়নের জনৈক মোস্তফার মেহগণি বাগানে পুলিশের সঙ্গে এ কথিত বন্দুকযুদ্ধের ঘটনা ঘটে।

নিহতরা হলো পাংশা উপজেলার কসবা মাঝাইল ইউনিয়নের শান্তি খোলা গ্রামের জিয়ারত ম­লের ছেলে কামাল হোসেন (৪৭) এবং মৌরাট ইউনিয়নের বড় চৌবাড়িয়ার চরপাড়া গ্রামের জালাল খার পুত্র ওমর খাঁ(৩৫)। পুলিশ জানায়, বৃহস্পতিবার বিকালে প্রথমে হত্যা মামলার আসামি ওমর খাঁকে গোয়ালন্দের দৌলতদিয়া ঘাট এলাকা থেকে  গ্রেফতার করা হয়। তাকে জিজ্ঞাসাবাদ শেষে শৈলকুপার লাঙলবাঁধ এলাকা থেকে পুলিশ পাংশার সাবেক ওসি হত্যা মামলার আসামি কামালকে গ্রেফতার করে। তাদের স্বীকারোক্তি অনুযায়ী শুক্রবার ভোর ৩টার দিকে পাংশার পূর্ব পাট্টা এলাকার জনৈক মোস্তফার মেহগনি বাগানে যান। সেখানে আগে থেকে অবস্থান করা কামাল ও ওমরের সহযোগীরা পুলিশের উপস্থিতি টের পেয়ে গুলি ছুঁড়তে থাকে। এ সময় পুলিশও পাল্টা গুলি ছোঁড়ে। এতে কামাল ও ওমর গুরুতর আহত হয়। বন্দুক যুদ্ধে সহযোগীদের ছোঁড়া গুলিতে ওসিসহ ৫ জন পুলিশ সদস্য আহত হন। গুরুতর আহতদের উদ্ধার করে রাজবাড়ী সদর হাসপাতালে আনা হলে ডাক্তাররা তাদের মৃত ঘোষণা করে। পুলিশ তাদের কাছ থেকে ২টি ওয়ান শুটারগান, ১টি একনালা বন্দুক, ৫ রাউন্ড বন্দুকের গুলি ও ৬ রাউন্ড গুলির খোশা উদ্ধার করা হয়। মৃত কামাল ২০১৪ সালে পাংশা থানার ওসি মিজানুর রহমান হত্যা মামলার ১ নম্বর আসামি। সে বিপ্লবী কমিউনিস্ট পার্টির দলনেতা হিসাবে কাজ করতো। পাংশা মডেল থানার অফিসার ইনচার্জ আবু শামা মোঃ ইকবাল হায়াত জানান, সন্ত্রাসীদের ধরতে অনেক বেগ পেতে হয়েছে। কামালের বিরুদ্ধে ৫টি এবং ওমরের বিরুদ্ধে ৪টি হত্যাসহ অপহরণ ও চাঁদাবাজির মামলা রয়েছে।

সূত্রঃ http://www.thedailystar.net/frontpage/2-outlaws-killed-gunfight-138136