ভারতঃ মাওবাদী অভিযোগে আদিবাসী কৃষককে হত্যা করে, লাশ পুড়িয়ে দিয়েছে পুলিশ

আদিবাসী কৃষক 'ভীমা মাডাভী'র পরিবারের সদস্যরা

আদিবাসী কৃষক ‘ভীমা মাডাভী’র পরিবারের সদস্যরা

সোনি সোরি বলেছেন, হত্যার প্রমাণ মূছে ফেলতেই মৃতদেহ পুড়িয়ে ফেলা হয়েছে।

আদিবাসী কর্মী ও আম আদমি পার্টির(AAP) নেতা সোনি সোরি দান্তেওয়াদা জেলা পুলিশ কর্তৃক মাওবাদী অভিযোগে এক আদিবাসী কৃষককে হত্যা করে তার লাশ পুড়িয়ে দেয়ায় পুলিশকে অভিযুক্ত করেছেন। দান্তেওয়াদার আরানপুর থানার নীলাভয় গ্রামের কৃষক ভীমা মাডাভীকে ৬ই অক্টোবর মৃত অবস্থায় পাওয়া যায়। তার শরীরে অনেক বুলেটের ক্ষত ছিল, “পুলিসের মধ্য থেকে কেউ ভীমা মাডাভীকে গুলি করেছে, ঘটনাটি যখন ঘটেছিল তখন শত শত পুলিশ ঐ এলাকায় অবস্থান করছিল, নীলাভয়ের গ্রামবাসীরাও একই দাবী করেছে- দি হিন্দু কে বলেন সোনি সোরি “।

তিনি বলেন, দান্তেওয়াদা পুলিশ হত্যার আলামত মূছে ফেলতে জোরপূর্বক মৃতদেহটিকে পুড়িয়ে ফেলার চেষ্টা করছিল, যখন আমি ঘটনাটি জানি-তখনই গ্রামবাসীদের মৃতদেহটি সংরক্ষণ করতে বলি, যাতে করে আমি তাদের নিয়ে আরানপুর থানায় অভিযোগ দায়ের করতে পারি। আমরা চেয়েছিলাম মৃতদেহটির পোস্টমর্টেম করতে, কিন্তু আমি বৃহস্পতিবার গ্রামে পৌঁছার আগেই শত শত পুলিশ মৃতদেহটিকে জোরপূর্বক পুড়িয়ে ফেলে।”

সূত্রঃ http://www.thehindu.com/news/national/police-accused-of-killing-innocent-tribal-farmer-in-dantewada/article7744180.ece

Advertisements

ভারতঃ মহারাষ্ট্রে পুলিশ অফিসারকে খতম করল মাওবাদীরা

Women Maoists cadres doing weapons training

সিপিআই(মাওবাদী)-র ক্যাডাররা মহারাষ্ট্রের গাদচিরলি জেলার ভাম্রাগড় তপসিল(রাজস্ব ইউনিট) এর মাল্লুম্পদুর গ্রামের বাইরে নিয়ে গিয়ে বিশেষ পুলিশ অফিসার(SPO) হিসেবে কর্মরত শঙ্কর ওয়াড্ডেড়কে(৩০) গুলি করে খতম করেছে। এর আগে গত ৬ই অক্টোবর তাকে বাড়ী থেকে তুলে নিয়ে যায় মাওবাদীরা।

সূত্রঃ http://www.satp.org/satporgtp/detailed_news.asp?date1=10/10/2015&id=4#4


তুরস্কে আত্মঘাতী বোমায় সরকারকে দায়ী করল এইচডিপি ও বামপন্থীরা

Still+image+taken+from+video

তুরস্কের রাজধানী আঙ্কারায় গতকালের (শনিবার) বোমা বিস্ফোরণে নিহতের সংখ্যা বেড়ে ৯৫ জনে দাঁড়িয়েছে। আহত হয়েছে আরও ২৪৫ জন। গতকাল রাজধানীর প্রধান রেল স্টেশনের কাছে কুর্দি ও বামপন্থীদের সরকার বিরোধী একটি শান্তিপূর্ণ সমাবেশে দু’টি বিস্ফোরণ ঘটানো হয়। বিস্ফোরণে ঘটনাস্থলেই নিহত হয়েছে ৬২ জন। হাসপাতালে নেয়ার আরও ৩৩ জনের মৃত্যু হয়।

এখন পর্যন্ত কোনো গোষ্ঠী এই হামলার দায় স্বীকার করেনি। তবে হামলার জন্য সরকারকে দায়ী করেছে কুর্দিপন্থী পিপলস ডেমোক্রেটিক পার্টি ও  বামপন্থীরা। যদিও সরকারের পক্ষ থেকে এই অভিযোগ অস্বীকার করা হয়েছে। তুরস্কের একজন সরকারি কর্মকর্তা বলেছেন, এটি ছিল সন্ত্রাসী হামলা এবং এ বিষয়ে তদন্ত চলছে। যত দ্রুত সম্ভব তদন্তের ফলাফল সবাইকে জানানো হবে।

তুরস্কের কুর্দি সমর্থিত পিপল’স ডেমোক্রেটিক পার্টি বা এইচডিপিসহ কয়েকটি বামপন্থী দল গতকাল শান্তিপূর্ণ সমাবেশের আয়োজন করেছিল। এইচডিপি পার্টির ট্যুইটে বহু লোক হতাহত হওয়ার কথা বলা হয়েছে, এছাড়া আহত লোকদের সরিয়ে নেওয়ার সময় পুলিশ লোকজনের উপর ‘হামলা’ চালিয়েছে বলে অভিযোগ করেছে দলটি।

সম্প্রতি তুর্কিতে কুর্দিস্থানের দাবিতে আন্দোলনরত PKK গেরিলাদের  সঙ্গে সেনার লড়াই তীব্রতা পেয়েছে। ফলে নিহত হয়েছেন উভয়পক্ষের বহু মানুষ। কুর্দিদের ঘাটিতে বিমান হানা শুরু করেছে তুর্কি সরকার। শনিবারের বোমা বিস্ফোরণের দায় কেউ স্বীকার না করলেও কুর্দিদের তরফে অভিযোগ করা হয়েছে উগ্র জাতীয়তাবাদী সংগঠনকে মদত জুগিয়ে সরকারই ঘটিয়েছে এই বিস্ফোরণ ।


ভারতঃ মাওবাদীদের ধরিয়ে দিতে অস্বীকার করা সাংবাদিককে গ্রেফতার

f17134de-15a5-487d-b78c-031922db9b63

কয়েকদিন আগে আমরা জানতে পেরেছিলাম বস্তারের সাংবাদিক সন্তোষ যাদবকে টাকার টোপ দিয়ে মাওবাদীদের ধরিয়ে দিতে চাপ দিচ্ছে পুলিস। মিডিয়ার একাংশে খবর প্রকাশিত হতেই ছত্তিশগড়ের পুলিস গ্রেফতার করেছে সন্তোষকে। শনিবার সন্তোষের মুক্তির দাবিতে রায়পুরে জমায়েত হয়ে বিক্ষোভ দেখালেন সাংবাদিকরা। বিক্ষোভ দেখান হয় মুখ্যমন্ত্রী রমন সিংয়ের বাড়ির সামনেও। বাস্তরের আইজির এইভাবে সাংবাদিক নির্যাতনের বিরুদ্ধে সরব হন সাংবাদিকরা।

কে এই সন্তোষ যাদব?

বাস্তরের গ্রামীণ সংবাদদাতা সন্তোষ কোন স্থায়ী সংবাদপত্রে চাকরি না করলেও তিনি একাধিক দৈনিকের হয়ে স্ট্রিংজারের কাজ করেন। গত জুন মাসে তাঁকে থানায় নিয়ে গেয়ে উলঙ্গ করে মারার তোড়জোড় করেছিল পুলিস। শেষ পর্যন্ত তা আর করেনি পুলিস। সন্তোষের অপরাধ সে পুলিসের থেকে টাকা নিয়ে মাওবাদীদের ধরিয়ে দিচ্ছে না। সন্তোষের দুর্ভোগ শুরু ২০১৩ সালে ধরবায় মাওবাদী হানায় মহেন্দ্র কর্মা সহ একাধিক নেতা কর্মীদের নিহত হওয়ার ঘটনার পর। তাঁর অপরাধ ঘটনার রিপোর্টিংয়ের জন্য ধরবায় সেই প্রথম সাংবাদিক যে পৌঁছেছিল। এর পর পুলিস তাঁকে ৫ লক্ষ টাকার টোপ দিয়ে মাওবাদীদের ধরিয়ে দিতে চাপ দেয়। সন্তোষ মাওবাদীদের সঙ্গে তাঁর যোগাযোগের কথা অস্বীকার করলে শুরু হয় পুলিসি হয়রানি। এক মহিলাকে হয়রান করার মিথ্যা মামলায়ও সন্তোষকে ফাঁসানো হয় বলে অভিযোগ। মিডিয়া খবর প্রকাশিত হওয়ার পরই কুখ্যাত জনসুরক্ষার কালা আইনে সন্তোষকে গ্রেফতার করা হয়েছে বলে অভিযোগ সাংবাদিকদের।

journalist-community-in-orissa-decides-to-boycott-all-police-functions

সূত্রঃ http://satdin.in/?p=5405


ভারতঃ আত্মসমর্পণকারী সহকর্মীদের আন্দোলনে পুনরায় যোগদানের আহ্বান জানাল মাওবাদীরা

Maoist_AFP

গাদচিরোলি পুলিশের উদ্ধার করা সাম্প্রতিক এক পুস্তিকাতে মাওবাদীরা আত্মসমর্পণকারী সহকর্মীদের পুনরায় আন্দোলনে যোগদানের আহ্বান জানিয়েছে।

দণ্ডকারণ্য বিশেষ জোনাল কমিটি কর্তৃক ছাপানো এই পুস্তিকাগুলি সম্প্রতি আত্মসমর্পণকারী মাওবাদীদের গ্রামগুলোতে বিলি করা হয়েছে।

গোন্ডি ভাষার পুস্তিকাতে লেখা ছিল, “কেউ নিহত হলে রাষ্ট্রীয় বাহিনী একে মাওবাদীদের কাজ বলে উল্লেখ করে। তাদেরকে বিশ্বাস করবেন না। গাদচিরোলির সংগ্রামে এই ধরনের বাধার সম্মুখীন প্রায়শই হতে হবে কিন্তু আমরা একত্রে লড়াই করব। নাগরিক অধিকার রক্ষার সংগ্রামে আত্মবলিদানের মধ্য দিয়ে আমরা নিজেদের অমর করে তুলবো ও ইতিহাস গড়ব। আমাদেরকে অবশ্যই এই সুযোগের সদ্ব্যবহার করতে হবে।” এতে আরো উল্লেখ করা হয়, “নিজেদের মানুষ আর পুলিশের সাথে কাজ করার যে তফাৎ সে ব্যাপারে এখন আপনাদের অভিজ্ঞতা হয়েছে। আপনাদেরকে পাহারা দিতে অনেক কমরেড তাদের জীবন দিয়েছে। পুলিশ আপনাদের দুর্বলতার সুযোগ নিয়ে চাকরী, আশ্রয়ে দেয়ার লোভ দেখাচ্ছে। আমরা আপনাদের হতাশা বুঝি আর এ ব্যাপারে আমাদের চিন্তা রয়েছে।” এতে আরো বলা হয়, “এরা আপনাদের কিছুই দেবে না। পুলিশের দয়ায় জীবন অতিবাহিত করার মধ্যে কোন আত্মমর্যাদা নেই। এরা যে নিরাপত্তা দেয় সেটিও আসল নয়। এর পরিবর্তে আসন্ন আন্দোলনে যোগদান করুন। আমরা সর্বদাই আপনাদের রক্ষা করব। আমাদেরকে ভয় পাওয়ার কিছু নেই। আপনাদের জল, জঙ্গল, জমি, মর্যাদা ও অধিকারের সংগ্রামে সোচ্চার হোন”।

সূত্রঃ http://timesofindia.indiatimes.com/city/nagpur/Naxals-urge-surrendered-colleagues-to-rejoin-movement/articleshow/49279456.cms