বিশ্বের অর্ধেক সম্পদ ১ শতাংশের হাতে; পুঁজিবাদী ব্যবস্থাই দায়ী

b49260e05dd24f906a24a79812727f39_XL

বিশ্বের অর্ধেক সম্পদ রয়েছে সবচেয়ে ধনী ১ শতাংশ মানুষের হাতে। আর সবচেয়ে গরীব ৫০ শতাংশ মানুষের হাতে আছে মাত্র ১ শতাংশ সম্পদ। ওয়ার্ল্ড ওয়েলথ রিপোর্ট-২০১৫-এ ধনী-গরিবের এই বিশাল বৈষম্যের চিত্রটি উঠে এসেছে। সুইজারল্যান্ডভিত্তিক আর্থিক সেবাপ্রতিষ্ঠান ক্রেডিট সুইসের রিসার্চ ইনস্টিটিউট ২০০০ সাল থেকে এ সংক্রান্ত প্রতিবেদন প্রকাশ করে আসছে।

যাদের সম্পদের পরিমাণ কোনো রকম দেনা ছাড়াই ৩ হাজার ২১০ ডলার, তারা ৫০ শতাংশ গরিবের তালিকার বাইরে রয়েছেন। যাদের সম্পদ ৭ লাখ ৫৯ হাজার ৯০০ ডলার তারা শীর্ষ ১ শতাংশ ধনীর তালিকায় পড়েছেন।
বিশ্বের সম্পদ কমলেও বৈষম্য বেড়েছে। বেড়েছে ধনীদের সম্পদের পরিমাণ। প্রতি বছরের মতো এবারের রিপোর্টেও উঠে এসেছে, মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের মানুষই বেশি ধনী। তাদের হাতেই রয়েছে বিশ্বের সবচেয়ে বেশি সম্পদ।

একই সঙ্গে বাড়ছে চীনের নাগরিকদের সম্পদের পরিমাণ। চীনে বিশ্বের মোট মানুষের ২১ শতাংশের বসবাস, আর তাদের সম্পদ ৯ শতাংশ। প্রতিবেদনে আরও বলা হয়েছে, বিশ্বে এখন ১০ লাখ ডলারের বেশি সম্পদ আছে বা মিলিয়নিয়ারের সংখ্যা ৩ কোটি ৩৭ লাখ ১৭ হাজার। এর মধ্যে সবচেয়ে বেশি আছে যুক্তরাষ্ট্রে, ১ কোটি ৫৬ লাখ ৫৬ হাজার। যুক্তরাজ্যে আছে ২৩ লাখ ৬৪ হাজার, জাপানে ৩১ লাখ ২৬ হাজার, ফ্রান্সে ১৭ লাখ ৯১ হাজার, জার্মানিতে ১৫ লাখ ২৫ হাজার এবং চীনে ১৩ লাখ ৩৩ হাজার।

প্রতিবেদন অনুযায়ী, ধনীদের সম্পদ যে হারে বাড়ছে তাতে মনে করা হচ্ছে আগামী পাঁচ বছরে বিশ্বে মিলিয়নিয়ারের সংখ্যা বেড়ে হবে ৪ কোটি ৯৩ লাখ। ভারতে ধনীদের সংখ্যা বাড়ছে বলেও প্রতিবেদনে উল্লেখ করা হয়েছে। দেশটিতে সবচেয়ে ধনী ১ শতাংশের হাতে আছে দেশটির ৫৩ শতাংশ সম্পদ। ধনী ১০ শতাংশের হাতে আছে ৭৬ শতাংশ সম্পদ। প্রতিবেদনে বাংলাদেশের নাম আছে কম সম্পদ থাকা দেশের তালিকায়।

বিশ্বব্যাপী পুঁজিবাদী অর্থনৈতিক ব্যবস্থার কারণেই ধনী-গরিবের বৈষম্য বাড়ছে বলে বিশেষজ্ঞরা মন্তব্য করেছেন। তাদের মতে, পুঁজিবাদী অর্থনৈতিক ব্যবস্থার একটি বড় ত্রুটি হলো-এ ব্যবস্থায় যে যেভাবে পারে সম্পদের মালিক হতে পারে এবং এভাবে সম্পদ দিনে দিনে স্বল্প কিছু মানুষের নিয়ন্ত্রণে চলে যাচ্ছে। ধনী-গরিবের বৈষম্য নিরসনে এখনই পদক্ষেপ না নেয়া হলে সবচেয়ে গরিব মানুষের সংখ্যা বাড়তেই থাকবে বলে তারা জানিয়েছেন।

images

Advertisements

তুরস্কের দারসিমে ঘাঁটি অঞ্চলে মাওবাদীদের বিপ্লবী গান (ভিডিও)


ভারতঃ গণ আদালতে বিচারের পর ৩ TDP নেতাকে মুক্তি দিল মাওবাদীরা

maoists_plga

অপহরণের ১০দিন পর ৩ তেলেগু দেশম পার্টির(TDP) নেতাকে মুক্তি দিল মাওবদীরা। মিডিয়া রিপোর্ট অনুযায়ী গণ আদালতে বিচারের পর এদের মুক্তি দেয় মাওবাদীরা। এই ৩ নেতাকে বক্সাইট খননের প্রতিবাদে সামিল হতে বলেছে মাওবাদীরা। রাজনৈতিক পর্যবেক্ষকদের মতে বক্সাইট খননের কারণে স্থানীয় বাসিন্দাদের ক্ষোভকে ভিত্তি করে ফের অন্ধ্রে সংগঠন তৈরি করতে চাইছে মাওবাদীরা।

সূত্রঃ http://satdin.in/?p=5452


তুরস্কে সেনাবাহিনীর উপর কমিউনিস্টদের (মাওবাদী ও PKK)-র যৌথ হামলা

KURDOS

তুরস্কে গত ১০ই অক্টোবর সকালে দেরসিম অঞ্চলের টুনসেলি প্রদেশের সামরিক ঘাঁটিতে  PKKTKP / ML-TIKKO যৌথভাবে একটি  হামলা চালায়।  এই হামলায় আর্মির ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে বলে জানা গেছে। ফ্যাসিবাদী তুর্কি সরকারের হত্যাকাণ্ডের প্রতিবাদে এই হামলা চালানো হয়েছে।

সূত্রঃ http://maoistroad.blogspot.com/2015/10/turquiakurdistan-del-norte-accion.html