ভেনিজুয়েলার নির্বাচনে সমাজতন্ত্রীদের পরাজয় ও মার্কিন বিপ্লবী কমিউনিস্ট পার্টির(RCP) মুখপত্রের একটি বক্তব্য

gettyimages-499445306

ভেনিজুয়েলায় ১৭ বছর ধরে ক্ষমতায় থাকা নির্বাচনপন্থী সমাজতন্ত্রীদের প্রথমবারের মতো সংসদ নির্বাচনে হারিয়ে জয়ী হয়েছে দেশটির ডানপন্থি বিরোধী জোট। সোমবার নির্বাচনের প্রাথমিক ফলাফলে বিরোধী জোট ডেমোক্রেটিক ইউনিটি ৯৯ টি আসনে জয়লাভ করে। এর মধ্য দিয়ে তেল সমৃদ্ধ দেশে হুগো চ্যাভেজ ১৯৯৯ সালে ক্ষমতারোহনের মধ্য দিয়ে যে কথিত সমাজতান্ত্রিক যাত্রা শুরু হয়েছিল তার অবসান হতে চলেছে।

নির্বাচনি বোর্ডের প্রধান তিবিসে লুসেনা জানান, ১৬৭ টি ন্যাশনাল অ্যাসেম্বলি আসনের মধ্যে ৯৯টি পেয়েছে ডেমোক্রেটিক ইউনিটি এবং ক্ষমতাসীন সমাজতন্ত্রীরা পেয়েছে ৪৬টি আসন। এখনও কয়েকটি আসনের ফল ঘোষণা বাকি আছে।

ক্ষমতাসীন সমাজতান্ত্রিক দল ইউনাইটেড সোস্যাল পার্টি অব ভেনিজুয়েলার নেতা ও দেশটির প্রেসিডেন্ট নিকোলাস মাদুরো নির্বাচনের পরাজয়ের বিষয়টি স্বীকার করে নিয়েছেন। ১৯৯৯ সালে শুরু হওয়া ‘চ্যাভিজমো’ আন্দোলনের সবচেয়ে খারাপ পরিস্থিতি হিসেবে নির্বাচনে পরাজয়কে আখ্যায়িত করেছেন তিনি।  এ পরাজয়কে তার বিরুদ্ধে দেশে ও দেশের বাইরে অর্থনৈতিক যুদ্ধের ফল হিসেবে দাবি করেন তিনি।

হুগো শ্যাভেজ প্রসঙ্গে মার্কিন বিপ্লবী কমিউনিস্ট পার্টির(RCP) মুখপত্রের বক্তব্য – 

২০১৩ সালের ৫ মার্চ তারিখে দীর্ঘ দুই বছর ক্যান্সারের বিরুদ্ধে লড়াই করে অবশেষে হার মেনেছিলেন ল্যাটিন আমেরিকার সাম্রাজ্যবাদবিরোধী আন্দোলনের অন্যতম নেতা এবং ‘একুশ শতকের সমাজতন্ত্রে’র প্রবক্তা ভেনেজুয়েলার প্রেসিডেন্ট হুগো রাফায়েল শ্যাভেজ ফ্রিয়াস। ১৯৫৪ সালে ভেনেজুয়েলার দক্ষিণাঞ্চলীয় শহর সাবানেতায় জন্মগ্রহণ করা শ্যাভেজ সামরিক অ্যাকাডেমি থেকে পড়াশোনা শেষ করে সামরিক বাহিনীতে যোগ দেন এবং ১৯৯২ সালে পেরেজ সরকারকে উৎখাতের জন্য এক ব্যর্থ অভ্যুত্থান প্রচেষ্টা চালান। দুই বছরের কারাদণ্ড ভোগ শেষে ১৯৯৪ সালে বেরিয়ে এসে রাজনৈতিক কর্মকাণ্ড শুরু করেন। ১৯৯৭ সালে ‘ফিফথ রিপাবলিক মুভমেন্ট’ নামে নিজস্ব রাজনৈতিক দল গঠন করেন। ১৯৯৮ সালের নির্বাচনে ৫৬ শতাংশ ভোট পেয়ে ক্ষমতায় আরোহণ করেন এবং দেশটির জন্য নতুন সংবিধান প্রণয়ন করেন। সমাজের সুবিধাবঞ্চিত প্রান্তিক মানুষের সুযোগ-সুবিধা বৃদ্ধির জন্য খনিজ সম্পদ সহ অন্যান্য গুরুত্বপূর্ণ সম্পত্তি জাতীয়করণ করেন। দেশব্যাপী জনপ্রিয়তার কারণে তিনি এরপর প্রতিটি নির্বাচনেই জয়লাভ করেছেন। ২০০২ সালের এপ্রিল মাসে সিআইএ-এর গোপন চক্রান্তে এবং দেশীয় কর্পোরেট ও বাণিজ্যিক স্বার্থ এবং প্রচার মাধ্যমের সহায়তায় একটি সামরিক ক্যু সংঘটিত হয়। ব্যবসায়ী নেতা পেদ্রো কারমোনা শ্যাভেজকে হটিয়ে ক্ষমতা গ্রহণ করেন এবং ১৯৯৯ সালের সংবিধান রহিত করেন। কিন্তু জনগণের বিপুল সমর্থনের ওপর ভিত্তি করে মাত্র দুই দিনের মাথায় হুগো শ্যাভেজ রাষ্ট্র ক্ষমতায় প্রত্যাবর্তন করেন। এরপর ভেনেজুয়েলার শাসন ব্যবস্থায় তার কর্তৃত্ব অনেকটা নিরঙ্কুশ হয়।

অনেকেই বলছেন তার মৃত্যুতে বিশ্বে ভেনেজুয়েলার মার্কিন সাম্রাজ্যবাদবিরোধী লড়াইয়ে একটা অধ্যায়ের পরিসমাপ্তি ঘটল। আবার অনেকের মতে, তার মৃত্যু এই লড়াইকে ক্ষতিগ্রস্থ করবে না, উত্তরসূরী অন্য নেতারা তার আদর্শকে সামনে এগিয়ে নিয়ে যাবেন। ব্যক্তির মৃত্যুতে আদর্শের মৃত্যু হয় না। এই প্রেক্ষিতে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের বিপ্লবী কমিউনিস্ট পার্টি তাদের মুখপত্র ‘রেভোলিউশনে’ গত ৬ মার্চ, ২০১৩ “হুগো শ্যাভেজ প্রসঙ্গ: বোঝাপড়ার ক্ষেত্রে চারটি বিষয়“ শীর্ষক একটি প্রতিবেদন প্রকাশ করেছে। প্রতিবেদনে প্রদত্ত বক্তব্য নিচে বঙ্গানুবাদ করে উপস্থাপন করা হলোঃ

হুগো শ্যাভেজ, যিনি গত ১৪ বছর ধরে ভেনেজুয়েলার রাষ্ট্রপতি হিসেবে ক্ষমতায় অধিষ্ঠিত ছিলেন, গত ০৫ মার্চ মঙ্গলবার ক্যান্সারে আক্রান্ত অবস্থায় মৃত্যুবরণ করেছেন। ‘রেভোলিউশন’ পত্রিকা হুগো শ্যাভেজ, তার কর্মকাণ্ড, দৃষ্টিভঙ্গি এবং শাসন ব্যবস্থার ওপর একটি বিশ্লেষণ প্রকাশ করবে। পাঠকের বোঝার সুবিধার্থে শ্যাভেজের আমলে ভেনেজুয়েলার অর্থনীতি ও রাজনীতি এবং তার বিষয়ে মার্কিন সাম্রাজ্যবাদের অবস্থান-সংক্রান্ত চারটি বিষয় আমরা উপস্থাপন করছি।

১. মার্কিন সাম্রাজ্যবাদের অধীন ভেনেজুয়েলা 

পুরো বিশ শতকজুড়ে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র ভেনেজুয়েলার অর্থনীতিকে নিয়ন্ত্রণ করেছে। তারা দেশটির বৃহৎ ভূমি, শিল্প ও বাণিজ্য-স্বার্থের রক্ষক শাসক শ্রেণীকে সামরিক ও রাজনৈতিক সহায়তা প্রদান করেছে। ভেনেজুয়েলার অর্থনীতিতে তেল সম্পদ সব সময়ই একটি গুরুত্বপূর্ণ বিষয়। বিশ্বের মধ্যে তেল উত্তোলনকারী দেশ হিসেবে ভেনেজুয়েলার উত্থান ঘটে এবং মার্কিন তেল কোম্পানিগুলোর স্বার্থ সেখানকার তেলক্ষেত্রের সাথে গভীরভাবে জড়িত হয়ে পড়ে। ১৯৮৯ সালে আন্তর্জাতিক অর্থ তহবিল (আইএমএফ) ভেনেজুয়েলার ওপর এক ভয়াবহ নির্মম পরিকল্পনা চাপিয়ে দ্যায়। (পেট্রোলের ওপর থেকে ভর্তুকি তুলে দেয়া হয়। ফলে পেট্রোলের মূল্য সাধারণ মানুষের ক্রয়ক্ষমতার ঊর্ধ্বে চলে যায়।- অনুবাদক) জনগণ রাস্তায় নেমে এসে জঙ্গি প্রতিরোধ গড়ে তোলে। তৎকালীন সরকার ৩,০০০ মানুষ হত্যা করে এই প্রতিরোধের রক্তাক্ত জবাব প্রদান করে।

২. হুগো শ্যাভেজ, মার্কিন সাম্রাজ্যবাদের পথের কাঁটা  

হুগো শ্যাভেজ ১৯৯৮ সালে ভেনেজুয়েলার দুর্নীতি, স্বৈরতান্ত্রিক শাসন এবং সাম্রাজ্যবাদের তাবেদারির বিরুদ্ধে জনগণের রায় নিয়ে ক্ষমতা গ্রহণ করেন। তিনি স্পষ্টতই ঘোষণা দেন ভেনেজুয়েলার প্রাকৃতিক সম্পদের মালিকানা সে দেশের জনগণের এবং তেল রপ্তানি থেকে প্রাপ্ত রাজস্ব আয় সামাজিক কল্যাণমূলক খাতেই ব্যয়িত হবে। তিনি মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রকে মোকাবেলার উপযুক্ত পররাষ্ট্রনীতি গ্রহণ করেন। এসব কারণে হুগো শ্যাভেজ তার দেশে বিপুল জনসমর্থন লাভ করতে সমর্থ হন। অন্যদিকে একই কারণে মার্কিন সাম্রাজ্যবাদ তাকে নিজেদের পথের কাঁটা হিসেবে বিবেচনা করতে থাকে। ২০০২ সালের এপ্রিলে মার্কিন গোয়েন্দা সংস্থা সিআইএ-এর চক্রান্তে ভেনেজুয়েলাতে এক সামরিক ক্যু ঘটে। শ্যাভেজের সমগ্র শাসনকালেই মার্কিন সরকারের বিভিন্ন সাহায্যদাতা সংস্থা, সামরিক উপদল, ব্যক্তিমালিকানাধীন দাতব্য প্রতিষ্ঠান এবং প্রচার মাধ্যম ভেনেজুয়েলায় শ্যাভেজ-বিরোধী শক্তি গড়ে তোলার পেছনে কাজ করে যায়।

৩. হুগো শ্যাভেজ প্রকৃত বিপ্লব অথবা সমাজতন্ত্রের ধ্বজাধারী ছিলেন না 

তৃতীয় বিশ্বের একটি শোষণমূলক ব্যবস্থার অধীন রাষ্ট্র হিসেবে ভেনেজুয়েলাতে দুইস্তর-বিশিষ্ট পরিবর্তনের প্রয়োজন ছিল। সাম্রাজ্যবাদের রাজনৈতিক অর্থনীতির সাথে সম্পর্ক বিযুক্ত করার জন্য প্রয়োজন ছিল মৌলিক পরিবর্তনের। এছাড়া প্রয়োজন ছিল একটি মৌলিক সামাজিক বিপ্লব, প্রথাগত সম্পর্ক ও ধ্যানধারণার সাথে সম্পর্ক বিযুক্ততার ক্ষেত্রে কাঠামোগত পরিবর্তন। কিন্তু তা শ্যাভেজের কর্মসূচি অথবা দৃষ্টিভঙ্গি কোনোটির মধ্যেই ছিল না। ভেনেজুয়েলা তেল রপ্তানি থেকে প্রাপ্ত রাজস্ব আয়ের ওপরই নির্ভরশীল থেকে যায়, আর আন্তর্জাতিক তেল বাণিজ্য তো সাম্রাজ্যবাদেরই নিয়ন্ত্রণাধীন। এছাড়া ভেনেজুয়েলার অর্থনীতি তার খাদ্যের যোগানের জন্য বিশ্ববাজারের ওপর নির্ভর করে, যা কিনা আন্তর্জাতিক সাম্রাজ্যবাদী কৃষি-বাণিজ্যের সাথে সম্পর্কিত। একথা ঠিক যে শ্যাভেজের অধীনে ভেনেজুয়েলার স্বাস্থ্য ও শিক্ষা খাতে উল্লেখযোগ্য অগ্রগতি হয়েছে, কিন্তু শ্রেণী ও সমাজ কাঠামোয় কোনো বৈপ্লবিক পরিবর্তন সূচিত হয় নি। সংখ্যায় ক্ষুদ্র কিন্তু একচেটিয়া ক্ষমতার অধিকারী অত্যন্ত ধনী ভূমিমালিকদের হাতে কৃষি ব্যবস্থার নিয়ন্ত্রণ রয়ে গেছে। শহরের দরিদ্র নাগরিকেরা ঝুপড়ি অথবা কুঁড়েঘরে বসবাস করতে বাধ্য হন। নারীকে এখনো পুরুষের অধীন করে রাখা হয়, অবমূল্যায়ন করা হয়। সেখানে গর্ভপাত এখনো আইনত নিষিদ্ধ।

৪. ভেনেজুয়েলার ব্যাপারে নাক গলানোর কোনো অধিকার মার্কিন সাম্রাজ্যবাদের নেই 

ভেনেজুয়েলার সরকারকে অস্থিতিশীল করার ক্ষেত্রে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের যেকোনো প্রচেষ্টা অথবা চক্রান্তের আমরা বিরোধিতা করি। মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের কমিউনিস্ট পার্টি হিসেবে এই বোঝাপড়ার ওপরেই আমাদের কর্তব্য পালন করতে হবে।

 


এথেন্সে জনগণের সঙ্গে পুলিশের সংঘর্ষ

greece-clashe-39770

গ্রিসের রাজধানী এথেন্সে ২০০৮ সালে পুলিশের গুলিতে নিহত এক কিশোরের স্মরণে বিক্ষোভের সময় জনগণের সাথে পুলিশের সংঘর্ষ বাধে।

আন্তর্জাতিক সংবাদ সংস্থা রয়টার্স জানিয়েছে শান্তিপূর্ণ শোভাযাত্রায় পুলিশ বাধা দেওয়া কারণে সংঘর্ষের সৃষ্টি হয়। জনগণ পুলিশকে লক্ষ্য করে পেট্রোল বোমা, ইট, ভাঙ্গা মার্বেল নিক্ষেপ করে।

পুলিশ এ সময় জনগণের দিকে টিয়ার গ্যাস এবং ফ্ল্যাস গ্রেনেড ছুঁড়ে। এখন পর্যন্ত হতাহতের কোনো খবর পাওয়া যায়নি। পুলিশ ১৮ জনকে গ্রেফতার করেছে।