বিপ্লবী চলচ্চিত্রঃ ‘White Mountains’

কুর্দিস্তানের গৃহযুদ্ধ নিয়ে তথ্য চিত্র

hqdefault


প্রতিদিন কমরেড সিরাজ সিকদারের কবিতা- (১৬) ‘দশ হাজার ফুট উপরে’

poster, siraj sikder, 17 X 22 inch, 2 colour, 2005

দশ হাজার ফুট উপরে

দশ হাজার ফুট

উপরে

শরতের বিকালে

আকাশটা উজ্জ্বল নীল।

নীচে সাদা মেঘের মিনার-

দিগন্ত বিস্তৃত।

কোথাও উত্তুঙ্গ চূড়া

খাড়া ধ্বংস

উপত্যকা-

মনে হয় বরফ ঢাকা পর্বতমালা।

মেঘের নীচে

সবুজ শ্যামল ভূমি-

খাল-নদী-নালা-

আঁকাবাঁকা।

আলেভরা ক্ষেতগুলো-

চতুষ্কোণে মোড়া।

বিমানবন্দরে

দক্ষিণা বাতাসে

দূরে রানওয়ে ছাড়িয়ে

দোলায়িত কাশবন-

ফুলে ফুলে সাদা।

মনে পড়ে যায়

বিয়েনহোয়া।

সেখানেও কাশবন-

আনন্দে উদ্বেলিত হয়েছিল

গেরিলাদের সন্তর্পণ ক্রলিং-এ।

সহসা প্রলয় ঘটেছিল-

মার্কিন আগ্রাসী ঘাঁটিতে-

গেরিলাদের প্রবল আক্রমণে।

এখানেও

আমাদের দেশের শত্রু বিমানঘাঁটিতে

কাশবন আন্দোলিত হবে-

গেরিলাদের আক্রমনে-

মুহূর্তে প্রলয় ঘটবে-

বিমানবন্দরে।

পথ-ঘাট-ঘর-বাড়ি-

চলন্ত নৌকা-ট্রাক-বাস-মানুষ-

শিশুর সাজানো খেলনা।

দ্রুতগামী

শত্রু বিমান

বাজপাখীর মত ছুটে আসবে

শিশুর সাজানো ঘর ভেঙ্গে দিতে।

আকাশের মেঘের মিনার

ঝোপঝাড়-

আচ্ছাদন

অন্তরায় গড়বে

দ্রুতগামী বিমান আক্রমণে।

বাধ্য হয়ে নীচে দিয়ে

শ্লথ গতিতে চলা বিমান-

পাখীর মত সহজ নিশান।

আমাদের গেরিলাদের গুলি খেয়ে-

গোত্তা মেরে পড়বে ধরণীতে

বা

ফেটে যাবে আকাশে

ধোঁয়ার কুণ্ডলী রেখে।

সেদিন আর বেশি দূর নয়।


মনিপুরের মাওবাদীদের গণযুদ্ধের সংবাদ

12342450_1647526612183299_3845455455006015542_n

মনিপুরের ইম্ফলে গত ৪ঠা জানুয়ারি সকাল ৮টার দিকে জওহরলাল নেহেরু ইনস্টিটিউট (JNIMS) এর পরিচালক ড, লাইশ্রাম দেবেনের বাসভবনে অজ্ঞাত ব্যক্তিদের রেখে যাওয়া শক্তিশালী বোমা পাওয়া গিয়েছে। পুলিশের বোমা বিশেষজ্ঞদের একটি দল এসে নিরাপদে বোমাটি উদ্ধার করেছে। ডা দেবেন গত পাঁচ মাস থেকে ইন্সটিউটের পরিচালকের দায়িত্বে আছেন।

মনিপুরের মাওবাদী কমিউনিস্ট পার্টি ঘটনার দায় স্বীকার করেছে। মনিপুরের মাওবাদী কমিউনিস্ট পার্টির প্রচার ও প্রকাশনা সচিব কমরেড  ননগ্লেন মেইতেই স্বাক্ষরিত এক বিবৃতিতে বলা হয়, “পার্টির স্পেশাল রেড গার্ড ওই বোমাটি বহন করেছিল। JNIMS দুর্নীতি ও স্বজনপ্রীতিতে ভরে গিয়ে নামমাত্র হাসপাতালে পরিণত হয়েছে, রোগীদের প্রতি কর্মকর্তারা দায়িত্ব পালনে অবহেলা করছে, হাসপাতালে কর্মী নিয়োগে চরম দুর্নীতি হচ্ছে। যদি পরিচালক তার এই দুর্নীতি ও অপকর্ম বন্ধ না করে, তাহলে একই ঘটনা পুনরায় ঘটানো হবে বলে বিবৃতিতে জানানো হয়। “

অনুবাদ সূত্রঃ http://kanglaonline.com/2016/01/bomb-placed-at-jnims-directors-residence-maoist-claims-responsibility/


ভারতঃ FTII: ছাত্রদের মিছিলে পুলিশের লাঠিচার্জ, হেফাজতে ৪০

pune-ftii-655x360

পুনে: এফটিআইআইয়ে বৃহস্পতিবার থেকেই পদভার গ্রহণ করার কথা ছিল গজেন্দ্র চৌহানের৷ এই ঘটনার প্রতিবাদে শান্তিপূর্ণ ভাবেই প্রতিবাদ মিছিল চালাচ্ছিলেন ছাত্ররা৷ অভিযোগ, সেসময় হঠাৎই পুলিশ তাদের উপর লাঠিচার্জ করে এবং প্রায় ৪০ জন ছাত্রদের হেফাজতে নেয়৷

এফটিআইআইয়ের চেয়ারম্যান পদে নিযুক্ত গজেন্দ্র চৌহান প্রায় সাতমাস বাদে তার দায়িত্বভার গ্রহণ করছেন৷ এই ঘটনার প্রতিবাদে ছাত্ররা শান্তিপূর্ণ ভাবে একটি মিছিল করছিলেন৷ এই মিছিলে ১৭ জন ছাত্রকে উপস্থিত থাকার নোটিশ দেওয়া হয়েছিল৷

প্রসঙ্গত, চেয়ারম্যান পদে গজেন্দ্র চৌহানকে নিযুক্ত করার পর থেকেই ছাত্রসহ সিনেমা জগতের বেশকিছু মানুষ এই ঘটনার প্রতিবাদ জানান৷ গজেন্দ্র চৌহানকে পদভার দেওয়াকে অনেকেই রাজনৈতিক ছক বলে অবিহিত করেন৷ কারণ গজেন্দ্র চৌহান বিজেপি সরকারের সদস্য৷ এই ঘটনায় প্রায় ১৩৯ দিন ধরে এফটিআইআইয়ে বিক্ষোভ চলে৷

উল্লেখ্য যে, ফিল্ম আন্ড টেলিভিশন ইনস্টিটিউট অফ ইন্ডিয়ার চেয়ারম্যান পদে সঙ্ঘ পরিবার অনুগত গজেন্দ্র চৌহানকে বসানোর মাধ্যমে হিন্দি সিনেমার হিন্দুত্বকরনের বৃত্ত সম্পূর্ন করার চেষ্টার প্রতিবাদে ফিল্ম আন্ড টেলিভিশন ইনস্টিটিউট অফ ইন্ডিয়ার অধ্যাপক ও ছাত্ররা গজেন্দ্র চৌহানসহ সমস্ত সঙ্ঘ পরিবার অনুগতদের নিয়োগ রুখতে এই আন্দোলন করে যাচ্ছেন।


ভারতঃ মাওবাদী প্রভাবিত ৩৫টি জেলাকে ১হাজার কোটি বরাদ্দ স্বরাষ্ট্র মন্ত্রকের

maoi

দেশের ৭টি রাজ্যের ৩৫টি মাওবাদী প্রভাবিত জেলার উন্নয়নের জন্য ১০০০ কোটি টাকা অনুমোদন করল স্বরাষ্ট্রমন্ত্রক। এই টাকা উন্নয়নের পাশাপাশি মাওবাদীদের মোকাবিলার জন্য প্রয়োজনীয় সরঞ্জামের পিছনেও খরচ হবে। ঝাড়খন্ডের ১৬টি জেলা, ছত্তিশগড়ের ৮টি জেলা, বিহারে ৬টি, মহারাষ্ট্র ও ওড়িশার ২টি করে জেলা ও তেলেঙ্গানা ও অন্ধ্রের ১টি করে জেলার জন্য খরচ করা হবে এই অর্থ।

অতীতেও এই ধরণের বরাদ্দ দেয়া হয়েছিল, কিন্তু এই অর্থ লুটপাট হয়ে বাকিটা উন্নয়নের নামে মূলত মাওবাদী মোকাবেলায় ব্যয় হয়েছে।

প্রশ্ন উন্নয়নের জন্যই যদি অর্থ বরাদ্দ করা হবে তা স্বরাষ্ট্রমন্ত্রকের তরফে কেন?


আন্তর্জাতিক সভা ২০১৫তে তিউনিসিয়ার Kahédin পার্টি

t1larg.tunisia.riots_.gi_

প্রিয় কমরেডগণ,

banlieuesসর্বহারা বিপ্লবের বিদ্রোহ” এই শ্লোগানে আপনাদের আন্তর্জাতিক সভাকে আমরা শুভেচ্ছা জানাচ্ছি এবং আমরা গুরুত্বের সাথে জানাচ্ছি, তিউনিসিয়ার Kahédin পার্টি – বেকারত্ব, শোষণ ও পুলিশের অত্যাচারের বিরুদ্ধে প্রতিবেশী নিপীড়িত তরুণদের বিপ্লবী সংগ্রামকে সমর্থন করছে। এই সংগ্রাম শুধুমাত্র ইউরোপে নয়, বিশ্ব সাম্রাজ্যবাদের কেন্দ্র যুক্তরাষ্ট্রেও ছড়িয়ে পড়েছে, যা সার্বজনীন বিপ্লবের দাবানল ছড়িয়ে দিতে একটি স্ফুলিঙ্গ হয়ে উঠতে পারে, তাই আমাদের এই সংগ্রামকে সংগঠিত ও শক্তিশালী করে তুলতে হবে। আমরা আপনাদের সভার শুভ কামনা করছি এবং আপনারা/কমরেডদের পাশাপাশি বলছি, শোষণ, দারিদ্র্য, বেকারত্ব ও সন্ত্রাসকে পরাজিত করতে বিপ্লবী পথ ছাড়া আর কোন পথ নেই।

বিদ্রোহ করা ন্যায়সঙ্গত !

সাম্রাজ্যবাদ ও প্রতিক্রিয়া নিপাত যাক !

সর্বহারা শ্রেণী ও নিপীড়িত জনগণের বিপ্লবী সংগ্রাম জিন্দাবাদ !

অনুবাদ সূত্রঃ http://www.signalfire.org/2016/01/06/kadehin-party-of-tunisia-at-2015-international-meeting/


মেক্সিকোঃ Veracruz এ নতুন সশস্ত্র সংগ্রামের সংগঠন গঠনের ঘোষণা

সংগঠন গঠনের বিবৃতিতে জনগণকে যুক্ত হওয়ার আহবান জানিয়ে মেক্সিকোতে জনগণের সশস্ত্র বিপ্লবী সেনা (Ejército Revolucionario del Pueblo en Armas-ERPA)‘র শত শত লিফলেট বিতরণ।

0-grande-1024x546

Guerrilleros-300x500