বাংলাদেশের গণযুদ্ধের সংবাদ

30

৫ জানুয়ারি ফ্যাসিবাদের কালো দিবস শিরোনামে পূর্ববাংলার সর্বহারা পার্টি কেন্দ্রীয় কমিটির নামে পোস্টার লাগানো হয়েছে বগুড়ার শেরপুর উপজেলার ভবানীপুর বাজারে। মার্কসবাদ-লেলিনবাদ-মাওবাদ জিন্দাবাদসহ বিভিন্ন দাবি-দাওয়া লেখা পোস্টারটি প্রচার করা হয়। এলাকাবাসীসূত্রে জানা যায়, ৮ জানুয়ারি রাত ১১টায় ৪০-৫০জন পুরুষ ও নারী সর্বহারা সদস্যরা অস্ত্রসহ ভবানীপুর বাজারে আসে। এরপর তারা কয়েকটি দলে ভাগ হয়ে বাজার এলাকায় পূর্ববাংলার সর্বহারা পার্টির পোস্টার লাগায়, আরেক দল পার্টির গণ-রাজনৈতিক প্রচারপত্র (লিফলেট) দরজা ও শাটারের নিচ দিয়ে বাজারের প্রতিটি ঘরে ঢুকিয়ে দেয়। অন্য একটি দল বাজারের লোকজনের ওপর সতর্ক প্রহরা দেয়। প্রায় ঘণ্টা ধরে বাজারে অবস্থান নিয়ে সশস্ত্র দলটি এ ধরনের কার্যক্রম চালায়। পরে পোস্টার লাগানো শেষ হলে ৩ রাউন্ড ফাঁকা গুলি ছুড়ে বাজার থেকে পশ্চিম দিকে রানীরহাট সড়ক হয়ে তারা চলে যায়। বগুড়ার শেরপুর, সিরাজগঞ্জের তাড়াশ ও রায়গঞ্জ এবং নাটোরের সিংড়া উপজেলার সীমান্তবর্তী মিলনস্থল ভবানীপুর ও রানীরহাট বাজার ঘিরে কয়েক সপ্তাহ ধরে সর্বহারাদের চলাচল শুরু হয়েছে। বিশেষ করে শেরপুর উপজেলার দক্ষিণ-পশ্চিমের গ্রামগুলোতে সর্বহারাদের আনাগোনা ক্রমেই বাড়ছে। কোথাও কোথাও তাদের পদচারণ চলছে গভীর রাত পর্যন্ত। ২০০৫ সালের আগস্টের শেষ দিকে সন্ধ্যায় ভবানীপুর বাজার ঘেরাও করে পূর্ববাংলার সর্বহারা পার্টির সশস্ত্র সদস্যরা এক সমাবেশ করে আওয়ামী লীগ, বিএনপি, জামায়াতকে নির্মূলের ঘোষণা দিয়েছিল। সে সময় তাদের কাজে সহযোগিতা করার জন্য এলাকাবাসীকে আহবান জানিয়েছিল সর্বহারারা। বগুড়ার শেরপুর থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) খান মো. এরফান জানান, চরমপন্থিদের উপস্থিতির বিষয়টি অত্যন্ত গুরুত্বের সঙ্গে নেওয়া হয়েছে। বগুড়ার সিনিয়র সহকারী পুলিশ সুপার গাজিউর রহমান জানান, সর্বহারা পার্টির কিছু পোস্টার উদ্ধার করা হয়েছে। ঘটনার পর ভবানীপুর ও রানীরহাট বাজার এলাকায় নিরাপত্তা জোরদার করা হয়েছে।

এসময় সর্বহারার বলে, তারা সাধারণ মানুষের প্রতিপক্ষ নয়। অতএব তাদের ভয়ের কোনো কারণ নেই।

এ বিষয়ে ভবানীপুর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান জিএম মোস্তফা কামাল জানান, সর্বহারা সদস্যরা গত দুই বছর আগে বাজার এলাকায় এমন পোস্টারিং করেছিলো। এবারও তারা একই কাজ করলো। তবে আগের ঘটনায় তারা গুলি করেনি। এবার গুলি করার মাধ্যমে শক্ত উপস্থিতি জানান দিল।

সূত্রঃ

http://www.bd-pratidin.com/countryvillage/2016/01/17/121383



Leave a Reply

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out /  Change )

Google photo

You are commenting using your Google account. Log Out /  Change )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out /  Change )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out /  Change )

Connecting to %s

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.