বাংলাদেশঃ JNU আন্দোলনের প্রতি সমর্থন জানিয়েছে বিপ্লবী ছাত্র-যুব আন্দোলন জাতীয় কমিটি

images2

কমরেডস,

লাল সালাম।

আপনারা আজ যে সংগ্রাম করছেন আমরা তাকে নীতিগতভাবে সমর্থন করি। আমরা কমরেড কানহাইয়া কুমার ও অধ্যাপক গিলানি কে গ্রেফতারের তীব্র প্রতিবাদ জানাই।কমরেড উমার খালিদের বিরুদ্ধে ইসলামি সন্ত্রাসবাদী বলে প্রচার ও রাষ্ট্রদ্রোহিতার মামলা দেয়ার তীব্র প্রতিবাদ জানাই। এই জওহর লাল নেহরু বিশ্ববিদ্যালয়ের ঘটনা আমাদের আবারো ভারতীয় সম্প্রসারণবাদের ফ্যাসিবাদী চরিত্রকে নগ্নভাবে দেখিয়ে দিল। আমরা এর আগে ব্রাহ্মন্যবাদের বিরুদ্ধে আন্দোলনে সমর্থন জানিয়েছিলাম।এখনো আমরা এই ফ্যাসিবাদী ভারত রাষ্ট্রকে ধিক্কার জানাই।সমগ্র ভারতবর্ষে আজকে আওয়াজ উঠেছে কাশ্মীর, মনিপুর,নাগার স্বাধীনতার।আমরা এই আওয়াজ এর সাথে সুর মিলিয়ে বলছি,কাশ্মীর,মনিপুর,নাগার স্বাধীনতা দিতে হবে। জাতপাতের অবসান ঘটাতে হবে।আমরা তার সাথে সাথে আহবান জানাই,

ভারতীয় সম্প্রসারণবাদী ফ্যাসিবাদকে রুখে দিন, চূর্ণ-বিচূর্ণ করুন!

জাতপাতের বিরুদ্ধে আন্দোলনকে আদিবাসীদেরকে ভুমি থেকে উচ্ছেদের আন্দোলনের সাথে যুক্ত করুন!

কানহাইয়া কুমার ও অধ্যাপক গিলানির মুক্তি আন্দোলনের সাথে সাথে সকল রাজ বন্দিদের মুক্তির দাবিতে আন্দোলন গড়ে তুলুন!

জনগনের গনতান্ত্রিক ভারত নির্মাণের চলমান সংগ্রামে নিজেকে সামিল করুন!

বার্তা প্রেরক,

আহনাফ আতিফ অনিক,

সহ আহবায়ক,

বিপ্লবী ছাত্র-যুব আন্দোলন”,বাংলাদেশ

Advertisements

One Comment on “বাংলাদেশঃ JNU আন্দোলনের প্রতি সমর্থন জানিয়েছে বিপ্লবী ছাত্র-যুব আন্দোলন জাতীয় কমিটি”

  1. Ahmed Mohiuddin says:

    উপমহাদেশের জনগণের কমন শত্রু হচ্ছে কর্পোরেট ভারতীয় রাষ্ট্র ও পুঁজি। সম্রাজ্যবাদী যুক্তরাষ্ট্র অষ্ট্রেলিয়া ও ইউরোপের দেশগুলির বানিজ্য ও পুঁজি সারা পৃথিবীতে ছড়িয়ে ছিটিয়ে সেখানকার জনগণের জীবন চুষে নিলেও উপমহাদেশে বিনিয়োগ ও রাজনৈতিক ক্ষমতার স্টাবলিশমেন্টের প্রশ্নে তারা ভারত রাষ্ট্রের সাথে কৌশলগতভাবে (চীনকে ঠেকাতে) যৌথ অংশিদারিত্বের পক্ষে। সম্রাজ্যবাদী ইউরোপীয় দেশগুলিসহ অষ্ট্রেলিয়া যুক্তরাষ্ট্র উপমহাদেশে ভারতকে ডিঙিয়ে সরাসরি খবরদারীতে নিজেদের ঘোড়ার লাগাম টেনেছে।

    যেহেতু ভারত রাষ্ট্রই এই অঞ্চলের তার প্রতি নতজানু অন্য রাষ্ট্রগুলির উপর সব দিকে থেকে এক একচ্ছত্র আধিপাত্য বর্তমানে বিস্তার করেছে এবং ভারতসহ অন্য রাষ্ট্রগুলো প্রশাসনিক রাজনৈতিক সামাজিক সাংস্কৃতিক ও অর্থনৈতক ক্ষেত্রে যৌথভাবে জনগণের যাপিত বৃহত্তর জীবনকে তাদের সাথে এক অমিমাংশিত দন্দের মুখে অতিতের যেকোনো সময়ের চেয়ে গভীরভাবে নিক্ষেপ করেছে, সেহেতু এই পরিস্থিতিতে এই অঞ্চলের জনগণের মুক্তির প্রশ্নে জনগণের পক্ষের সংগ্রামী শক্তিগুলির ঐক্য ও যৌথ সংগ্রাম আজ অপরিহার্য।

    Like


Leave a Reply

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out / Change )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out / Change )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out / Change )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out / Change )

Connecting to %s