ভারতে ৩ মাসে আত্মঘাতী ২২৬ কৃষক

26_000_Del54044

রাজ্যে রাজ্যে কৃষকদের মৃত্যু মিছিল চলছেই! মারাঠাওয়াড়া অঞ্চলে মাত্র ৩ মাসে আত্মঘাতী কৃষকের সংখ্যা ২০০ ছাড়িয়েছে। জানুয়ারি থেকে এপ্রিলের প্রথম সপ্তাহ- প্রশাসনের পরিসংখ্যানে দেখা যাচ্ছে, আত্মঘাতী কৃষক ২২৬ জন। ফসল নষ্ট হওয়ার কারণেই তাঁরা আত্মহত্যার মতো চরম সিদ্ধান্ত নিতে বাধ্য হয়েছেন।

শুধু উত্তরপ্রদেশ নয়, অতি বর্ষণে মারাঠাওয়াড়া অঞ্চলের ফসলও ব্যাপক ভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। প্রকৃতির সেই ধাক্কা সামলাতে না-পেরেই মৃত্যুমিছিলে শরিক হচ্ছেন কৃষকরা। পরিসংখ্যান বলছে, ২০১৫-র এই ক’মাসে যত কৃষক আত্মহত্যা করেছেন, ২০১০ থেকে ২০১৩-র মধ্যে এত কৃষক আত্মহত্যা করেননি। ২০১০-এ আত্মঘাতী কৃষক ১৯১, ২০১১-য় ১৬৯, ২০১২-য় ১৯৮ এবং ২০১৩ সালে সংখ্যাটা ২০৭ জন। তবে গত বছর কৃষত আত্মহত্যার প্রবণতা, সাম্প্রতিক অতীতের রেকর্ড ছাপিয়ে ছিল ৫৬৯ জন। এ বছর এপ্রিলের শুরুতেই গত বছরের ৪০ শতাংশ ছুঁয়ে ফেলেছে কৃষক-মৃত্যু।

শুধু বীড় জেলাতেই আত্মহত্যা করেছেন ৬৪ জন। ঔরঙ্গাবাদে ৩৮ জন এবং নানদেড়ে ৩৬ জন। ওসমানাবাদে এ বছর ৩৫ জন কৃষক আত্মহত্যা করেছেন।

বীড় জেলার এক সরকারি আধিকারিকের ধারণা, প্রাকৃতিক বিপর্যয়ের কারণে বারবার ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছেন কৃষকরা। ফসল ঘরে তোলার আগে, মাঠেই নষ্ট হচ্ছে। যে কারণে লাভের মুখ দেখতে পাচ্ছেন না। উলটে দেনার বোঝা আরও ভারী হচ্ছে। বারবার এ ভাবে বিপর্যয়ের মুখে সর্বস্বান্ত হয়েই, তাঁরা আত্মহননের মতো চূড়ান্ত পদক্ষেপ নিতে বাধ্য হচ্ছেন।

সমাজকর্মীরা কিন্তু কৃষকমৃত্যুর দায়ভার সরকারের উপরই চাপিয়েছেন। তাঁদের বক্তব্য, রাজ্য সরকার ক্ষতিগ্রস্ত কৃষকদের জন্য আর্থিক ক্ষতিপূরণের কথা ঘোষণা করলেও, তা অতি সামান্যই। তা-ও আবার সময়মতো ক্ষতিগ্রস্ত কৃষকদের হাতে পৌঁছচ্ছে না। যে কারণেই এত আত্মহত্যা বাড়ছে।

Advertisements


Leave a Reply

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out /  Change )

Google photo

You are commenting using your Google account. Log Out /  Change )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out /  Change )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out /  Change )

Connecting to %s

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.