কল্পনা চাকমা অপহরণের বিশ বছরঃ ‘CHT Writers & Activist Forum’ এর প্রতিবাদ সমাবেশ

13441602_10209686776070609_2113410291_o

প্রেস বিজ্ঞপ্তি

।।  কল্পনা চাকমা ও বিচারহীন রাষ্ট্র

কল্পনা চাকমা অপহরণের বিশ বছর পদাপর্ণে এবং এমেনেষ্টি ইন্টারন্যাশনালের ফটো একশন কার্যক্রমের সমর্থনে গতকাল ১০ই জুন বিকেল ৪টায় শাহাবাগস্থ জাতীয় জাদুঘরের প্রাঙ্গনে “সিএইচটি রাইটারস এন্ড এক্টিভিষ্ট ফোরাম” এক মানববন্ধন ও প্রতিবাদ সমাবেশের আয়োজন করে।  সমাবেশে বিশ (২০) বছর আগে অপহরণ হওয়া কল্পনা চাকমার খোঁজ চেয়ে বক্তারা তাঁদের বক্তব্য পেশ করেন।  বক্তাগণ পার্বত্য চট্টগ্রামে সেনাবাহিনীর কার্যকলাপের বিচারহীনতার দায়, অতীত এবং বর্তমানে বিরামহীন অরাজকতার দায়িত্ব রাষ্ট্রের ঐচ্ছিক ব্যর্থতা হিসেবে তুলে ধরেন।  সমাবেশটি শুরু হয় আহ্বায়ক বুক্কু চাকমা ও সঞ্চালকের দায়িত্বে থাকা জয় মারমার নেতৃত্বে।  সমাবেশে তরুণ ছাত্রনেতা ইকুবাবু চাকমা কল্পনা চাকমা অপহরণের ঘটনার বর্ণনা দিতে গিয়ে বলেন- ১৯৯৬ সালে বাগাইছড়ির নাইল্যাগোনা গ্রাম থেকে আনুমানিক রাত তিনটার (৩টার) সময় সেনাবাহিনী কতৃক অপহৃত হওয়া কল্পনা চাকমা ছিলেন হিল উইমেন্স ফেডারেশনের সাধারণ সম্পাদক।  তাঁর মতন লড়াকু সৈনিককে সে সময় স্তব্ধ করার জন্য সেনাবাহিনীর এক লেফটেন্যান্ট কতৃক তিনি অপহৃত হন এবং এরপরে তাঁর কোনপ্রকার খোঁজ পাওয়া যায়নি।  উক্ত সমাবেশে আরো উপস্থিত ছিলেন কেন্দ্রীয় ছাত্রফ্রন্টের সভাপতি .তাঁর বক্তব্য তিনি বলেন- আজ যে বিচারহীনতা সারাদেশজুড়ে শুরু হয়েছে এটি শুরু হয়েছিলো পার্বত্য চট্টগ্রাম থেকে, কল্পনা চাকমার মত এক সংগ্রামী নেত্রীর জীবনে কি ঘটেছিলো তা আজো আমরা জানি না অথচ প্রধানমন্ত্রী বলছেন তিনি নাকি চিফ অফ গর্ভমেন্ট, আমরা প্রধানমন্ত্রীর কাছে জানতে চাই, এই কল্পনা চাকমার বিচার আমরা কবে পাবো।  সেই সময়ের সহযোদ্ধা ইলিরা দেওয়ান বলেন-পুলিশের দ্বারা ধর্ষিত হয়ে খুন হওয়া ইয়াসমিনের বিচার রাষ্ট্র তিনবছরের মাথায় করতে পারলেও কল্পনা চাকমা অপহরনের বিচার আজ বিশ বছরেও করা সম্ভব হয়নি শুধুমাত্র উগ্র জাতিগত আগ্রাসনের মনোভাবের কারনে। কয়েকদিন আগে আমাদের প্রধানমন্ত্রী স্বয়ং বলেছেন, ওনার কাছে হত্যাকান্ডের যাবতীয় ঘটনার তথ্য আছে, তাহলে তনুর ধর্ষন ও হত্যার তথ্যও নিশ্চয় উনার কাছে আছে।  মাননীয় প্রধানমন্ত্রী তাহলে সেটা প্রকাশ করে ন্যায় বিচার করুন! বিশ বছর আগে অপহৃত হওয়া কল্পনা চাকমা হতে শুরু করে আজ ধর্ষিত হয়ে খুন হওয়া হতভাগী তনু, সেই একই রাষ্ট্রীয় দৈত্য আজ পাহাড় কিংবা সমতল সবাখানে দাঁপিয়ে বেড়াচ্ছে।

উক্ত সমাবেশে আরো উপস্থিত ছিলেন আনিস রায়হান, সমগীত সাংস্কৃতিক প্রাঙ্গণের রেবেকা নীলা, হানা শামস আহমেদ, অজল দেওয়ান, আলোড়ন খীসা, ডিসেন্সি চাকমা, নিউটন চাকমাসহ আরো বিভিন্ন সংগঠনের বাম রাজনৈতিক নেতৃবৃন্দ।  শেষে “সিএইচটি রাইটার্স এন্ড এক্টিভিষ্ট ফোরাম”র মুখপাত্র ও সঞ্চালকের দায়িত্বে থাকা জয় মারমা ভবিষ্যতে রাজপথে থাকার প্রত্যয় ব্যক্ত করে উক্ত সমাবেশের ইতি টানেন।

Advertisements


Leave a Reply

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out /  Change )

Google photo

You are commenting using your Google account. Log Out /  Change )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out /  Change )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out /  Change )

Connecting to %s

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.