CRPF এর সাথে সংঘর্ষে পর শীর্ষ নকশাল নেতৃত্বরা পালিয়ে যেতে পেরেছেন

Maoist_Annihilation line

গত সোমবার বিহারের আওরঙ্গবাদ জেলার মাওবাদী অধ্যুষিত চক্রবন্ধ জঙ্গলে শীর্ষ ৩ নকশাল নেতৃত্ব সন্দীপ যাদব, অরবিন্দজী ওরফে দেব কুমার সিং ও কুন্দান যাদব, ৫০-৬০জন অনুগামীদের সাথে সভা করার সময় মাওবাদী ও CRPF এর মধ্যে সংঘর্ষের পর অল্পের জন্যে CRPF এর কোবরা কমান্ডোদের কাছ থেকে পালিয়ে যেতে পেরেছেন।

সূত্রঃ http://timesofindia.indiatimes.com/india/Naxal-chiefs-flee-after-clash-with-CRPF-men/articleshow/53311485.cms

Advertisements

বাংলাদেশঃ পাবনায় নকশাল সদস্যকে হত্যা করা হয়েছে

বুধবার দুপুরে উপজেলার গোপালপুর হলুদগড় ব্রিজের কাছ থেকে তার লাশ উদ্ধার করা হয় বলে জানান সাঁথিয়া থানার ওসি নাসির উদ্দিন।

নিহত নূর ইসলাম (৩৪) উপজেলার শিবরামপুর নন্দীগ্রামের আব্দুল হাকিমের ছেলে।

তিনি নিষিদ্ধ ঘোষিত চরমপন্থি দল নকশালের আঞ্চলিক নেতা ছিলেন।  তার বিরুদ্ধে সাঁথিয়া থানায় হত্যাসহ ৬টি মামলা রয়েছে বলে জানান ওসি।

ওসি নাসির বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকমকে বলেন, স্থানীয়দের দেওয়া তথ্যে হলুদগড় ব্রিজের কাছ থেকে নূর ইসলামের লাশ উদ্ধার করা হয়।  প্রতিপক্ষরা তাকে কুপিয়ে ও গলা কেটে হত্যা করা হয়েছে বলে প্রাথমিক ধারণা করা হচ্ছে।

লাশ ময়নাতদন্তের জন্য পাবনা সদর হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়েছে।

সূত্রঃ http://bangla.bdnews24.com/samagrabangladesh/article1187218.bdnews


বস্তারে ভুয়া এনকাউন্টারঃ ৬ মাসে ৯০জনকে হত্যা ও ৫০জন নারীকে ধর্ষণ করেছে পুলিশ

মাওবাদীদের 'পিপলস লিবারেশন গেরিলা আর্মি-PLGA'

মাওবাদীদের ‘পিপলস লিবারেশন গেরিলা আর্মি-PLGA’

অনূদিতঃ 

সিনিয়র মাওবাদী নেতা গণেশ উইকি ছত্তিসগড়ের গোলযোগপূর্ণ বাস্তার অঞ্চলে চলতি বছরের প্রথম ছয় মাসে ভুয়া এনকাউন্টারে ৯০ জনেরও বেশি জনগণের মৃত্যুর জন্যে নিরাপত্তা বাহিনীকে অভিযুক্ত করেছেন।

ভারতের নিষিদ্ধ ঘোষিত কমিউনিস্ট পার্টির(মাওবাদী) দণ্ডকারণ্য স্পেশাল জোনাল কমিটির (DKSZC) একজন সদস্য এবং তার বস্তার উপ আঞ্চলিক ব্যুরো প্রধান ‘উইকি’ অভিযোগ করেছেন যে, সরকারের মাওবাদী বিরোধী অভিযান ‘মিশন ২০১৬’ এর নামে নিরাপত্তা বাহিনী ছত্তিসগড়ের বস্তারে ৫০ জনেরও বেশী নারীকে যৌন নির্যাতন করেছে।

“নিরাপত্তা বাহিনী ‘মিশন ২০১৬’ এর নামে গত ৬ মাসের মধ্যে ৯০ জনেরও বেশী জনগণকে হত্যা করা হয়েছে. ৫০ জনের অধিক নারীদের যৌন নির্যাতন করা হয়েছে এবং শত শত আদিবাসীদের ‘ফেরারি মাওবাদী’ অভিযোগ দেয়া হয়েছে এবং জেলে নির্যাতন করা হচ্ছে, বস্তারে মাওবাদী বিরোধী প্রচারণার নামে সাধারণ জনগণের উপর বড় মাপের হামলা করা হচ্ছে।

বিজেপি-শাসিত ছত্তিশগড়ে পুলিসি রাজত্ব চলছে এবং সাধারণ জনগণের উপর প্রকাশ্যে মানবাধিকার লঙ্ঘন করা হচ্ছে” বলে এক প্রেস বিবৃতিতে ‘উইকি’ এ খবর জানায়।

“বিজয় কুমারের [কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্র মন্ত্রকের বিশেষ নিরাপত্তা উপদেষ্টা] পরিদর্শনের পর বস্তারের মান্দেল, গন্দদ, গাম্পুর কারকা, এরামগোন্দা, পেন্দাম, এদাস্মেত্তা, পাস্নুর, টোডকা এবং পালনার মত গ্রামে নিরাপত্তা বাহিনী সাধারণ জনগণের উপর বিদেশী সেনাদের মত নৃশংস হামলা চালিয়েছে।

তিনি বলেন, ছত্তিসগড়ের জনগণ যুদ্ধাবস্থা, মুদ্রাস্ফীতি, খরা, এবং বেকারত্ব আছে কিন্তু রাজ্য সরকার শুধুমাত্র মাওবাদী বিরোধী প্রচারণা নিয়েই উদ্বিগ্ন।”

প্রতিশোধের শপথ

গত ১০ই জুলাই, বিজাপুরে আমাদের ৪জন লোককে পুলিশ হত্যা করেছে।  আমাদের লোকদের কাছ থেকে কোন গুলি চালানো হয়নি, কিন্তু পুলিশ আমাদের লোকদের উপর অনবরত গুলি বর্ষণ করে তাদের হত্যা করে এবং একে বড় ধরণের এনকাউন্টার বলে প্রচার করে বলে ‘উইকি’ দাবী করেন।

‘উইকি’ অবশ্য স্বীকার করেছেন যে এই চার জন “সক্রিয় মাওবাদী” ছিল এবং তাদের হত্যার “প্রতিশোধ” গ্রহণ করার অঙ্গীকার করেছেন।  তিনি বিজাপুরে ৩ বিজেপি নেতার খতমের দায়িত্বও স্বীকার করেছেন।

সূত্রঃ http://www.thehindu.com/todays-paper/tp-national/over-90-killed-in-6-months-in-bastar-fake-encounters-maoist-leader/article8877766.ece