নারী রাজনৈতিক বন্দিদের যৌন হেনস্থা, রিপোর্ট চায় কোর্ট

3273

ছত্তিশগড়ের প্রত্যন্ত গ্রামে মাওবাদীদের সন্ধানে অভিযানের নামে নারীদের ধর্ষণ , যৌন হেনস্থার ঘটনায় জাতীয় মানবাধিকার কমিশন কৈফিয়ত্ তলব করেছে সেখানকার সরকারের৷ এ রাজ্যেও অবস্থা বিশেষ ভিন্ন নয়৷ নারী রাজনৈতিক বন্দিদের যৌন হেনস্থা নিয়ে অভিযোগ দায়ের হয়েছে আদালতে৷ বিচারাধীন বন্দি হিসাবে আলিপুর নারী সংশোধনাগারে থাকা পারো প্যাটেল , ঠাকুরমণি হেমব্রমদের (তারা ) আদালতে হাজিরার দিন জেলে ফেরার সময়ে নগ্ন করে , এমনকি যৌনাঙ্গে আঙুল ঢুকিয়ে তল্লাশি চালানো হচ্ছে বলে নগর দায়রা আদালতের প্রধান বিচারক শুভ্রা ঘোষের কাছে অভিযোগ দায়ের হয়েছে ডিসেম্বরে৷ পারোর মামলায় পরবর্তী দিন ১১ জানুয়ারি , তারার মামলার দিন ২৪ তারিখে৷ তার মধ্যেই সংশোধনাগার কর্তৃপক্ষের কাছে রিপোর্ট তলব করেছেন বিচারক৷

এই দুই বন্দিনীর আইনজীবী শুভাশিস রায়ের অভিযোগ , ‘রাজনৈতিক বন্দিদের যে মর্যাদা ও সুযোগ -সুবিধা প্রাপ্য , তা-ও দেওয়া হচ্ছেই না৷ উল্টে নানা ভাবে হেনস্থা করা হচ্ছে৷ পড়ার জন্য পাঠানো বই পর্যন্ত আদালতের নির্দেশ সত্ত্বেও বন্দিকে দেওয়া হচ্ছে না৷ ’ মানবাধিকার সংগঠন এপিডিআর -এর সহসম্পাদক সুদীন্ত সেনের অভিযোগ , ‘চলতি মাসেই রাজনৈতিক বন্দিদের অনেককে , তাঁদের পরিজনেদের সম্পূর্ণ অন্ধকারে রেখে জেল -বদলি করা হয়েছে৷ রাজা সরখেলকে পাঠানো হয়েছে সুদূর জলপাইগুড়ির জেলে৷ সেখানে এই শীতে কম্বলটুকুও দেওয়া হচ্ছে না তাঁকে৷ রাজার সঙ্গে একই মামলায় বন্দি প্রসূন চট্টোপাধ্যায়কেও আগে জলপাইগুড়ি জেলে পাঠানো হয়েছিল৷ অথচ দু’জনেরই বাড়ি কলকাতায়৷ প্রসূনের ক্ষেত্রে হাইকোর্টের হস্তক্ষেপে তাঁকে কলকাতার জেলে ফেরানো হয়৷

তার পরেও রাজাকে পাঠানো হল সেই উত্তরবঙ্গে৷ ’ ঝাড়গ্রামের সুখশান্তি বাস্কে , সাগুন মুর্মুদেরও দূরবর্তী জেলে রাখা হয়েছে৷ এর ফলে পরিজনেদের পক্ষে বন্দিদের সঙ্গে দেখা করা দুষ্কর হয়ে পড়ছে বলে অভিযোগ মানবাধিকার সংগঠনের৷ জেল বিভাগের ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের কাছে ডেপুটেশন দিতে চলেছে এপিডিআর৷ জঙ্গলমহলে ফের ধরপাকড়ও বাড়ছে৷ আগে জামিন পাওয়া চাকাডোবার দুলাল মুর্মু-সহ তিন জনকে সম্প্রতি পুরুলিয়ার পুরোনো কেসে নতুন করে গ্রেন্তার করা হয়েছে৷ এরই মধ্যে বৃদ্ধ-অসুস্থ মায়ের সঙ্গে দেখা করার জন্য প্যারোল চেয়েছিলেন আর এক রাজবন্দি ভি ভেঙ্কটেশ্বর রেড্ডি (তেলুগু দীপক )৷ সরকারপক্ষের আপত্তিতে আলিপুর আদালত সে আবেদন মঞ্জুর না করলেও ভিডিয়ো কনফারেন্সের মাধ্যমে মায়ের সঙ্গে দীপকের কথা বলানোর ব্যবস্থা করার নির্দেশ দিয়েছিল৷ সম্প্রতি আলিপুর জেলে বাদি -বিবাদি , দু’পক্ষের আইনজীবীদের উপস্থিতিতে সেই ব্যবস্থা হয়৷ ৷

সূত্রঃ http://m.eisamay.com/city/kolkata/complain-against-police-to-harassed-and-sexualy-assult-woman-political-prisoner-/articleshow/56436387.cms

Advertisements


Leave a Reply

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out / Change )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out / Change )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out / Change )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out / Change )

Connecting to %s