২৯শে মার্চ ভারত বনধের ডাক দিয়ে বস্তারে মাওবাদীদের পোস্টার, ব্যানার

ভারত বনধের ডাক দিয়ে পোস্টার, ব্যানার সাঁটলো মাওবাদীরা ৷ গতকাল বৃহস্পতিবার সকালে পোস্টার, ব্যানারগুলি প্রথম নজরে আসে ৷ছত্তিসগড়ের বস্তার জেলাতে একটি দোকানের সামনে ওই পোস্টার, ব্যানারগুলি সাঁটানো হয়েছে৷

পোস্টার, ব্যানারগুলিতে মাওবাদীরা লিখেছে, সাধারণ মানুষের নৈতিক অধিকার থেকে রাষ্ট্র তাদের বঞ্চনা করছে ৷সাধারণ মানুষের নূন্যতম অধিকার এই কেন্দ্র কেড়ে নিয়েছে ৷ এই কারণেই আগামী ২৯ মার্চ দেশ জুড়ে বনধের কর্মসূচি নিয়েছে নেওয়া হয়েছে ৷ বনধ সফল করার জন্য দেশবাসীর কাছে আবেদন রাখা হয়েছে মাওবাদী সংগঠনের তরফে ৷ প্রশাসন যদি গায়ের জোরে বনধে বন্ধ করার চেষ্টা করে তাহলে ফল ভালো হবে না বলেও হুমকি দেওয়া হয়েছে৷

পোস্টার, ব্যানার সাঁটানোর খবর পেয়ে তড়িঘড়ি ঘটনাস্থলে পৌঁছায় পুলিশ ৷ সঙ্গে সঙ্গে খুলে ফেলা হয় সমস্ত পোস্টার, ব্যানার ৷ এই বিষয়ে বস্তার এক পুলিশ আধিকারিক জানিয়েছেন, যে এলাকায় এই পোস্টার, ব্যানারগুলি সাঁটানো হয়েছে সেটি এমনিতেই মাও-অধ্যুষিত এলাকা ৷ সেখানে মাওবাদীদের আনা গোনা রয়েছে ৷ বুধবার রাতের অন্ধকারে এই কাজ করা হয়েছে ৷ এরপরেই নিরাপত্তা আরও জোরদার করা হয়েছে বলে জানিয়েছেন ওই আধিকারিক ৷

সূত্রঃ

পেরুর মহান মাওবাদী নেতা কমরেড গনজালো’র জীবন ও স্বাস্থ্য রক্ষায় এগিয়ে আসুন!

পেরুর এক নৌ আদালত, ১৯৯২ সালে পেরুর লিমায় এক গাড়ী বোমা বিস্ফোরণের মামলায় মিথ্যা অভিযোগে অভিযুক্ত করে ও পেরুর রাষ্ট্র উৎখাতের চেষ্টায় শাইনিং পাথ এর নেতৃত্বে রাখার জন্য পেরুর কমিউনিস্ট পার্টির চেয়ারম্যান কমরেড গনজালো(৮২)কে গত ২৮শে ফেব্রুয়ারি ২য় বার যাবজ্জীবন কারাদণ্ড দিয়েছে।

এসময় আদালতের শুরুতে কমরেড গনজালো শুধুমাত্র তার চিকিৎসার জন্যে ব্যবস্থা নিতে বক্তব্য রাখেন। এক দশকের বেশি সময় ধরে তার বিরুদ্ধে চলমান বিচারের সময়েও বরাবরের মতো এবারো তিনি ধারালো ও সুউচ্চ কণ্ঠে কমিউনিজমের প্রশংসা করেন বক্তব্য রাখেন, যখন তাকে সন্ত্রাসবাদে দোষী সাব্যস্ত করা এবং যাবজ্জীবন কারাদণ্ড দেওয়া হয় ।

এসময়, গুজমানের এটর্নি আলফ্রেডো ক্রেসপো, উক্ত অভিযোগে গনজালোর জড়িত থাকার বিষয়টি অস্বীকার করেন।

অথচ, ঐ সময় কমরেড গনজালো’কে গাড়ী বোমা বিস্ফোরণের মিথ্যা অভিযোগে অভিযুক্তকারী তৎকালীন প্রেসিডেন্ট ফুজিমোরী তার স্বৈরাচারী শাসনামলে দুর্নীতি ও মানবাধিকার লঙ্ঘনের জন্য দোষী সাব্যস্ত হয়ে বর্তমানে কারাগারে রয়েছে।

(কমরেড গনজালো’র সর্বশেষ প্রাপ্ত ছবি– ২৮শে ফেব্রুয়ারি, ২০১৭ পেরুতে বিচার কার্যের সময় তোলা)