ভূমি আইনে পরিবর্তন আনার প্রতিবাদে ঝাড়খণ্ডের রেলস্টেশনে মাওবাদীদের আগুন

naxals-3

ঝাড়খণ্ড রাজ্যে ২টি ভূমি আইনে পরিবর্তন আনার প্রতিবাদে বোকারো জেলার ডুমরি বিহার স্টেশনে বৃহস্পতিবার রাতে হামলা চালায় মাওবাদীরা ৷

এসময় স্টেশন চত্বরের বেশ কিছু স্থানে মাওবাদীরা পোস্টার লাগিয়ে দেয় ৷ পোস্টারে মাওবাদীরা-  দুইটি রাষ্ট্রীয় সম্পত্তির সংশোধনীর বিরোধিতা করেছে, আর তা হল- ছোট নাগপুর টেন্যান্সি অ্যাক্ট এবং সাঁওতাল পরগণা টেন্যান্সি অ্যাক্ট, যেগুলি অকৃষি উদ্দেশ্যে কৃষি জমির ব্যবহারকে সহজ করে দেয়।

রাত সাড়ে এগারোটা নাগাদ এই হামলা হয় বলে জানা গিয়েছে।  রেলওয়ে স্টেশনের সিগন্যাল এবং একটি মালগাড়ির ইঞ্জিনে আগুন লাগিয়ে দেয় তারা ৷

সূত্রের খবর, মাওবাদীরা সংখ্যায় ছিল প্রায় ৫০ থেকে ৬০জন ৷ এর মধ্যে মহিলারাও সামিল ছিল ৷ এই ডুমরি-বিহার স্টেশনটি বরকাকান-গোমিয়া রুটে রয়েছে ৷ এই স্টেশনে মাওবাদীরা হামলা চালায় ৷

শুধু তাই নয়, মালগাড়ির চালকের কাছে থেকে ওয়াকিটকি কেড়ে নেয় তারা। এই হামলার পরে এলাকাজুড়ে তল্লাশি অভিযানে নেমেছে পুলিশ ৷ বন্ধ করে দেওয়া হয় রেল-পরিষেবাও ৷ হামলার খবর পাওয়ার পর ঘটনাস্থলে সিআরপিএফ উপস্থিত হয় বলে জানা যায় ৷

সূত্রঃ http://english.manoramaonline.com/news/nation/2017/05/26/maoists-torch-jharkhand-railway-station.html

Advertisements

ঝাড়খণ্ডে নকশালবাড়ি দিবসে শ্রমিক জমায়েত বানচাল করে দিলো প্যারামিলিটারি

naxalbari

কলকাতা প্রতিনিধিঃ ২৫মে নকশালবাড়ি শহীদ দিবস ও কৃষক অভ্যুত্থানের ৫০ বছর উপলক্ষে ঝাড়খন্ডের রাঁচি শহরের নামকুমে বিশাল শ্রমিক সমাবেশের ডাক দিয়েছিলো মজদুর সংঘর্ষ সমিতি। জমায়েতের আগাম অনুমতি নেওয়া থাকলেও ২৪ তারিখ রাতে পুলিশ জানিয়ে দেয় যে তারা এই জমায়েত করতে দেবে না। পরের দিন প্যারামিলিটারিতে ভরে যায় গোটা এলাকা। এমনকি যে সব বাস বোঝাই করে শ্রমিকরা আসছিলেন তাদেরও হুমকি এবং বাধা দান করে প্যারামিলিটারি। বিভিন্ন জেলায় রাস্তায় চেক পোস্ট বসিয়ে শ্রমিকদের আটকানো হয়। বোকারো জেলার পেতরওয়ার থানা জমায়েতে অংশগ্রহন করতে আসা শ্রমিকদের আটক করেছিলো, কিন্তু মজদুর সংঘর্ষ সমিতির পক্ষ থেকে প্রশাসনকে পাল্টা জানানো হয় যে, এই ভাবে রাস্তায় শ্রমিকদের গ্রেপ্তার করা হলে শ্রমিকরা রাস্তার যেখানেই আছেন সেখানেই গাড়ি থামিয়ে দেবেন, এই ভাবে তারা সারা ঝাড়খণ্ড রোড জ্যামের দিকে যাবেন। এরপর পুলিশ আটক শ্রমিকদের ছেড়ে দেয়।

ঝাড়খন্ডের এই জমায়েতে যোগ দিতে পশ্চিমবঙ্গের নকশালপন্থী ছাত্র সংগঠন ইউএসডিএফ সহ অন্য গণ আন্দোলনের কর্মীরা রাঁচিতে উপস্থিত হয়েছিলেন।

একদিকে মূল ধারার সংবাদ মাধ্যম নকশালবাড়ির ৫০ বছর উপলক্ষে প্রবন্ধ ছেপে জনগণের আবেগ নিয়ে ব্যবসা করছে, অন্যদিকে নকশালবাড়ি দিবসে শ্রমিক জমায়েতে আক্রমণকে ভারতের শাসক শ্রেণীর চিরাচরিত গণতন্ত্রের নামে ভন্ডামি হিসেবে উল্লেখ করেছে ইউএসডিএফ।