আন্তর্জাতিকতাবাদী মহান মাওবাদী নেতা কমরেড ‘পিয়েরে’ অমর!

Pierre-Cover-800x445

 

কমরেডস,

আমাদের কমরেড পিয়েরে মারা গেছেন। গত ২ ডিসেম্বর, শনিবারে একটি মিছিলের পূর্বমুহুর্তে তিনি সিড়ি থেকে পড়ে গিয়ে আঘাতপ্রাপ্ত হন এবং তার শারীরিক অবস্থা দ্রুত আশংকাজনক পরিস্থিতিতে পৌছে যায়। রবিবারে মেডিক্যাল টিম (চিকিৎসক দল) নিশ্চিৎ করে যে তার মস্তিষ্কের কার্যকলাপ বন্ধ রয়েছে। তাকে বাঁচিয়ে রাখার জন্য সহায়ক সকল চিকিৎসা যন্ত্রাদি শেষপর্যন্ত খুলে ফেলা হয়, ফলে ৮১ বছর বয়সে সোমবার সকালে তিনি মৃত্যুবরণ করেন।

আমাদের মর্মবেদনা অত্যন্ত গভীর এবং কমরেড পিয়েরের মৃত্যুতে পার্টি নেতৃত্বের ক্ষতিও বিশাল। তাঁর সংগ্রামের স্তর আন্তর্জাতিক পর্যায়ে বিস্তৃত থাকায় কমরেড পিয়েরের চলে যাওয়া বিশ্ব প্রলেতারীয় আন্দোলনেও একটি বিশাল ক্ষতি।

কমরেড পিয়েরের জীবন একজন প্রকৃত বিপ্লবীর জীবন যা জনগনের সেবায় নিয়োজিত ছিল। ৬৮ সালের মে মাসে বিপ্লবী সংগ্রামে তিনি যুক্ত হয়েছিলেন। একজন প্রলেতারীয় শ্রেণীর মানুষ হিসাবে, তিনি খুব দ্রুতই ফ্রান্সের বিপ্লবী দল “গাউচে প্রলেতারিয়েনি” দলে যুক্ত হয়ে যান। বিপ্লবে তার দায়বদ্ধতা ছিল বহু দিক বিস্তৃত, সুনির্দিষ্ট লক্ষ্যাভিমূখী, এবং সামগ্রিক।

এটা হোক কোন কোম্পানির বিরুদ্ধে ধর্মঘটের ডাকে যোগ দেয়া, বিদেশে বিপদাপন্ন নারীর গর্ভপাতের অধিকার সংরক্ষনে তার পাশে থাকা, শ্রমিকদের কাজের জন্য অভিবাসন পরিবর্তনের লড়াইতে যোগ দেয়া, ব্রেটন চাষীদের দুগ্ধ-যুদ্ধে তাদের পক্ষে পাশে দাঁড়ানো, অথবা সাধারণ দৈনন্দিন কাজ হিসাবে প্রতিবেশীদের সাথে তাদের কোন সমস্যায় সাক্ষাত করা — তিনি সবখানেই উপস্থিত, অক্লান্তভাবে।

এভাবেই তিনি নিজেকে একজন বিপ্লবী কর্মী, কমিউনিস্ট কর্মী, মাওবাদী কর্মী হিসাবে গড়ে তুলেছিলেন — সব সময় গণ আন্দোলনগুলির মধ্যমনি হিসাবে, জলের সাঁতার কেটে বেড়ানো মাছের মতো জনগনের মধ্যে তিনি সাঁতড়ে বেড়াতেন।

জীবনব্যাপী সংগ্রামের মাধ্যমে তিনি নিজেকে খাঁটি করে তুলেছেন, তার চারপাশে যারা সংগ্রামে যুক্ত হয়েছিল তাদের অভিজ্ঞতা সঞ্চয় করে শ্রেণী সংগ্রামের আগুনে দগ্ধ হয়ে, এবং আমাদেরকে কর্মপ্রয়োগের মাধ্যমে দেখিয়েছে কিভাবে শক্তির সাথে বিপ্লবকে নির্মান করতে হয়।

আমাদের সহযোদ্ধা পিয়েরে স্মরিত হবেন সকল সংগ্রামের সহযোদ্ধা হিসাবে, একজন চিরকালের স্মরণীয় সহযোদ্ধা হিসাবে, একজন অক্লান্ত সহযোদ্ধা হিসাবে যিনি কখনই নির্যাতিত এবং নিপীড়িত মানুষের শিবির ত্যাগ করেননি।

তার চলে যাবার আলোচনা শুরু হতে না হতেই আমরা অসংখ্য প্রশংসাপত্র, সান্ত্বনাবাণী, এবং বিবৃতি পেয়েছি যেগুলি বেদনায় পরিপূর্ণ।

হ্যা কমরেডস, বিপ্লবী শিবির একজন অসাধারণ সহযোদ্ধাকে হারিয়েছে। কিন্তু তার গৌরবাম্বিত উত্তর দায়িত্বের জন্য আমরা ধন্যবাদ জানাই যা তিনি পরবর্তী প্রজন্মের কাছে হস্তগত করে যেতে পেরেছেন, আমরা আশা, শক্তি, দৃঢ় প্রত্যয় লাভ করেছি এবং লাভ করেছি একজন প্রকৃত মার্কসবাদী মাওবাদী নেতৃত্বের উদাহরণ : বিনাপ্রশ্নে কিছুই ছেড়ে না দেয়া, সর্বদা জনগন ও শ্রমিক শ্রেণীর পক্ষে থাকা, মাছ যেমন জলে মিশে থাকে তেমনি জনগনের সাথে মিশে থাকা, সব সময় প্রয়োজনে চ্যালেঞ্জ করতে হয় কিভাবে সেই শিক্ষার দ্বারা নিজেকে সমৃদ্ধ করতে থাকা যায়, নীতিতে দৃঢ় ও অবিচল থাকা। কমরেড পিয়েরের জীবন সত্যিকার অর্থেই বিশ্ব প্রলেতারীয় আন্দোলনে সেবায় নিযুক্ত ছিল।

আমাদের কমরেড পিয়েরে আন্তর্জাতিক প্রলেতারীয় সংগ্রামের মধ্যে বেচে থাকবেন, তিনি অমর!

আমাদের কমরেড পিয়েরে একজন মাওবাদী নেতৃত্ব যিনি আমাদের শ্রেণীসংগ্রামের ইতিহাসে অম্লান রইবেন!

তিনি তার আদর্শে বেচে আছেন, বর্তমান আছেন !

বিশ্ব প্রলেতারীয় বিপ্লব দীর্ঘজীবি হোক!

একটি স্মৃতিসভা শীঘ্রই অনুষ্ঠিত হবে, আমরা খুব অল্প সময়ের মধ্যেই বিস্তারিত বিবরণ প্রকাশ করা হবে।

সূত্রঃ  redspark.nu

 

Advertisements

সিপিআই(মাওবাদী)’র কেন্দ্রীয় কমিটি সকল ফ্রন্টে নারীদের অন্তর্ভুক্ত করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে

608271276-Maoist_6

নিষিদ্ধ কমিউনিস্ট দল সিপিআই(মাওবাদী)’র কেন্দ্রীয় কমিটি পার্টির ১৭তম বার্ষিকী পালন উপলক্ষ্যে সারা দেশ থেকে ব্যাপক সংখ্যায় নারী ক্যাডারদের দলে নিয়োজিত করার জন্যে পার্টির আঞ্চলিক কমিটির সদস্যগণকে নির্দেশ দিয়েছেন।

সংগঠনটি, মাওবাদী আধিপত্য রয়েছে এমন রাজ্যের সীমান্তবর্তী গ্রামগুলিতে বসবাসরত নারীদেরকে এই সংগঠনে যোগদানের আমন্ত্রণ জানিয়ে ব্যাপক মাত্রায় পোস্টার এবং ব্যানার লাগিয়েছে।

এর মধ্যে একটি পোষ্টারে সিপিআই(মাওবাদী) বলেছে, ” পিতৃতন্ত্র ব্যবস্থার বিরুদ্ধে প্রতিবাদ উত্থাপন করুন, সব মঞ্চে নারীর সম্পৃক্ততা বাড়িয়ে তুলুন।”

এ নিয়ে গোয়েন্দা বিভাগ সূত্র বলছে, ব্যাপক মাত্রায় পুরুষ ক্যাডার ও নেতৃত্ব হারানোর কারণে মাওবাদীরা এই ধরণের পদক্ষেপ নিয়েছে।  

মাওবাদীরা ২-৮ই ডিসেম্বর পর্যন্ত পিএলজিএ সপ্তাহ পালন করছে।

উল্লেখ্য যে, গত ৪৮ ঘণ্টার মধ্যে নিরাপত্তা বাহিনী ৫ জন নারী ক্যাডার সহ কমপক্ষে ৮ জন মাওবাদী কর্মীকে ভুয়া এনকাউন্টারে হত্যা করেছে এবং সারা দেশে আটক হওয়া ৫ জন মাওবাদীর মধ্যে ৩ জন নারী কর্মী রয়েছে।

সূত্রঃ http://www.newsnation.in/india-news/cpi-maoist-central-committee-decides-to-involve-women-in-all-fronts-article-187743.html


কলকাতাঃ বিভিন্ন সংগঠনের যৌথ উদ্যোগে সাম্প্রদায়িকতা ও ফ্যাসিবাদ বিরোধী মিছিল সমাবেশ অনুষ্ঠিত

24204824_1646596772122281_712864685_n

আজ থে‌কে ২৫ বছর আগে ১৯৯২’র ৬ই ডি‌সেম্বর ঐতিহা‌সিক বাব‌রি মস‌জি‌দের সৌধ ভে‌ঙে‌ছিল আরএসএস-‌বি‌জে‌পি-‌ভিএইচ‌পির সংঘ প‌রিবা‌রের উগ্র হিন্দুত্ববাদী গেরুয়া বা‌হিনী। ইতিহা‌সের সেই কলঙ্কজনক দিন‌কে স্মৃ‌তি‌তে রে‌খে রাষ্ট্রীয় মদতপুষ্ট উগ্র হিন্দু সাম্প্রদা‌য়িকতা ও আগ্রাসী গেরুয়া ফ্যা‌সিবা‌দের বিরু‌দ্ধে ৬ই ডি‌সেম্বর, ২০১৭ মধ্য কলকাতার শিয়ালদা থে‌কে উত্তর কলকাতার বাগবাজার পর্যন্ত মি‌ছি‌লে পা মেলা‌লো বি‌ভিন্ন প্রগ‌তিশীল ছাত্র-যুব সংগঠন, সংগ্রামী শ্রমিক ইউনিয়ন, কৃষক ও ক্ষেতমজুর সংগঠন, গণ‌বিজ্ঞান সংগঠন, ধর্মীয় মৌলবাদ ও ফ্যা‌সিবাদ বি‌রোধী সংগঠ‌ন, অধিকার রক্ষার সংগঠন, গণসাংস্কৃ‌তিক সংগঠন ও নাগ‌রিক সংগঠনগু‌লোর যৌথ উদ্যোগ। দুপু‌রে শিয়ালদা স্টেশন চত্ত্বর থে‌কে শুরু হওয়া মি‌ছিলে দেশবেচা পুঁজির দালাল ফ্যা‌সিবাদী আরএসএস-‌বি‌জে‌পির গেরুয়াবা‌হিনীর বিরু‌দ্ধে স্লোগান তুল‌তে তুল‌তে শিয়ালদা ফ্লাইওভার, আচার্য প্রফুল্লচন্দ্র রোড, রাজাবাজার, কেশব সেন স্ট্রীট, ক‌লেজ স্ট্রীট, হেদুয়া, হা‌তিবাগান, শ্যামবাজার মোড় হ‌য়ে পৌঁছয় বাগবাজা‌রে বাটার মো‌ড়ে, সেখা‌নে রাত পর্যন্ত চ‌লে সাংস্কৃ‌তিক জমা‌য়েত ও সভা।  বাগবাজা‌রের সভায় সংগীত প‌রি‌বেশন ক‌রেন মৌসুমী ভৌ‌মিক, নী‌তিশ রায়, অগ্নিবীণা ও পি‌ডিএসএ‌ফের সাথীরা, নাটক প‌রি‌বেশন ক‌রেন পিপলস্ ব্রি‌গেড, গণসাংস্কৃ‌তিক সংস্থা ‘কাণ্ডীর’-এর সাথীরা, বক্তব্য রা‌খেন অধিকার আন্দোলনের সম্পাদক এপি‌ডিআর-এর সাধারণ সম্পাদক ধীরাজ সেনগুপ্ত, সমাজকর্মী নব দত্ত প্রমুখ।

24898848_1646597532122205_2127536509_n24824434_1646598072122151_1062993665_n