আন্তর্জাতিকতাবাদী মহান মাওবাদী নেতা কমরেড ‘পিয়েরে’ অমর!

Pierre-Cover-800x445

 

কমরেডস,

আমাদের কমরেড পিয়েরে মারা গেছেন। গত ২ ডিসেম্বর, শনিবারে একটি মিছিলের পূর্বমুহুর্তে তিনি সিড়ি থেকে পড়ে গিয়ে আঘাতপ্রাপ্ত হন এবং তার শারীরিক অবস্থা দ্রুত আশংকাজনক পরিস্থিতিতে পৌছে যায়। রবিবারে মেডিক্যাল টিম (চিকিৎসক দল) নিশ্চিৎ করে যে তার মস্তিষ্কের কার্যকলাপ বন্ধ রয়েছে। তাকে বাঁচিয়ে রাখার জন্য সহায়ক সকল চিকিৎসা যন্ত্রাদি শেষপর্যন্ত খুলে ফেলা হয়, ফলে ৮১ বছর বয়সে সোমবার সকালে তিনি মৃত্যুবরণ করেন।

আমাদের মর্মবেদনা অত্যন্ত গভীর এবং কমরেড পিয়েরের মৃত্যুতে পার্টি নেতৃত্বের ক্ষতিও বিশাল। তাঁর সংগ্রামের স্তর আন্তর্জাতিক পর্যায়ে বিস্তৃত থাকায় কমরেড পিয়েরের চলে যাওয়া বিশ্ব প্রলেতারীয় আন্দোলনেও একটি বিশাল ক্ষতি।

কমরেড পিয়েরের জীবন একজন প্রকৃত বিপ্লবীর জীবন যা জনগনের সেবায় নিয়োজিত ছিল। ৬৮ সালের মে মাসে বিপ্লবী সংগ্রামে তিনি যুক্ত হয়েছিলেন। একজন প্রলেতারীয় শ্রেণীর মানুষ হিসাবে, তিনি খুব দ্রুতই ফ্রান্সের বিপ্লবী দল “গাউচে প্রলেতারিয়েনি” দলে যুক্ত হয়ে যান। বিপ্লবে তার দায়বদ্ধতা ছিল বহু দিক বিস্তৃত, সুনির্দিষ্ট লক্ষ্যাভিমূখী, এবং সামগ্রিক।

এটা হোক কোন কোম্পানির বিরুদ্ধে ধর্মঘটের ডাকে যোগ দেয়া, বিদেশে বিপদাপন্ন নারীর গর্ভপাতের অধিকার সংরক্ষনে তার পাশে থাকা, শ্রমিকদের কাজের জন্য অভিবাসন পরিবর্তনের লড়াইতে যোগ দেয়া, ব্রেটন চাষীদের দুগ্ধ-যুদ্ধে তাদের পক্ষে পাশে দাঁড়ানো, অথবা সাধারণ দৈনন্দিন কাজ হিসাবে প্রতিবেশীদের সাথে তাদের কোন সমস্যায় সাক্ষাত করা — তিনি সবখানেই উপস্থিত, অক্লান্তভাবে।

এভাবেই তিনি নিজেকে একজন বিপ্লবী কর্মী, কমিউনিস্ট কর্মী, মাওবাদী কর্মী হিসাবে গড়ে তুলেছিলেন — সব সময় গণ আন্দোলনগুলির মধ্যমনি হিসাবে, জলের সাঁতার কেটে বেড়ানো মাছের মতো জনগনের মধ্যে তিনি সাঁতড়ে বেড়াতেন।

জীবনব্যাপী সংগ্রামের মাধ্যমে তিনি নিজেকে খাঁটি করে তুলেছেন, তার চারপাশে যারা সংগ্রামে যুক্ত হয়েছিল তাদের অভিজ্ঞতা সঞ্চয় করে শ্রেণী সংগ্রামের আগুনে দগ্ধ হয়ে, এবং আমাদেরকে কর্মপ্রয়োগের মাধ্যমে দেখিয়েছে কিভাবে শক্তির সাথে বিপ্লবকে নির্মান করতে হয়।

আমাদের সহযোদ্ধা পিয়েরে স্মরিত হবেন সকল সংগ্রামের সহযোদ্ধা হিসাবে, একজন চিরকালের স্মরণীয় সহযোদ্ধা হিসাবে, একজন অক্লান্ত সহযোদ্ধা হিসাবে যিনি কখনই নির্যাতিত এবং নিপীড়িত মানুষের শিবির ত্যাগ করেননি।

তার চলে যাবার আলোচনা শুরু হতে না হতেই আমরা অসংখ্য প্রশংসাপত্র, সান্ত্বনাবাণী, এবং বিবৃতি পেয়েছি যেগুলি বেদনায় পরিপূর্ণ।

হ্যা কমরেডস, বিপ্লবী শিবির একজন অসাধারণ সহযোদ্ধাকে হারিয়েছে। কিন্তু তার গৌরবাম্বিত উত্তর দায়িত্বের জন্য আমরা ধন্যবাদ জানাই যা তিনি পরবর্তী প্রজন্মের কাছে হস্তগত করে যেতে পেরেছেন, আমরা আশা, শক্তি, দৃঢ় প্রত্যয় লাভ করেছি এবং লাভ করেছি একজন প্রকৃত মার্কসবাদী মাওবাদী নেতৃত্বের উদাহরণ : বিনাপ্রশ্নে কিছুই ছেড়ে না দেয়া, সর্বদা জনগন ও শ্রমিক শ্রেণীর পক্ষে থাকা, মাছ যেমন জলে মিশে থাকে তেমনি জনগনের সাথে মিশে থাকা, সব সময় প্রয়োজনে চ্যালেঞ্জ করতে হয় কিভাবে সেই শিক্ষার দ্বারা নিজেকে সমৃদ্ধ করতে থাকা যায়, নীতিতে দৃঢ় ও অবিচল থাকা। কমরেড পিয়েরের জীবন সত্যিকার অর্থেই বিশ্ব প্রলেতারীয় আন্দোলনে সেবায় নিযুক্ত ছিল।

আমাদের কমরেড পিয়েরে আন্তর্জাতিক প্রলেতারীয় সংগ্রামের মধ্যে বেচে থাকবেন, তিনি অমর!

আমাদের কমরেড পিয়েরে একজন মাওবাদী নেতৃত্ব যিনি আমাদের শ্রেণীসংগ্রামের ইতিহাসে অম্লান রইবেন!

তিনি তার আদর্শে বেচে আছেন, বর্তমান আছেন !

বিশ্ব প্রলেতারীয় বিপ্লব দীর্ঘজীবি হোক!

একটি স্মৃতিসভা শীঘ্রই অনুষ্ঠিত হবে, আমরা খুব অল্প সময়ের মধ্যেই বিস্তারিত বিবরণ প্রকাশ করা হবে।

সূত্রঃ  redspark.nu

 

Advertisements


Leave a Reply

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out /  Change )

Google photo

You are commenting using your Google account. Log Out /  Change )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out /  Change )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out /  Change )

Connecting to %s

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.