বাংলাদেশঃ মাওপন্থিদের উদ্যোগে ২রা জানুয়ারী ২০১৮ ‘জাতীয় শহীদ দিবস’পালন করা হবে

২রা জানুয়ারী ২০১৮, মহান মাওবাদী নেতা শহীদ কমরেড সিরাজ সিকদার-এর ৪৩তম মৃত্যুবার্ষিকীতে কমরেড মনিরুজ্জামান তারা, মোফাখখার চৌধুরী, মিজানুর রহমান টুটু, এরাদ আলী, তাহের আজমী, রাবেয়া আক্তার বেলীসহ সকল শহীদ বিপ্লবীদের স্মরণে “জাতীয় শহীদ দিবস” পালন করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে, বাংলাদেশের মাওপন্থি সংগঠন ‘শহীদ বিপ্লবী ও দেশপ্রমিক স্মৃতি সংসদ’। এই কর্মসূচী উপলক্ষ্যে বের করা একটি পোস্টারে ‘আওয়ামী দুঃশাসনের বিরুদ্ধে গণপ্রতিরোধ গড়ে তুলে সাম্রাজ্যবাদ, সম্প্রসারণবাদ ও দালাল শাসক শ্রেণীকে উচ্ছেদ করে সমাজতন্ত্র-কমিউনিজমের লক্ষ্যে নয়াগণতান্ত্রিক বিপ্লব বেগবান করার আহবান’ জানিয়েছে সংগঠনটি।

জাতীয় শহীদ দিবসের কর্মসূচীঃ

তারিখঃ ২রা জানুয়ারী ২০১৮
প্রভাতফেরী ও পুস্পস্তবক অর্পণ:  সকাল ৮টায়(পুরনো শ্যামলী হলের সামনে), ঢাকা

আলোচনা সভাঃ বিকাল ৩:০০টায়, টিএসসি সড়ক দ্বীপ, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়

25498384_1641427929229611_8631629440277297330_n

 


জেরুজালেম নিয়ে ষড়যন্ত্র রুখে দেব- ফিলিস্তিনের মার্কসবাদী গেরিলা দল PFLP

image-57527

জেরুজালেমকে ইসরায়েলের রাজধানীর স্বীকৃতির প্রতিবাদে গাজার রাস্তায় তুমুল বিক্ষোভ করছে ফিলিস্তিনিরা।

গত ১০ই ডিসেম্বর রবিবার, জেরুজালেম নিয়ে চলমান ষড়যন্ত্র রুখে দেবার প্রত্যয়ে এক র‍্যালি বের করে ফিলিস্তিনের মার্কসবাদী-লেনিনবাদী বিপ্লবী দল পপুলার ফ্রন্ট ফর দ্য লিবারেশান অব প্যালেস্টাইন (পিএফএলপি)।

এদিন বিপ্লবী দলটির নেতৃত্বে ফিলিস্তিনি জনগণ আমেরিকা ও ইসরায়েলের পতাকার পাশাপাশি মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প প্রতিকৃতিতে আগুন ধরিয়ে দেয়। এছাড়া সৌদি বাদশা সালমান বিন আব্দুল আজিজ ও তার পুত্র ক্রাউন প্রিন্স মোহাম্মদ বিন সালমানের ছবি ভেঙে তছনছ করে ক্ষুব্ধ ফিলিস্তিনিরা।

পিএফএলপি নেতা জামিল মাজহার বলেন, জেরুজালেম আল-কুদস ফিলিস্তিনের চিরস্থায়ী রাজধানী। এর এক ইঞ্চি পরিমাণ পরাজয়ও আমরা মেনে নেবো না!

বিশেষ করে আমেরিকা ও ইসরায়েলের দোসর এবং শক্তিশালী মিত্র হিসেবে তিনি সৌদি আরবের কড়া সমালোচনা করেন। এ সংক্রান্ত প্ল্যাকার্ডও দেখা যায় তাদের কর্মীদের হাতে। এতে লেখা ছিলো ‘ছিঃ ছিঃ আল-সৌদ’!

সূত্র: এএফপি, প্রেস টিভি