চারু মজুমদারের রচনা সংকলন: যে সব কমরেড গ্রামে কাজ করছেন

500x350_0718bd934ac49f1e112b30cd4cfd4285_charu_majumder

যে সব কমরেড গ্রামে কাজ করছেন

তাঁদের প্রতি

চেয়ারম্যান আমাদের শ্রেণীবিশ্লেষণ করতে বলেছেন। আমাদের কমরেডরা যাঁরা গ্রামে যাচ্ছেন তাঁরাও নিশ্চয়ই শ্রেণী বিশ্লেষণ করছেন। কিন্তু ত্রুটি যেটা হচ্ছে তা হল এই যে, শ্রেণী বিশ্লেষণ করছেন তাঁরা নিজেরা এবং মনে মনে। ফলে কৃষককর্মীরা শ্রেণী বিশ্লেষণ শিখছেন না এবং তার চেয়েও বড় কথা বিপ্লবী শ্রেণীগুলি তাদের নিজেদের দায়িত্ব সম্বন্ধে সচেতন হচ্ছে না। কাজেই কৃষক-কর্মীদের বৈঠকে প্রথমেই আমাদের কমরেডদের দায়িত্ব হচ্ছে এক একজন কর্মীর শ্রেণীবিচার করতে হবে চেয়ারম্যানের কৃষকদের শ্রেণী বিশ্লেষণের ভিত্তিতে এবং কৃষক কর্মীদের মতামত নিয়ে। এ কাজটি করা হলে তবেই আমাদের সংগঠক গণলাইন (mass line) পরিষ্কারভাবে তুলে ধরবেন এবং দরিদ্র ও ভূমিহীন কৃষককে বোঝাবেন যে তাদের পক্ষে বিপ্লব যত জরুরী অন্যদের পক্ষে তত জরুরী নয় এবং সেই জন্যই দরিদ্র ও ভূমিহীন কৃষককে বেশী করে দায়িত্ব নিতে হবে বিপ্লবকে সফল করার জন্য এবং তার পরই কাজের ভাগ-বাঁটোয়ারা করতে হবে। এবং পরবর্তী মিটিং-এ কাজের হিসাব-নিকাশ প্রথমে নিতে হবে এবং বারবার সচেতন করে তুলতে হবে এই দরিদ্র ও ভূমিহীন কৃষককে যাতে তারা কাজের বেশী বেশী দায়িত্ব নিতে পারেন। দুই তিন মাস পর পর কাজের ভিত্তিতে আবায় বিশ্লেষণ করতে হবে। সে শ্রেণী বিশ্লেষণ হবে তিনটি ভিত্তিতে: (১) শ্রেণীভিত্তি; (২) কাজের আগ্রহ; (৩) লড়াইয়ের আগ্রহ। এই চেক আপ (Check up) এর মধ্যে দিয়েই সঠিক শ্রেণী বিচার হবে। কারণ প্রথম শ্রেণী বিশ্লেষণের সময় কৃষককর্মীরা অনেক মধ্যকৃষককে দরিদ্র কৃষকের শ্রেণীতে ফেলবেন। এই তিন নীতির ভিত্তিতে পুন:বিবেচনার সময়ই সেই ভুল বিশ্লেষণ ধরা পরবে। এ ভাবে কৃষক সংগঠকরা কাজ শুরু করলে সাধারণ কৃষককর্মীরা শ্রেণীবিশ্লেষণ করতে শিকবেন; শুধু তাই নয়, বিপ্লবী শ্রেণীগুলি তাঁদের দায়িত্ব সম্বন্ধেও সচেতন হবেন।

এভাবে কাজকে সংগঠিত করতে পারলে তবেই সমস্ত শ্রেণীকে সজাগ ও সচেতন করে তোলা যাবে এবং বিপ্লবী দায়িত্ব পালন করানো যাবে। এই তিন নীতির চেক-আপ (Check up) কৃষক জনতার মধ্যে প্রাথমিক শুদ্ধি অভিযানের (ractification campaign) কাজ করবে এবং সংশোধনবাদের বিরুদ্ধে সংগ্রাম নির্দিষ্ট রূপ নেবে। এবং আমরা কৃষক নেতৃত্ব গড়ে ভুলতে পারবো। মধ্যবিত্ত বুদ্ধিজীবী কমরেডের ইচ্ছা বা অনিচ্ছার উপর কৃষক আন্দোলন নির্ভরশীল থাকবে না এবং বুদ্ধিজীবী কমরেডটির একাত্ম হওয়া (integration) অনেক ত্বরান্বিত হবে। এবং যাঁরা একাত্ম হতে পারবেন না, তাঁরা সংগ্রামের পক্ষে বাধা হয়ে দাঁড়াতে পারবেন না। এই যুগে মধ্যবিত্ত বুদ্ধিজীবী কর্মীর আমাদের খুবই দরকার, কিন্তু এটাও আমাদের খেয়াল রাখতে হবে যে, সকলেই শেষ পর্যন্ত বিপ্লবী থাকবে না, বরং এ সম্ভাবনাই বেশী যে বেশীর ভাগ বুদ্ধিজীবী ক্যাডর পরবর্তী জমানায় অবিপ্লবী, এমন কি প্রতিবিপ্লবী হয়ে যাবে। এই সম্ভাবনাকে কখনোই ভুলে গেলে চলবে না। কাজেই এইসব বুদ্ধিজীবী ক্যাডাররা যদি শ্রেণী বিশ্লেষণের এই কাজ এবং চেক-আপ (Check up) একবাও করে যান, তাহলে এলাকা ঐ বুদ্ধিজীবী ক্যাডারের উপর নির্ভরশীল থাকবে না। অতএব, প্রত্যেকটি বুদ্ধিজীবী ক্যাডার তিনি কৃষকের উপর নির্ভরশীল থাকবে না। অতএব, প্রত্যেকটি বুদ্ধিজীবী ক্যাডার তিনি কৃষকের সহায়তায় যে শ্রেণীবিশ্লেষণ করবেন তার নোট রাখুন এবং ঐ নোট পাঠান। এই রিপোর্ট গুলো তদন্ত রিপোর্ট (investigation) হিসাবে সতর্কতার সঙ্গে ‘দেশব্রতীতে ছাপানো চলবে এবং সেগুলো অন্যান্য অঞ্চলের কমরেডদের সাহায্য করবে।

সংগ্রাম বিভিন্ন অঞ্চলে শুরু হচ্ছে, এখন আমাদের সবচেয়ে জোর দিতে হবে বিপ্লবী ক্যাডার তৈরীর কাজে। এ কাজ এখন সবচেয়ে জরুরী এবং এই কাজে আমাদের সমস্ত শক্তি প্রয়োগ করতে হবে। বিরাট সম্ভাবনা, বিরাট জয় ভারতবর্ষের মানুষের আয়ত্তের মধ্যে আসছে। কর্মীদের মন থেকে পরাজিতের (defeatist) চিন্তাধারা ঝেড়ে ফেলতে হবে। অর্থাৎ, চেয়ারম্যানের ভাষায়, “আমাদের কর্মীদের মন সর্বপ্রকারের নিস্ফল চিন্তা থেকে মুক্ত করতে হবে। শত্রুর শক্তিকে বড় করে দেখে এবং জনগণের শক্তিকে ছোট করে দেখেÑএমন সমস্ত মতই ভুল।”

আমাদের আজকের দিনের আওয়াজ, চেয়ারম্যানের ভাষায়: দৃঢ় থাক, কোনো ত্যাগকেই ভয় কোরো না এবং যুদ্ধে জেতার জন্য সমস্ত বাধা উত্তীর্ণ হও।

দেশব্রতী, ২৬ শে ডিসেম্বর, ১৯৬৮

Advertisements


Leave a Reply

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out /  Change )

Google photo

You are commenting using your Google account. Log Out /  Change )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out /  Change )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out /  Change )

Connecting to %s

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.