ভারতের অনেক জেলায় ছড়িয়ে পড়েছে মাওবাদীরাঃ গোয়েন্দা রিপোর্ট

Naxal-800x445

Times of India এর রিপোর্ট জানাচ্ছে, সিপিআই(মাওবাদী) -এর পশ্চিমঘাটের বিশেষ জোনাল কমিটি (WGSZC) রাজ্যের পাঁচ জেলায় তার সশস্ত্র শাখা পিপলস লিবারেশন গেরিলা আর্মি (পিএলজিএ) এর শক্তি বাড়িয়েছে বলে জানিয়েছে, রাজ্য পুলিশের নক্সাল বিরোধী স্কোয়াডের গোয়েন্দা বিভাগের একটি রিপোর্ট।

সরকারের কাছে উপস্থাপন করা প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, দুই বছর আগে নিলাম্বুরের বনভূমিতে এনকাউন্টারে দলের ঊর্ধ্বতন নেতাদের মৃত্যুর পর এই অঞ্চলগুলিতে পিএলজিএ সদস্যের সংখ্যা বেড়েছে। অগাস্টের শেষ সপ্তাহে ওয়ানাদ-কোজিকোডের বনভূমিতে অনুষ্ঠিত একটি শহীদ স্মৃতিসৌধ অনুষ্ঠানে প্রায়  ৪৫ জন পিএলজিএ সদস্য উপস্থিত ছিলেন।

বৈঠকে দলটির কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য ও দণ্ডকারণ্য বিশেষ জোন কমিটির সদস্যগণ (ডিস্কজিসি) উপস্থিত ছিলেন, অনুষ্ঠানে কানুর, কোজিকোড, পাল্ককাদ, ওয়ায়ানাদ ও মালাপ্পুরমে পাঁচটি শাখা কমিটিকে শক্তিশালী করার সিদ্ধান্ত নেইয়া হয়। গত সপ্তাহে নীলাম্বুরের বনভূমিতে মাওবাদী নেতার দানিশ, গণেশ ও প্রশান্তের উপস্থিতি নিশ্চিত করেছে গোয়েন্দা স্কোয়াড।

গোয়েন্দা বিভাগ থেকে আশা করা হয়েছিল যে, ২০১৬ সালের ২৪ শে নভেম্বর নিলম্বুরের পুলিশের সাথে কথিত সংঘর্ষে কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য কুপ্পু দেবরাজ ও তার সহযোগী অজিথাকে মৃত্যুর ঘটনায় এই অঞ্চলে নকশাল বাহিনীর কর্মকান্ডে একটি বড় বাধা হতে পারে। তবে সর্বশেষ রিপোর্টে উল্লেখ করা হয়েছে যে, কেরলায় পিএলজিএ সদস্যদের সংখ্যা ২৫-২৮ থেকে ৪৫ পর্যন্ত বেড়েছে, যাদের বেশিরভাগই অপরিচিত, এখনো তাদের সনাক্ত করা যায়নি। কেরালা, তামিলনাড়ু এবং কর্ণাটকের ত্রি-জংশনের কার্যক্রমের পরিধি বাড়ানোর লক্ষ্যে উত্তর ভারতীয় রাজ্যগুলির ক্যাডাররা সম্প্রতি এই গ্রুপে যোগদান করেছে।

নকশাল-বিরোধী গোয়েন্দা স্কোয়াডের সূত্রে জানা যায়, কেরালা, কর্ণাটক ও তামিলনাডুর কর্মীরা আগেই এই অঞ্চলের গোষ্ঠীর জন্য কাজ করেন, কিন্তু অন্ধ্রপ্রদেশ, ছত্তিশগড় ও ঝাড়খন্ডের কর্মীদের কেরালার বনাঞ্চলে উপস্থিতি নিরাপত্তা বাহিনীর জন্য একটি প্রধান উদ্বেগের কারণ হয়ে দাঁড়িয়েছে।

এদিকে, প্রান্তিক কোজিকোডের বিভিন্ন অংশে সিপিআই(মাওবাদী) নামে পোস্টারগুলিতে সাম্প্রতিক বন্যার বিপর্যয়ের জন্য রাজ্য সরকারকে দায়ী করা হয়েছে। কাবানী এলাকার কমিটির নামে একটি পোস্টারেও অভিযোগ করা হয় যে, সরকার, ভারী বৃষ্টি এবং বন্যার উপর সঠিক সতর্কবার্তা পাওয়ার পরেও নিরবিচ্ছিন্ন ভাবে জনগণকে নিরাপদে স্থানে সরিয়ে নেয়ার সঠিক পদক্ষেপ নিতে ব্যর্থ হয়েছে।



Leave a Reply

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out /  Change )

Google photo

You are commenting using your Google account. Log Out /  Change )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out /  Change )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out /  Change )

Connecting to %s

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.