ঝাড়খণ্ডে মাওবাদী হামলায় ৪ পুলিশ নিহত

ভারতের পূর্বাঞ্চলীয় রাজ্য ঝাড়খণ্ডে নির্বাচনি প্রচারণা চলাকালে লাতেহার শহরে ভয়াবহ মাওবাদী হামলার ঘটনা ঘটেছে। এতে শেষ খবর পাওয়া পর্যন্ত এক অফিসারসহ অন্তত চার পুলিশ কর্মকর্তার প্রাণহানি হয়েছে। তাছাড়া আহত হয়েছে বাহিনীর আরও বেশকিছু সদস্য।

কর্তৃপক্ষের বরাতে গণমাধ্যম ‘ইন্ডিয়া টুডে’ জানায়, শুক্রবার (২২ নভেম্বর) গভীর রাতে স্থানীয় থানার পাশেই মর্মান্তিক এই হামলাটি চালানো হয়। মাওবাদী স্কোয়াড টহলরত পুলিশের গাড়ি লক্ষ্য করে অতর্কিতভাবে গুলি বর্ষণ করলে এ হতাহতের ঘটনা ঘটে। এ সময় মাওবাদীরা অন্তত ৭০-৮০ রাউন্ড গুলি চালায়।

সংশ্লিষ্টদের মতে, গত বৃহস্পতিবার (২১ নভেম্বর) ঝাড়খণ্ড বিধানসভা নির্বাচনকে কেন্দ্র করে এই লাতেহার শহরেই প্রথম জনসভা করেছিলেন বিজেপি সভাপতি ও কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ।

ঐ জনসভায় তিনি বলেছিলেন, ‘বিজেপির আমলেই মাওবাদীদের আগ্রাসন থেকে মুক্তি পেতে যাচ্ছে ঝাড়খণ্ড। মুখ্যমন্ত্রী রঘুবর দাসের আমলেই এটা বাস্তবায়ন সম্ভব।’  তার এই জনসভার একদিনের মাথায় ভয়াবহ মাও হামলা হলো লাতেহার।

এ দিকে রাজ্য পুলিশের এক কর্মকর্তা জানান, ঘটনার দিন রাতে পুলিশ একটি ভ্যান চান্দোয়া থানার পাশে টহল দিচ্ছিল। তখনই মাওবাদীরা তাদের চারদিক থেকে ঘিরে একের পর এক গুলি চালাতে শুরু করে। সশস্ত্র পুলিশের পক্ষ থেকে পাল্টা জবাব দেওয়া হলেও শেষ পর্যন্ত এক ওসিসহ ৪ পুলিশের প্রাণহানি হয়।

অপর দিকে ঘটনাস্থল পরিদর্শনের জন্য এরই মধ্যে লাতেহারে অবস্থান করছেন পুলিশের উচ্চপদস্থ কর্তারা। পরিস্থিতি অগ্নিগর্ভ, তাই সড়কে টহল দিতে শুরু করেছেন সিআরপিএফ বাহিনীর জাওয়ানরা। মোট ৫ দফায় হবে এই নির্বাচন। তাই প্রতি দফাতেই মাওবাদী হামলার আশঙ্কা বেড়ে গেছে।


সূত্রঃ https://www.odhikar.news/international/106269



Leave a Reply

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out /  Change )

Google photo

You are commenting using your Google account. Log Out /  Change )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out /  Change )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out /  Change )

Connecting to %s

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.