Özgür Gelecek সম্পাদক কমরেড ‘তুরগুত কায়া’র প্রতি আমাদের সংহতি

turgut-ok-678x405

Turgut Kaya

তুরস্কের বিপ্লবী কমিউনিস্ট সংগঠনের সাথে যোগাযোগ রাখার অভিযোগ এনে বিপ্লবী কমিউনিস্টদের পত্রিকা Özgür Gelecek এর সম্পাদক কমরেড ‘তুরগুত কায়া’কে গত এপ্রিল ২০১৮, গ্রীস থেকে ইন্টারপোল পুলিশ গ্রেফতার করে। তুরস্কে ছাত্রদের অধিকার ও গণতান্ত্রিক অধিকার আদায়ের সংগ্রামে যুক্ত থাকার কারণে ১৯৯২, ৯৪, ৯৭, ২০০৬, ২০১৫ ও সর্বশেষ ২০১৮ এর এপ্রিলে তাকে গ্রেফতার করা হয়, এসময় তার উপর বর্বর নির্যাতন করে আসছে তুর্কি রাষ্ট্র। বর্তমানে গ্রীসের কারাগারে বন্দী এই বিপ্লবীকে তুরস্ক রাষ্ট্রের কাছে হস্তান্তরের সিদ্ধান্ত নিয়েছে গ্রীস সরকার। তুরস্ক এই বিপ্লবীকে পাওয়ার পর হত্যা করবে এই আশংকায়, তার মুক্তির দাবীতে বিশ্বব্যাপী বিপ্লবী ব্যক্তি ও সংগঠন সমূহ তীব্র আন্দোলন শুরু করেছে।

‘লাল সংবাদ’ এই আন্দোলনের প্রতি পুর্ণ সংহতি জানাচ্ছে।

কমরেড ‘তুরগুত কায়া’কে অবিলম্বে মুক্তি দেয়া হোক!

বিস্তারিতঃ https://www.newepoch.media/single-post/2018/06/01/Greece—Freedom-for-the-revolutionary-Turgut-Kaya

Advertisements

তুরস্কের দারসিম অঞ্চলে সরকারি বাহিনীর অভিযানে ২ মাওবাদী গেরিলা শহীদ হয়েছেন

nergis-01-800x445

শহীদ কমরেড গুল কায়া(নারগিস)

তুরস্কে বসন্ত আসার সাথে সাথে গেরিলা এলাকাগুলোতে ফ্যাসিস্ট সরকারের সামরিক অভিযান অব্যাহত রয়েছে।

সম্প্রতি তুর্কি প্রজাতন্ত্রের দারসিমের আলিবোগাযি’তে সকালের দিকে প্রতিক্রিয়াশীল সরকারি বাহিনীর দ্বারা পরিচালিত অপারেশনে ২জন গেরিলা অমর হয়েছেন, শহীদ এই ২জন গেরিলা TKP / ML-TİKKO (তুরস্কের কমিউনিষ্ট পার্টি / মার্কসবাদী-লেনিনবাদী ও তুরস্কের কৃষক শ্রমিক মুক্তি সেনা) এর গেরিলা যোদ্ধা ছিলেন।

শহীদ ২জন গেরিলার একজনের পরিচয় পাওয়া গেছে, তার নাম গুল কায়া(নারগিস)।

সূত্রঃ http://www.yenidemokrasi.net/dersimde-2-tikko-gerillasi-olumsuzlesti.html


তুরস্কে সেনা–মাওবাদী যুদ্ধে ৪ গেরিলা শহীদ হয়েছেন

h

গত ১৬ই নভেম্বর সকালে তুরস্কের দারসামের ওভাকিক জেলার করাগোল অঞ্চলে সরকারী ‘ টিসি’ সেনা এবং গেরিলাদের মধ্যে এক সংঘর্ষে মাওবাদী MKP / HKO এবং HPG এর ৪ গেরিলা শহীদ হয়েছেন। বুর্জোয়া মিডিয়া এবং গভর্নরের অফিস ঐ তারিখে বলছে যে, এই যুদ্ধ এখনও অব্যাহত রয়েছে।

সাম্প্রতিক সময়ে, তুরস্কের দারসিম অঞ্চলে গেরিলাদের উপর ‘টিসি’ সেনাদের অভিযান বৃদ্ধি পেয়ে তা অব্যাহত রয়েছে। মাওবাদীদের বিরুদ্ধে এই যুদ্ধে সরকারী বাহিনীর সব ধরণের সর্বোচ্চ প্রযুক্তি এবং নোংরা যুদ্ধের নির্দেশনাগুলি কার্যকর করা হয়েছে। দারসিম অঞ্চল, এমন এক স্থান যেখানে ঘন ঘন আক্রমণ এবং দ্বন্দ্বের ফলে চারপাশের বিপ্লবী পরিবেশ বেশ অভিজ্ঞ হয়ে উঠেছে ।

সূত্রঃ http://kaypakkayahaber.com/haber/pulurda-catisma-4-gerilla-olumsuzlesti

 


রোজাভায় আইএসের সাথে যুদ্ধে তুরস্কের গুরুত্বপুর্ণ মাওবাদী কমান্ডার শহীদ হয়েছেন

nubar_ozanyan_0

তুরস্কের মাওবাদী কমিউনিস্ট পার্টি TKP / ML-TIKKO (তুরস্কের কমিউনিস্ট পার্টি / মার্কসবাদী-লেনিনবাদী – শ্রমিক ও তুরস্কের চাষীদের মুক্তি সেনা) মধ্যপ্রাচ্য পার্টি কমিটি ঘোষণা করেছে যে, গত ১৪ই আগস্ট রোজভায় আইএসআইএসের সাথে এক যুদ্ধে পার্টি কমান্ডার নূর ওজানিয়ান শহীদ হয়েছেন। তার তিনজন কমরেড- একজন ইরানী, একজন কানাডীয় এবং একজন সারদিনিয়ার এতে আহত হন।

দলের ইতিহাসে পার্টি’র বিপ্লব ও স্বাধীনতার কাজ পরিপূর্ণ করার জন্য তিনি বিভিন্ন সময়ে অনেক যোদ্ধা ও কমান্ডারকে প্রশিক্ষিত ও নির্দেশনা দিয়েছিলেন; ১৯৮৮-৯০ সালে প্যালেস্টাইনে, ১-১-৯২ সালে কারাবাকে, হায়াতান (আর্মেনিয়া), ২০১৪ সালে দক্ষিণ কুর্দিস্তানে এবং জুলাই ২০১৫ সালে রোজাভাতে উল্লেখযোগ্য।

তিনি অনেক কুর্দি, তুর্কি, আর্মেনিয়ান, আরব, প্যালেস্টাইনী, গ্রীক, কানাডিয়ান, সার্ডিনিয়ান, বেলজিয়ান এবং ফরাসি আন্তর্জাতিকবাদী যোদ্ধাদের প্রশিক্ষণ দিয়েছিলেন। যুদ্ধবিষয়ক জ্ঞানের সাথে এবং যুদ্ধক্ষেত্রে যোদ্ধাদের এবং বিপ্লবী সংগঠনগুলোর মধ্যে তুরস্কের যে সংগঠনগুলি রোজাভায় যুদ্ধ করছে তাদের সাথে সম্পর্কের ক্ষেত্রে তিনি যুদ্ধের প্রথম দিকে আন্তরিক গুরুত্ত্বপুর্ণ অবস্থান গ্রহণ করেন। এই কারণে, তিনি রোজাভায় প্রতিটি স্বাধীনতা যুদ্ধের লড়াইয়ে একজন নির্ভরযোগ্য কমরেড হয়ে ওঠেন।

তিনি রোজাভা-সিলুক প্রতিরোধে আইএসআইএস-এর গ্যাং এর উপর কঠোর আঘাত হেনে আন্তর্জাতিক বাহিনী ব্যাটেলিয়ানের সকল যোদ্ধাদের হৃদয় ও সহানুভূতি লাভ করেন। এসময় তিনি প্রধান বিপ্লবী দায়িত্ব গ্রহণ করেন এবং সাম্রাজ্যবাদ, ফ্যাসিবাদ এবং সব ধরণের প্রতিক্রিয়াশীলতার বিরুদ্ধে বিপ্লবী যুদ্ধের অনেক দেশ ও অঞ্চলে গুরুত্বপূর্ণ কাজ পরিপূর্ণ করেন। প্যারিসে তাঁর বিপ্লবী কার্যকলাপের সময়, তিনি বিপ্লবী শিল্পের সবচেয়ে নির্ভীক ও নির্ভরযোগ্য রক্ষাকর্তাদের একজন হিসেবে কাজ করেন।

পার্টি কমিটি উল্লেখ করেছে যে, ওজনিয়ান দুর্নীতিবিরোধী সমস্যাগুলোর সমাধানের জন্য ডারসাম পর্বতমালার নেতৃত্বে ছিলেন এবং শেষের দিকে তিনি ডেরেমিমে তাঁর কমরেডদের সাথে দেখা করার জন্য চেষ্টা করেছিলেন। তিনি শহীদ হওয়ার আগেই রোজাভাতে ফিরে আসেন। স্বদেশে গেরিলা সংগ্রামে উদ্ভূত বিপ্লবী শক্তির উত্থান এবং স্বাধীনতা সংগ্রাম এবং কুর্দি, আরব, তুর্কমেন, সিরিয়াক এবং আর্মেনিয়ান জনগণের ঐক্যকে শক্তিশালী করার জন্য তিনি রোজাভায় তার কাজ ও দায়িত্ব পালন করেন।

জীবনকালে তিনি সংগ্রামের আদর্শ ও মানসিকতা এবং কমিউনিস্ট নেতা কমরেড কায়পাক্কায়ার বিপ্লব ও শৃঙ্খলার উপর বিশ্বস্ত ছিলেন ও জনগণের বিপ্লবী যুদ্ধের রণনীতি কার্যকর করার জন্য তিনি দিন ও রাত কাজ করেন।

সূত্রঃ http://www.kaypakkayahaber.com/haber/tkpml-tikko-commander-rojava-falls-martyr


তুরস্কে মাওবাদী MKP ও HKO এর ৩ কমরেড যুদ্ধে শহীদ হয়েছেন

DGQUNoXVoAEGkai

তুরস্কের বুর্জোয়া সংবাদ মাধ্যম জানাচ্ছে, দারসিম অঞ্চলের ওভাচিক এ দখলদারী সরকারী সেনাদের সাথে সম্মুখ যুদ্ধে মাওবাদী MKP ও HKO এর ৩ কমরেড শহীদ হয়েছেন ।


তুরস্কে সামরিক বাহিনীর স্থাপনায় হামলা চালিয়েছে মাওবাদী MKP/HKO গেরিলারা

MKPHKO-800x445

গত ১৮ই জুনে, MKP/HKO গেরিলারা ওভেইক-কুশুলুকা সামরিক স্থাপনায় গেরিলা হামলা চালিয়েছে। রিপোর্ট অনুযায়ী, এতে একজন সৈনিক নিহত এবং দুই সৈন্য আহত হয়।

মাওবাদী কমিউনিস্ট পার্টি/পিপলস লিবারেশন আর্মি(MKP/HKO) এর পরিচালনায় ওভেইক-কুশুলুকা’র সামরিক স্থাপনার বিরুদ্ধে এই হামলাটি চালানো হয়।

MKP/HKO দারসিম আঞ্চলিক কমান্ড এক বিবৃতি বলেছে: “১৮ই জুন ২০১৭ এ সকাল ৮.১৫মিনিটে কুশুলুকা সামরিক স্থাপনায় আমাদের গেরিলাদের পরিচালনায় এই আক্রমণটি চালানো হয়েছে।

এতে দুই শত্রু সৈন্য আহত এবং একজনকে হত্যা করা হয় এবং আমাদের বাহিনীর কোনও ক্ষতি ছাড়াই নিরাপদে ফিরে আসতে পেরেছে। আক্রমণের পরে, শত্রুরা এলাকায় মর্টার আক্রমণ শুরু করে।

দারসিমের মেরকানে শহীদ ১৭জন গেরিলার সম্মানার্থে এই আক্রমণটি চালানো হয়েছে”।

বিবৃতিটি স্লোগান দিয়ে শেষ হয়: “আমাদের পার্টি এবং সমাজতান্ত্রিক গণযুদ্ধ দীর্ঘজীবী হোক”

সূত্রঃ http://www.halkingunlugu.org/index.php/guncel/item/11044-mkp-hko-gerillalarindan-eylem


ফ্যাসিস্ট তুর্কি সেনাবাহিনীর বিরুদ্ধে মাওবাদীদের সাঁড়াশি আক্রমণ, খতম ৩ সেনা, আহত বেশকিছু

12ler_alibogazi_1

গত ১লা জুন তুরস্কের কৃষক ও শ্রমিকদের কমিউনিস্ট গেরিলা সেনাবাহিনী(TIKKO) ফ্যাসিবাদী তুর্কি সেনাবাহিনীর বিরুদ্ধে দুটি হামলা চালায়। এতে তিন জন শত্রু সৈন্যকে খতম করা হয় এবং আনুমানিক অনেক সৈন্যকে আহত করা হয়, যার সংখ্যা স্পষ্ট করা যায় নি। আলিবাগাজী ও বোজান এলাকায় এই হামলা হয়।

এই হামলাটি, গত ২৪ এবং ২৮শে নভেম্বর, ২০১৬ এর মধ্যে দারসিম অঞ্চলে ফ্যাসিস্ট তুরস্ক সেনাবাহিনী কর্তৃক হত্যাকৃত TKP / ML-TIKKO এর ১২ জন শহীদ গেরিলার প্রতি উতসর্গ করা হয়েছে।

 তুরস্কের কৃষক ও শ্রমিকদের কমিউনিস্ট গেরিলা সেনাবাহিনী(TIKKO) হচ্ছে তুরস্কের কমিউনিস্ট পার্টি TKP / ML এর সশস্ত্র শাখা।

সূত্রঃ http://kaypakkayahaber.com/haber/tkpml-tikko-dersim-bolge-komutanligindan-1