খুলনায় পূর্ববাংলার কমিউনিস্ট পার্টির ৩ সদস্য আটক

জেলার ফুলতলা উপজেলা থেকে গোয়েন্দা পুলিশ ২ এপ্রিল ‘১৭ এর প্রথমভাগে বিশেষ অভিযান চালিয়ে নিষিদ্ধ ঘোষিত পূর্ব বাংলার কমিউনিস্ট পার্টির আঞ্চলিক নেতা হাফিজ চৌধুরীকে তার দুই সঙ্গীসহ গ্রেপ্তার করেছে।
আটককৃত অন্য দু’জন হলো- জাহেরুল ইসলাম খান এবং হোসেন কবির রাসেল। তাদের উভয়ের বাড়িও একই উপজেলায়।
পুলিশ এ সময় দু’টি বিদেশে তৈরি বন্দুক, একটি শাটার গান, দুইটি কার্তুজ এবং আটটি হাতে তৈরি গ্রেনেড উদ্ধার করে।
এ ব্যাপারে খুলনায় গোয়েন্দা পুলিশের পরিদর্শক শিকদার আক্কাস আলী বলেন, গোপন সংবাদের ভিত্তিতে রোববার দিবাগত রাত ২টার সময় গোয়েন্দা পুলিশের একটি বিশেষ দল ফুলতলা উপজেলার দামোদর এলাকায় অভিযান পরিচালনা করে।
পুলিশের উপস্থিতি টের পেয়ে সন্ত্রাসীরা পুলিশ সদস্যদের লক্ষ্য করে ৯ থেকে ১০টি বোমা নিক্ষেপ করে। পরে পুলিশ ও সন্ত্রাসীদের মধ্যে বন্দুক যুদ্ধ শুরু হয় এবং তা প্রায় দেড় ঘন্টা ধরে চলে। এক পর্যায়ে পুলিশ অস্ত্র ও দুই সহযোগীসহ হাফিজকে আটক করে। খুলনা পুলিশের তালিকাভুক্ত আসামি হাফিজ এসময় গুলিবিদ্ধ হয়।
হত্যা মামলাসহ বিভিন্ন মামলার আসামি হাফিজ বিভিন্ন সময় পলাতক ছিল।
এ ঘটনায় ফুলতলা থানায় দু’টি মামলা দায়ের করা হয়।

সূত্রঃ http://www.bssnews.net/bangla/newsDetails.php?cat=4&id=395669&date=2017-04-02

Advertisements

পূর্ববাংলার কমিউনিস্ট পার্টি (লাল পতাকা) সদস্য গ্রেফতার

04-5509993-17

রাজবাড়ীতে বিদেশি অস্ত্র-গুলিসহ বশির উদ্দিন নামে পূর্ববাংলার কমিউনিস্ট পার্টি (লাল পতাকা) সদস্যকে গ্রেফতার করেছে র‌্যাপিড অ্যাকশন ব্যাটেলিয়ন (র‌্যাব-৮)। শনিবার (০৪ মার্চ) ভোররাতে জেলা সদরের পাঁচুরিয়া বাজার থেকে তাকে আটক করা হয়। বশির জেলা সদরের বরাট ইউনিয়নের নবগ্রামের বাসিন্দা। তার বাবার নাম আজিজুল হক।
র‌্যাব-৮ ফরিদপুর ক্যাম্পের দুই নং কোম্পানির ভারপ্রাপ্ত অধিনায়ক অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মো. রইছ উদ্দিন জানান, গোপন সংবাদের ভিত্তিতে ভোররাতে পাঁচুরিয়া বাজার থেকে বশিরকে আটক করা হয়। এসময় তার কাছ থেকে একটি বিদেশি পিস্তল, তিন রাউন্ড গুলি, দুটি ম্যগজিন, একটি ওয়ান শুটারগান ও দুই রাউন্ড কার্তুজ উদ্ধার করা হয়। বশির একজন অবৈধ অস্ত্রধারী এবং পূর্ববাংলার কমিউনিস্ট পার্টি (লাল পতাকা) বাপ্পী বাহিনীর অন্যতম সদস্য। তার বিরুদ্ধে রাজবাড়ী থানায় মামলা দায়েরের প্রস্তুতি চলছে।

সূত্রঃ https://rajbaribarta.com/5159

 


বাংলাদেশঃ মাওবাদী বলশেভিক রিঅর্গানাইজেশন মুভমেন্ট (এমবিআরএম) এর সদস্য গ্রেফতার

rajbari-arms-recovery

রাজবাড়ীতে পূর্ববাংলার সর্বহারা পার্টি – মাওবাদী বলশেভিক রিঅর্গানাইজেশন মুভমেন্ট (এমবিআরএম) এর সক্রিয় এক সদস্যকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। পরে তার হেফাজত থেকে একটি রিভলবার ও দুই রাউন্ড গুলি উদ্ধার করা হয়েছে।

গ্রেফতারকৃত সেলিম প্রামাণিক (৩৮) জেলা সদরের বরাট ইউনিয়নের উড়াকান্দা গ্রামের আক্কাছ প্রামাণিকের ছেলে।

বৃহস্পতিবার (২ মার্চ) সকাল ১০টায় রাজবাড়ী সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. আবুল বাশার মিয়া এক প্রেস বিজ্ঞপ্তির মাধ্যমে এ তথ্য জানান।

ওসি জানান, গ্রেফতারকৃত সেলিম রাজবাড়ী জেলা সদরের ২০০৯ সালের উড়াকান্দার ফোর মার্ডার মামলার এজাহারভুক্ত আসামি। মামলাটি আদালতে বিচারাধীন।

বুধবার (১ মার্চ) রাত ৮টার দিকে রাজবাড়ী বাজার এলাকা থেকে তাকে গ্রেফতার করা করা হয়। এরপর তার দেওয়া তথ্যমতে রাত ২টার দিকে উড়াকান্দা বাজারের একটি মুদি দোকানে তল্লাশি চালিয়ে একটি বিস্কুটের কার্টন থেকে একটি রিভলবার ও দুই রাউন্ড গুলি উদ্ধার করা হয়।

তিনি আরো জানান, গ্রেফতারকৃত সেলিমের বিরুদ্ধে রাজবাড়ী থানায় অস্ত্র আইনে মামলার প্রস্তুতি চলছে।

সূত্রঃ

http://bdnews24.com/samagrabangladesh/detail/home/1296853

http://banglanews24.com/national/news/bd/557773.details

 


বাংলাদেশঃ রাজবাড়ীতে ‘লাল পতাকা’ সদস্য গ্রেফতার

15731466_1824611484463633_77593633_n

রাজবাড়ীর গোয়ালন্দে অস্ত্রসহ লাল মিয়া (৩০) নামে এক ‘লাল পতাকা’ সদস্যকে গ্রেফতার করেছে ডিবি পুলিশ।

সোমবার রাতে উপজেলার অনন্তারমোড় থেকে দুই রাউন্ড গুলি ও একটি ওয়ান শ্যুটারগানসহ তাকে গ্রেপ্তার করা হয় বলে জানান জেলা গোয়েন্দা পুলিশের উপ পরিদর্শক হিরণ কুমার।

গ্রেপ্তার লাল মিয়ার (৩০) বাড়ি গোয়ালন্দ ঘাট থানার দেবগ্রাম ইউনিয়নের চরবরাট গ্রামে। সে চরবরাট গ্রামের সামাদ মিয়ার ছেলে।

তিনি চরমপন্থী লাল পতাকা দলের সক্রিয় সদস্য বলে জানিয়েছেন ডিবি পুলিশের এই উপ পরিদর্শক।

উপ পরিদর্শক হিরণ কুমার বলেন, গোপন খবর পেয়ে সোমবার রাত ৯টার দিকে পদ্মা নদী তীরে ভাঙা রাস্তার মোড় থেকে অস্ত্র ও গুলিসহ তাকে গ্রেপ্তার করা হয়।

এ ঘটনায় মামলা হয়েছে।

15782626_1824611384463643_572226321_n

সূত্রঃ http://bangla.bdnews24.com/samagrabangladesh/article1263417.bdnews


বাংলাদেশঃ ২রা জানুয়ারী ২০১৭ ‘জাতীয় শহীদ দিবস’ উদযাপন করুন!

%e0%a6%aa


বাংলাদেশের গণযুদ্ধের সংবাদ –

meherpur-crossfire-pic-01

মেহেরপুরে কথিত বন্দুকযুদ্ধে পূর্ববাংলার কমিউনিস্ট পার্টির (এমএল-জনযুদ্ধ) ৩ সদস্য নিহত

মেহেরপুরের গাংনীতে পুলিশের সঙ্গে কথিত বন্দুকযুদ্ধে তিন যুবক নিহত হয়েছে, যাদের চরমপন্থী বলছে পুলিশ।

৫ই ডিসেম্বর, সোমবার শেষ রাতের দিকে উপজেলার পুরাতন মটমুড়া গ্রামের একটি ইট ভাটায় চাঁদা নিতে এসে বন্দুকযুদ্ধে তারা নিহত হন বলে জানান মেহেরপুর পুলিশ সুপার আনিছুর রহমান।

এ সময় ছয় পুলিশ সদস্য স্প্লিন্টারে আহত হয়। তাদের প্রাথমিক চিকিৎসা দেওয়া হয়েছে বলেও জানান তিনি।

নিহতরা হলেন গাংনী উপজেলার মানিকদিয়া গ্রামের চাঁদ আলীর ছেলে মহিবুল ইসলাম (২৪), একই গ্রামের আলতাব হোসেনের ছেলে তাজমুল আলম (২৫) ও ভোলাডাঙ্গা গ্রামের ফকির মোহাম্মদের ছেলে তুহিন শেখ (২১)।

এরা সবাই পূর্ববাংলার কমিউনিস্ট পার্টির (এমএল-জনযুদ্ধ) সদস্য। তাদের পকেট থেকে চরমপন্থী দলের লিফলেট পাওয়া গেছে বলে জানান পুলিশ সুপার।

তিনি বলেন, বিভিন্ন ইট ভাটায় চাঁদা আদায় করাই ছিল ওদের কাজ। পুলিশ দলটির পালিয়ে যাওয়া সদস্যদের গ্রেপ্তারে অভিযান শুরু করেছে।

ঘটনাস্থলের কাছের একতা ইট ভাটার মালিক বলেন, ১৫/২০ দিন ধরে এলাকার বিভিন্ন ইটভাটায় চরমপন্থী এই দলটি চাঁদা দাবি করে আসছিল। কয়েকটি ভাটা মালিক চাঁদা দিয়েছেও। চরমপন্থী দলটি সোমবার রাতে চাঁদা নিতে আসবে এ বিষয়টি পুলিশকে জানালে চাঁদা দিতে নিষেধ করে তারা ঘটনাস্থলে ওঁৎ পেতে থাকে।

“চাঁদা নিতে আসা দলটি পুলিশকে লক্ষ্য করে বোমা ছুঁড়লে পুলিশ পাল্টা গুলি ছুড়ে। এ সময় দুপক্ষের গোলাগুলিতে তিন চরমপন্থী নিহত হয়।”

গাংনী থানার ওসি আনোয়ার হোসেন বলেন, “পুলিশের উপস্থিতি টের পেয়ে চরমপন্থীরা প্রথমে বোমা ছুঁড়ে মারে। তখন পুলিশ পাল্টা গুলি চালায়।

“গোলাগুলির একপর্যায়ে তারা পালিয়ে গেলে ঘটনাস্থলে তিনজনের লাশ পাওয়া যায়।”

তাছাড়া ঘটনাস্থ থেকে দুইটি বন্দুক, একটি এলজি শার্টারগান, দুই রাউন্ড গুলি, দুইটি রামদা ও দুইটি তাজা হাতবোমা উদ্ধার করা হয়েছে বলে জানান তিনি।

সূত্রঃ http://bangla.bdnews24.com/samagrabangladesh/article1253200.bdnews

image-10291-1480689118

চুয়াডাঙ্গায় পূর্ববাংলার কমিউনিস্ট পার্টির (এমএল) শীর্ষ নেতা আটক

চুয়াডাঙ্গায় পূর্ববাংলার কমিউনিস্ট পার্টির (এমএল) শীর্ষ নেতা রুস্তম আলী (৩৬)কে আটক করেছে র‌্যাপিড অ্যাকশন ব্যাটালিয়ন ‘র‌্যাব’-৬ এর সদস্যরা।

শুক্রবার সন্ধ্যায় চুয়াডাঙ্গা-ঝিনাইদাহ সড়কের হায়দারপুর এলাকা থেকে তাকে আটক করা হয়।

এ সময় তার কাছ থেকে উদ্ধার করা হয় একটি রিভলবার ও ৪ রাউন্ড গুলি।

আটক রুস্তম আলী আলমডাঙ্গা উপজেলার তিয়রবিলা গ্রামের আব্দুল গফুরের ছেলে।

র‌্যাব জানায়, রুস্তম আলী চুয়াডাঙ্গা-ঝিনাইদহ সড়কের হায়দারপুর এলাকায় অবস্থান করছে এমন খবরের ভিত্তিতে ওই এলাকায় অভিযান চালানো হয়। অভিযানের এক পর্যায়ে তাকে অস্ত্র ও গুলিসহ আটক করা হয়।

ঝিনাইদহ র‌্যাব-৬ এর ক্যাম্প কমান্ডার মেজর মনির আহমেদ জানান, আটক রুস্তম নিষিদ্ধ ঘোষিত চরমপন্থী সংগঠন পূর্ববাংলা কমিউনিস্ট পার্টির শীর্ষ নেতা। তার নামে চাঁদাবাজি, বোমাবাজিসহ অসংখ্য অভিযোগ রয়েছে।

আটকের পর রাতেই তাকে চুয়াডাঙ্গা সদর থানায় হস্তান্তর করা হয়।

চুয়াডাঙ্গা সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) তোজাম্মেল হক জানান, থানা হেফাজতে নিয়ে রুস্তমকে তার সহযোগিদের ব্যাপারে জিজ্ঞাসাবাদ করা হচ্ছে।

সূত্রঃ  dhakatimes24.com

 

osroo

রাজবাড়ীতে লাল পতাকা সদস্য গ্রেফতার

রাজবাড়ীতে একটি ওয়ান শুটারগান ও দুই রাউন্ড গুলিসহ আশরাফুল ইসলাম ফুলি (৩৮) নামের এক চরমপন্থী লাল পতাকা দলের সদস্যকে গ্রেফতার করেছে বলে জানিয়েছে ডিবি পুলিশ। মঙ্গলবার দুপুর দেড়টার দিকে জেলা সদরের সূর্য্যনগর রেলস্টেশন বাজার থেকে তাকে গ্রেফতার করা হয়। গ্রেফতারকৃত ফুলি রাজবাড়ী জেলা সদরের বড় চরবেনীনগর গ্রামের আসমত আলীর ছেলে। রাজবাড়ী ডিবি পুলিশের এসআই কামাল হোসেন ভূঁইয়া জানান, গোপন সংবাদের ভিত্তিতে ফুলিকে গ্রেফতার করা হয়। এ সময় তার কাছ থেকে একটি ওয়ান শুটারগান ও দুই রাউন্ড গুলি উদ্ধার করা হয়। গ্রেফতারকৃত ফুলির বিরুদ্ধে একটি হত্যা মামলাসহ একাধিক মামলা রয়েছে বলেও জানান এসআই কামাল।

সূত্রঃ  http://www.somoyerkonthosor.com/2016/12/06/72017.htm


চুয়াডাঙ্গায় পূর্ব বাংলার কমিউনিস্ট পার্টির সদস্য গ্রেফতার

chuadanga_map

চুয়াডাঙ্গায় একটি বিদেশি পিস্তলসহ পূর্ব বাংলার কমিউনিস্ট পার্টির সদস্যকে আটক করেছে র‌্যাব।

মঙ্গলবার সন্ধ্যায় চুয়াডাঙ্গার সরোজগঞ্জ বাজার এলাকা থেকে বোরহান উদ্দিন নামে ওই ব্যক্তিকে আটক করা হয়। তার বাড়ি ঝিনাইদহের হরিণাকুন্ডু উপজেলার বরিশখালী গ্রামে।

র‌্যাব-৬ এর ঝিনাইদহ ক্যাম্প কমান্ডার মেজর মনির আহমেদ বলেন, বোরহান উদ্দিন কোনো অপরাধ ঘটানোর জন্য সরোজগঞ্জ বাজার এলকায় অবস্থান করছেন খবর পেয়ে র‌্যাবের একটি টহল দল সেখানে অভিযান চালিয়ে তাকে আটক  করে।

“তার কাছ থেকে একটি বিদেশি পিস্তল, পাঁচটি গুলি ও একটি ম্যাগজিন উদ্ধার করা হয়।”

তিনি চরমপন্থি সংগঠন পূর্ববাংলার কমিউনিস্ট পার্টির একজন সদস্য। অস্ত্র ব্যবসার সঙ্গেও জড়িত বলে র‌্যাব কর্মকর্তা জানান।

সূত্রঃ http://bangla.bdnews24.com/samagrabangladesh/article1250379.bdnews