তুরস্কে আত্মঘাতী বোমায় সরকারকে দায়ী করল এইচডিপি ও বামপন্থীরা

Still+image+taken+from+video

তুরস্কের রাজধানী আঙ্কারায় গতকালের (শনিবার) বোমা বিস্ফোরণে নিহতের সংখ্যা বেড়ে ৯৫ জনে দাঁড়িয়েছে। আহত হয়েছে আরও ২৪৫ জন। গতকাল রাজধানীর প্রধান রেল স্টেশনের কাছে কুর্দি ও বামপন্থীদের সরকার বিরোধী একটি শান্তিপূর্ণ সমাবেশে দু’টি বিস্ফোরণ ঘটানো হয়। বিস্ফোরণে ঘটনাস্থলেই নিহত হয়েছে ৬২ জন। হাসপাতালে নেয়ার আরও ৩৩ জনের মৃত্যু হয়।

এখন পর্যন্ত কোনো গোষ্ঠী এই হামলার দায় স্বীকার করেনি। তবে হামলার জন্য সরকারকে দায়ী করেছে কুর্দিপন্থী পিপলস ডেমোক্রেটিক পার্টি ও  বামপন্থীরা। যদিও সরকারের পক্ষ থেকে এই অভিযোগ অস্বীকার করা হয়েছে। তুরস্কের একজন সরকারি কর্মকর্তা বলেছেন, এটি ছিল সন্ত্রাসী হামলা এবং এ বিষয়ে তদন্ত চলছে। যত দ্রুত সম্ভব তদন্তের ফলাফল সবাইকে জানানো হবে।

তুরস্কের কুর্দি সমর্থিত পিপল’স ডেমোক্রেটিক পার্টি বা এইচডিপিসহ কয়েকটি বামপন্থী দল গতকাল শান্তিপূর্ণ সমাবেশের আয়োজন করেছিল। এইচডিপি পার্টির ট্যুইটে বহু লোক হতাহত হওয়ার কথা বলা হয়েছে, এছাড়া আহত লোকদের সরিয়ে নেওয়ার সময় পুলিশ লোকজনের উপর ‘হামলা’ চালিয়েছে বলে অভিযোগ করেছে দলটি।

সম্প্রতি তুর্কিতে কুর্দিস্থানের দাবিতে আন্দোলনরত PKK গেরিলাদের  সঙ্গে সেনার লড়াই তীব্রতা পেয়েছে। ফলে নিহত হয়েছেন উভয়পক্ষের বহু মানুষ। কুর্দিদের ঘাটিতে বিমান হানা শুরু করেছে তুর্কি সরকার। শনিবারের বোমা বিস্ফোরণের দায় কেউ স্বীকার না করলেও কুর্দিদের তরফে অভিযোগ করা হয়েছে উগ্র জাতীয়তাবাদী সংগঠনকে মদত জুগিয়ে সরকারই ঘটিয়েছে এই বিস্ফোরণ ।


তুরস্কে কুর্দি ও বামপন্থীদের সরকার বিরোধী সমাবেশে বোমায় নিহত ৮৬ (ভিডিও)

 

turkey-2-655x360

মাওবাদী ও কুর্দি গেরিলা গোষ্ঠী পিকেকে-র সঙ্গে চলমান সহিংসতার অবসান চেয়ে শান্তি সমাবেশটির ডাক দেওয়া হয়েছিল। সমাবেশকারীদের লক্ষ্য করেই বিস্ফোরণটি ঘটানো হয়েছে বলে ধারণা করা হচ্ছে।

‘শান্তি ও গণতন্ত্র’ শ্লোগানকে সামনে রেখে ডাকা শান্তি সমাবেশটির উদ্যোক্তাদের মধ্যে কুর্দিপন্থি এইচডিপি পার্টিও ছিল বলে জানা গেছে। স্থানীয় সময় দুপুর ১২টায় সমাবেশটি শুরু হওয়ার কথা ছিল।

Turkey+2

এইচডিপি পার্টির ট্যুইটে বহু লোক হতাহত হওয়ার কথা বলা হয়েছে, এছাড়া আহত লোকদের সরিয়ে নেওয়ার সময় পুলিশ লোকজনের উপর ‘হামলা’ চালিয়েছে বলে অভিযোগ করেছে দলটি।

স্থানীয় বাসিন্দা এমরে জানান, তিনি দুটি বিস্ফোরণের শব্দ শুনেছেন এবং বহু লোকের মৃতদেহ দেখেছেন। উত্তেজিত লোকজন পুলিশের গাড়ির উপর হামলার চেষ্টা করেছে বলেও জানান তিনি।

5.+Turkey

এর আগে জুনে দেশটির দিয়ারবাকির শহরে এইচডিপি পার্টির আরেকটি সমাবেশেও বোমা হামলা চালানো হয়েছিল।

শনিবারের এ ঘটনায় আরও ১৮৬ জন আহত হয়েছেন। নিহতদের মধ্যে অধিকাংশই একটি শান্তি সমাবেশে অংশগ্রহণ করতে আসা লোক বলে বার্তা সংস্থা দোগানের বরাত দিয়ে জানিয়েছে বার্তা সংস্থা রয়টার্স ও বিবিসি।

বামপন্থী শ্রমিক ইউনিয়ন ও সুশীল সমাজের গোষ্ঠীগুলোর ডাকা ওই সমাবেশে স্থানীয় সময় সকাল ১০টা চার মিনিটে হামলাটি চালানো হয়।

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে পোস্ট করা ছবিতে ঘটনাস্থলে বহু মানুষকে পড়ে থাকতে দেখা গেছে।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানিয়েছেন, বিস্ফোরণের পর অনেকের লাশ পড়ে থাকতে দেখা গেছে। ঘটনাস্থলে উদ্ধারকর্মীরা উদ্ধার কাজ চালাচ্ছেন।

তুরস্কের একজন সরকারি কর্মকর্তা বলেছেন, এটি ছিল সন্ত্রাসী হামলা এবং এ বিষয়ে তদন্ত চলছে। যত দ্রুত সম্ভব তদন্তের ফলাফল সবাইকে জানানো হবে। তুর্কি প্রধানমন্ত্রী আহমেদ দাউদওগ্লু নিরাপত্তা বিষয়ে জরুরি বৈঠক ডেকেছেন।

blast1


ছবির সংবাদঃ অপরাজেয় ‘সিযরে’

২৩ জন বেসামরিক কুর্দি নিহত, ৮ দিনের কারফিউ, বিদ্যুৎ নেই, পানি নেই, ফোন সংযোগ নেই,
কিন্তু ‘সিযিরে‘ অপরাজেয়!

তুরস্ক রাষ্ট্র কমিউনিস্ট কুর্দি ‘পিকেকে’ গেরিলাদের মোকাবিলা করতে তুর্কি কুর্দিস্তানের ‘Cizre/সিযরে শহরে প্রায় দুই সপ্তাহ ধরে সামরিক হামলা ও আইন জারী করে রেখেছে। তুর্কি রাষ্ট্র কুর্দি জনগণের উপর গত ৪৮ ঘণ্টায় সেনা ও বিমান সহযোগে এই পর্যন্ত ৩০৮বার ভয়াবহ আক্রমণ করেছে। এতে হাজার হাজার কুর্দি জনগণ রাস্তায় নেমে এসে তুর্কি সরকারের বিরুদ্ধে বিক্ষোভ জানাচ্ছে। জনগণ বলছে, এটি আমাদের ‘অস্তিত্ব রক্ষার যুদ্ধ’ ।

cojigqhwgaaj5wa

1

2

সূত্রঃ https://nouvelleturquie.wordpress.com/2015/09/11/cizre-ne-se-rendra-pas/


‘তুরস্ক আইএসআইএল-এর তেলের অন্যতম প্রধান ক্রেতা’

d58cd9208160dbae8d6b521f69e99e65_XL

তুর্কি সরকারের সঙ্গে সন্ত্রাসী গোষ্ঠী আইএসআইএল-এর গোপন বাণিজ্য সম্পর্ক থাকার বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন একজন পশ্চিমা কর্মকর্তা। এ খবর ফাঁস করেছে ব্রিটেনের দৈনিক গার্ডিয়ান।

গার্ডিয়ানে প্রকাশিত (রোববারের) এক প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, পাশ্চাত্যের ওই সিনিয়র কর্মকর্তা বলেছেন, আইএসআইএল-এর শীর্ষস্থানীয় কর্মকর্তাদের সঙ্গে তুর্কি কর্মকর্তাদের সরাসরি যোগাযোগ সংক্রান্ত দলিল-প্রমাণগুলো ‘অনস্বীকার্য’।

গত মে মাসে সিরিয়ায় আইএসআইএল-এর গুরুত্বপূর্ণ নেতা আবু সাইয়াফের আস্তানায় হামলা চালানোর পর এই সন্ত্রাসী গোষ্ঠীর সঙ্গে তুর্কি সরকারের অঘোষিত দহরম-মহরমের দলিল-প্রমাণগুলো পাওয়া গেছে। ওই হামলায় আবু সাইয়াফ নিহত হয়।

ওই আস্তানা থেকে শত শত ফ্ল্যাশ ড্রাইভ ও দলিল-প্রমাণ আটক করা হয় বলে নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক পশ্চিমা ওই কর্মকর্তা জানান। ‘এইসব দলিল-প্রমাণ বিশ্লেষণ করে দেখা হচ্ছে। তবে তুর্কি-আইএসআইএল দহরম-মহরম এতই স্পষ্ট যে তা ওয়াশিংটন-আঙ্কারা সম্পর্কের ওপর গভীর প্রভাব ফেলতে পারে।’-মন্তব্য করেন ওই কর্মকর্তা।

আইএসআইএল পূর্ব সিরিয়ার তেলক্ষেত্র গুলো থেকে তেল পাচার করছে। আর তুরস্ক হচ্ছে এই তেলের অন্যতম প্রধান ক্রেতা। আইএসআইএল-এর বেশিরভাগ সন্ত্রাসীই তুরস্কে আশ্রয় ও এমনকি প্রশিক্ষণ পেয়ে এসেছে এবং তারা মূলত তুর্কি সীমান্ত দিয়েই সিরিয়ায় অনুপ্রবেশ করে থাকে। তুরস্কের প্রায় তিন হাজার নাগরিক এই সন্ত্রাসী গোষ্ঠীর সদস্য বলে গোয়েন্দা প্রতিবেদনগুলাতে উল্লেখ করা হয়েছে।

আইএসআইএল-এর সঙ্গে তুর্কি সরকারের গোপন বাণিজ্য সম্পর্কের খবর এমন সময় প্রকাশিত হল যখন তুরস্কের সশস্ত্র বাহিনী এই সন্ত্রাসী গোষ্ঠীর ওপর ও উত্তর ইরাকের কুর্দি কমিউনিস্ট পিকেকে গেরিলাদের ওপর বিমান হামলা চালিয়েছে। তবে বেশিরভাগ তুর্কি বিমান হামলা মূলত কুর্দি গেরিলাদের ওপরই চালানো হচ্ছে বলে খবর এসেছে।

আইএসআইএল ইরাক ও সিরিয়ার তেল-গ্যাস ক্ষেত্রগুলো থেকে জ্বালানী পণ্য পাচার করে প্রতি মাসে চার হাজার কোটি ডলার আয় করে বলে এর আগে খবর দিয়েছিলেন মার্কিন উপ-অর্থমন্ত্রী। আমেরিকা ও ইসরাইলও  আইএসআইএল-এর অন্যতম প্রধান পৃষ্ঠপোষক এবং এই সন্ত্রাসী গোষ্ঠীর কাছ থেকে সস্তায় তেল কিনছে বলে বিভিন্ন সূত্রে খবর প্রকাশিত হয়েছে।

সূত্রঃ http://bangla.irib.ir/2010-04-21-08-29-09/2010-04-21-08-29-54/item/75747-%E0%A6%A4%E0%A7%81%E0%A6%B0%E0%A6%B8%E0%A7%8D%E0%A6%95-%E0%A6%86%E0%A6%87%E0%A6%8F%E0%A6%B8%E0%A6%86%E0%A6%87%E0%A6%8F%E0%A6%B2-%E0%A6%8F%E0%A6%B0-%E0%A6%A4%E0%A7%87%E0%A6%B2-%E0%A6%AC%E0%A6%BE%E0%A6%A3%E0%A6%BF%E0%A6%9C%E0%A7%8D%E0%A6%AF%E0%A7%87%E0%A6%B0-%E0%A6%85%E0%A6%A8%E0%A7%8D%E0%A6%AF%E0%A6%A4%E0%A6%AE-%E0%A6%AA%E0%A7%8D%E0%A6%B0%E0%A6%A7%E0%A6%BE%E0%A6%A8-%E0%A6%B6%E0%A6%B0%E0%A6%BF%E0%A6%95