ফিলিস্তিনি কিশোরী আহেদ তামিমি’র প্রতি সংহতি

ob_6d3cfc_free-ahed

এক ইসরাইলি সেনার গালে ঘুষি মেরে বীরের মর্যাদায় ভূষিত হয়েছেন ১৬ বছরের ফিলিস্তিনি কিশোরী আহেদ তামিমি। কোকড়ানো ও সোনালি চুলের এই কিশোরী তাদের বাড়ির প্রবেশ পাথের কাছে দাঁড়ানো দুই ইসরাইলি সেনার দিকে হেঁটে এগিয়ে যান। সেনাদের কাছাকাছি গিয়ে নিজেদের বাড়ির আঙিনা ছেড়ে চলে যাওয়ার জন্য বলেন তিনি। কিন্তু ওই দুই সেনা তার কথায় কোনো কর্ণপাত না করে দাঁড়িয়ে থাকে। তিনি ওই দুই সেনাকে ধাক্কা দিয়ে সরিয়ে দেয়ার চেষ্টা করতে থাকেন। কিন্তু সেনারা কোনো তোয়াক্কা না করায় এক সেনার গালে সজোরে থাপ্পড় বসিয়ে দেন তিনি। ইসরাইলি দুই সেনাকে ফিলিস্তিনি কিশোরীর রুখে দাঁড়ানোর ভিডিও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ভাইরাল হয়ে যায়। এরপরই ফিলিস্তিনের নবী সালেহ গ্রামের ১৬ বছর বয়সী এই কিশোরী নতুন প্রজন্মের এক বীরপ্রতীক হিসেবে ফিলিস্তিনের কাছে ব্যাপক প্রশংসা কুড়ান।
এনবিসি নিউজ জানায়, গত শুক্রবার জেরুজালেমকে ইসরাইলের রাজধানী ঘোষণা করার প্রতিবাদে পশ্চিম তীরে বিক্ষোভ করছিল ফিলিস্তিনিরা। এ সময় ফিলিস্তিনের বিখ্যাত কিশোরী অ্যাক্টিভিস্ট আহেদ তামিমির পরিবারের এক সদস্যকে মাথায় গুলি করে ইসরাইলি সেনারা। এতে ক্ষোভে ফেটে পড়ে কিশোরী আহেদ তামিমি। এই দৃশ্য কেউ একজন মোবাইল ফোনের ক্যামেরা ভিডিও করে সামাজিক মাধ্যমে ছড়িয়ে দেয়। দ্রুত ভাইরাল হয়ে যায় ভিডিওটি। এই ভিডিওকে ঘিরে ফিলিস্তিনি কিশোরীর বিরুদ্ধে ইসরাইলি কর্তৃপক্ষকে ব্যবস্থা নিতে উসকানি দেয় ইহুদিবাদী সংবাদ মাধ্যমগুলো।
থাপ্পড়ের প্রতিশোধ নিতে ইসরাইলি সেনারা মাসহ ওই কিশোরী আহেদ এবং তার ২১ বছর বয়সী চাচাতো বোন নুর নাজি আল তামিমিকে গ্রেফতার করে। মঙ্গলবার ভোরে ওই ফিলিস্তিনি কিশোরীর বাড়িতে অভিযান চালায় সেনাবাহিনী। আহেদের ব্যক্তিগত ল্যাপটপ, মোবাইল এবং বেশ কিছু ইলেক্ট্রনিক জিনিস জব্দ করা হয়। অভিযানের সময় তামিমির পরিবারের লোকজনকে সেনারা মারধর করেছেন বলে অভিযোগ করেছে তার পরিবার। এ ঘটনায় ফিলিস্তিনিরা সামাজিক মাধ্যমে ক্ষোভ ও নিন্দা জানান। তাদের কথা, দখলদার ইসরাইলি সেনাদের প্রতিরোধ করার অধিকার রয়েছে ফিলিস্তিনিদের। এদিকে দুই সেনার ওপর হামলার অভিযোগ এনে তার বিরুদ্ধে ১০ দিনের সাজাও ঘোষণা করা হয়েছে। ইসরাইলের শিক্ষামন্ত্রী নাফতালি বেন্নেত মঙ্গলবার আর্মি রেডিওতে এক ঘোষণায় বলেন, ‘অস্থিতিশীল কর্মকাণ্ডে জড়িত দুই ফিলিস্তিনি কিশোরীকে জেলেই পচে মরতে হবে।’


‘জেরুজালেম ফিলিস্তিনের রাজধানী, ইজরাইলের নয়’ -বিপ্লবী ছাত্র-যুব আন্দোলন

12417833_1688840634690050_3632575340618560178_n

জেরুজালেম ফিলিস্তিনের রাজধানী, ইজরাইলের নয়

জেরুজালেম নিয়ে ট্রাম্প ও ইজরাইলের চক্রান্তের বিরুদ্ধে প্রতিবাদ করুন

বিপ্লবী ছাত্র-যুব আন্দোলনের জাতীয় কমিটি জেরুজালেম নিয়ে আমেরিকার প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের বক্তব্যের তীব্র প্রতিবাদ জানিয়েছে। কয়েক দশক ধরে ইজরাইল রাষ্ট্র প্রতিষ্ঠার পর থেকে সাম্রাজ্যবাদের প্রত্যক্ষ মদদে ফিলিস্তিনের জনগনের উপর নিপীড়িত ও আগ্রাসন চালাচ্ছে জায়নবাদী ইজরাইল। ইজরাইল রাষ্ট্র ফিলিস্তিনকে একটি যুদ্ধক্ষেত্রে পরিণত করেছে যেখানে মাঝে মাঝেই তারা তাদের নতুন নতুন অস্ত্রের প্রদর্শনী করে অর্থাৎ ফিলিস্তিনকে মারণাস্ত্র পরীক্ষাগার বানিয়েছে। তারা লক্ষ লক্ষ ফিলিস্তিন জনগনকে হত্যা-উচ্ছেদ করছে। এর সাথে সরাসরি রয়েছে সারা বিশ্বের জনগনের শত্রু আমেরিকা। বিপ্লবী ছাত্র-যুব আন্দোলন- ফিলিস্তিনের সংগ্রামী জনতার সাথে সুর মিলিয়ে মনে করে, জেরুজালেম শুধু মাত্র ফিলিস্তিনের জনগনের রাজধানী। এটা ইজরাইলের রাজধানী নয়। ফিলিস্তিনের জনগনের ঐক্যবদ্ধ ফিলিস্তিন ও তার রাজধানী জেরুজালেমই ফিলিস্তিনের জনতার দাবী। মার্কিন প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প তার নগ্ন চেহারা দেখিয়ে দিয়েছে বিশ্ব জনগনের কাছে। ফিলিস্তিন জনগনের মুক্তির লক্ষ্যে, আমেরিকা -ইজরাইলের বিরুদ্ধে বিপ্লবী গণযুদ্ধ গড়ে তোলা ছাড়া দ্বিতীয় কোন উপায় নেই। সমাজতন্ত্র-সাম্যবাদ অভিমূখী একটি গণতান্ত্রিক ফিলিস্তিনই সেখানকার জনগনের মুক্তির পথ। আমরা ফিলিস্তিনের সংগ্রামী জনগনের কাছে সেই আহবান জানাই।

বিপ্লবী ছাত্র-যুব আন্দোলন

25589799_726368200879662_588193509_n