কমিউনিস্ট গেরিলাদের দমনে ‘ডেথ স্কোয়াড’ গঠনের ঘোষণা দিল ফিলিপাইন প্রেসিডেন্ট

NPA2-800x445

ফিলিপাইনের মাওবাদী- নিউ পিপলস আর্মি'(NPA)

মাওবাদী কমিউনিস্ট বিদ্রোহীদের দমনে একটি ‘ডেথ স্কোয়াড’ গঠনের ঘোষণা দিয়েছেন ফিলিপাইনের প্রেসিডেন্ট রদ্রিগো দুতার্তে। বুধবার তিনি বলেছেন, মাদকবিরোধী যুদ্ধের চেয়ে এর ব্যাপকতা বেশি হবে। দুতার্তের এই বক্তব্যের পর উদ্বেগ প্রকাশ করেছে মানবাধিকার সংগঠনগুলো। তাদের আশঙ্কা, দুতার্তের নতুন এই দেশের মানবাধিকার পরিস্থিতি আরো নাজুক হয়ে পড়বে। মানবাধিকার সংস্থাগুলো বলেছে, মাদকের বিরুদ্ধ লড়াইয়ে এরই মধ্যে ডেথ স্কোয়াডগুলো ভয়ংকর পরিবেশ তৈরি করেছে। নতুন করে এই বাহিনী সৃষ্টিতে অবস্থা আরো নাজুক হবে।

পুলিশের দাবি, মাদকের বিরুদ্ধে লড়াইয়ে তাদের হাতে প্রায় পাঁচ হাজার মানুষের মৃত্যু হয়েছে। তবে মানবাধিকার সংস্থাগুলোর দাবি এই নিহতের সংখ্যা অন্তত তিন গুণ বেশি হবে। হিউম্যান রাইটস ওয়াচ এক বিবৃতিতে জানিয়েছে, ‘দুতার্তের এই ঘোষণা বিদ্রোহী, বামপন্থী, বেসামরিক নাগরিক এবং সরকারের সমালোচকদের নির্বিচারে আটকের অধিকার দেবে। তাঁর এই ঘোষণা ফিলিপাইনের অবস্থা আরো নাজুক করে তুলবে।’

বার্তা সংস্থা এএফপির এক খবরে বলা হয়, মঙ্গলবার রাতে দেয়া এক বক্তৃতায় রদ্রিগো দুতার্তে কমিউনিস্ট বিদ্রোহীদের হিট স্কোয়াড হিসেবে পরিচিত ‘স্প্যারো ইউনিটসকে’ লক্ষ্যবস্তু করার কথা বলেন। 

৫০ বছর ধরে কমিউনিস্ট বিদ্রোহীদের বিরুদ্ধে দমন অভিযান চালাচ্ছে ফিলিপাইন সরকার। পূর্ববর্তী সরকারের মতো দুতার্তেও প্রথমে কমিউনিস্টদের সঙ্গে শান্তি আলোচনা করেছিলেন। কিন্তু গত বছর সেনা ও পুলিশ সদস্যদের ওপর ভয়াবহ হামলার পর সে আলোচনা বাতিল হয়ে যায়। কমিউনিস্টদের সঙ্গে আলোচনা ভেস্তে যাওয়ার পর দুতার্তে কমিউনিস্ট পার্টি অব দ্য ফিলিপাইনস এবং ৩৮০০ সদস্যের সশস্ত্র শাখা নিউ পিপলস আর্মিকে (এনপিএ) সন্ত্রাসী সংগঠন হিসেবে আখ্যা দেন। মঙ্গলবার রাতে প্রেসিডেন্ট দুতার্তে তাঁর ভাষণে কমিউনিস্ট বিদ্রোহীদের দমনে ‘স্প্যারো ইউনিট’ নামে বাহিনী গঠনের কথা বলেন। তিনি বলেন, ‘আমি নিজের একটা বাহিনীর অভাব বোধ করছি। এ কারণে কমিউনিস্টরা এখনো মাথাচাড়া দিচ্ছে। সুতরাং আমি নিজের একটা স্প্যারো বাহিনী তৈরি করব।’

ফিলিপাইনের প্রতিরক্ষামন্ত্রী ডেলফিন লোরেনজানা গতকাল বুধবার জানান, তাঁরা এই বাহিনীর পরিকল্পনা নিয়ে পুঙ্খানুপুঙ্খ গবেষণা করবেন। কে এটা পরিচালনা করবে, কে এটা দেখাশোনা করবে এবং কারা এর লক্ষ্যবস্তু হবে, তা নিয়ে কাজ করবেন। এই আইন অপব্যবহারের বড় বিপদ রয়েছে বলেও তিনি জানান।

দুর্তাতের এই পরিকল্পনায় কমিউনিস্ট পার্টির প্রতিষ্ঠাতা ‘হোসে মারিয়া সিসন’ এবিএস-সিবিএন টেলিভিশনকে বলেন, শুধু ১৯৭০ ও ১৯৮০ দশকের দিকে স্প্যারো ইউনিটের অস্তিত্ব ছিল। দুতার্তে তাঁর একাধিক ডেথ স্কোয়াডের কার্যকারিতা প্রমাণে অনেক স্প্যারো ইউনিট তৈরি করছেন, যা অবৈধ।

Advertisements