ফ্যাসিস্ট তুর্কি সেনাবাহিনীর বিরুদ্ধে মাওবাদীদের সাঁড়াশি আক্রমণ, খতম ৩ সেনা, আহত বেশকিছু

12ler_alibogazi_1

গত ১লা জুন তুরস্কের কৃষক ও শ্রমিকদের কমিউনিস্ট গেরিলা সেনাবাহিনী(TIKKO) ফ্যাসিবাদী তুর্কি সেনাবাহিনীর বিরুদ্ধে দুটি হামলা চালায়। এতে তিন জন শত্রু সৈন্যকে খতম করা হয় এবং আনুমানিক অনেক সৈন্যকে আহত করা হয়, যার সংখ্যা স্পষ্ট করা যায় নি। আলিবাগাজী ও বোজান এলাকায় এই হামলা হয়।

এই হামলাটি, গত ২৪ এবং ২৮শে নভেম্বর, ২০১৬ এর মধ্যে দারসিম অঞ্চলে ফ্যাসিস্ট তুরস্ক সেনাবাহিনী কর্তৃক হত্যাকৃত TKP / ML-TIKKO এর ১২ জন শহীদ গেরিলার প্রতি উতসর্গ করা হয়েছে।

 তুরস্কের কৃষক ও শ্রমিকদের কমিউনিস্ট গেরিলা সেনাবাহিনী(TIKKO) হচ্ছে তুরস্কের কমিউনিস্ট পার্টি TKP / ML এর সশস্ত্র শাখা।

সূত্রঃ http://kaypakkayahaber.com/haber/tkpml-tikko-dersim-bolge-komutanligindan-1


তুরস্কঃ মাওবাদী TKP / ML TIKKO এর দারসিম আঞ্চলিক কমান্ডের ১২ জন কমরেড শহীদ হয়েছেন

tumblr_nq1vi8apZ61rgok2xo1_500

২০১৬ সালের ২৪ – ২৮শে নভেম্বর তারিখের মধ্যে ফ্যাসিবাদী তুরস্ক রাষ্ট্রের বাহিনী দারসিম অঞ্চলে এক অভিযান চালায়। এতে রাষ্ট্রীয় বাহিনীর সাথে সংঘর্ষে ১২জন মাওবাদী কমরেড শহীদ হয়।

এই ১২ জন শহীদ কমরেডদের পরিচয়

* কোড: Ahmet / Yetis Alone / ১৯৮০ সালে ফ্রান্সে জন্ম

* কোড: Munzur / Serkan Lamba / ১৯৮৫ সালে মারাসে জন্ম

* কোড: Aşkın / Hasan Karakoç / ১৯৮০ সালে দারসিমে জন্ম

* কোড: Cem / Umut Polat / ১৯৯৩ সালে দারসিমে জন্ম

* কোড: Bakış / Samet Tosun / ১৯৯৬ সালে তোকাতে জন্ম

* কোড: Orhan / Alişêr Bulut / ১৯৯২ সালে দারসিমে জন্ম

* কোড: Tuncay / Murat / ১৯৯৩ সালে পেরতেকে জন্ম

* কোড: Hakan / Ersin Erel / ১৯৮৭ সালে দারসিমে জন্ম

* কোড: Ferdi / Doğuş Fırat / ১৯৯৮ সালে এরজিনকানে জন্ম

* কোড: Zilan / Esrin Güngör / ১৯৯৫ সালে দারসিমে জন্ম

* কোড: Özlem / Hatayi Balcı / ১৯৯৪ সালে দারসিমে জন্ম

* কোড: Ekin / Gamze Gülkaya / ১৯৯৫ সালে দারসিমে জন্ম

সূত্রঃ ANF


তুরস্কে ধর্ষক ধর্ষিতাকে বিয়ে করলে অপরাধ মাফ হয়ে যাবে

b9f252c5-3554-45e3-8da7-b56786b85049

গত নভেম্বর মাস থেকে তুরস্কে ধর্ষক ধর্ষিতাকে বিয়ে করলে ধর্ষকের অপরাধ মাফ হয়ে যাবে বলে আইন পাশ করার চেষ্টা চালাচ্ছে তুরস্ক সরকার।

তুরস্ক মধ্যপ্রাচ্যের ইসলামি দেশ। এই আইন পাশ হলে তুরস্কের সমাজে ধর্ষণের প্রবণতা আরো বৃদ্ধি পাবে তাতে কোনো সন্দেহ নেই। তুরস্কে ধর্ষণের হার আমাদের দেশের তুলনায় অনেক বেশি। তাদের জেলখানাতেই ৩ হাজার ধর্ষক আসামি রয়েছে। এরা প্রত্যেকেই দাগি আসামি। এর বাইরে যে কত ধর্ষক রয়েছে তার হিসেব নেই।

এই আইন নিজেই পুরুষতান্ত্রিক নারী বিরোধী একটি আইন। একজন ধর্ষক ধর্ষিতার নিকট, সমাজে, রাষ্ট্রে অপরাধী, নিপীড়ক। এই অপরাধীর সাথে একটি মেয়েকে বিয়ে দিতে চাওয়াটাই তুরস্ক রাষ্ট্র এবং সরকারের অপরাধ, অন্যায়।

তুরস্ক ইসলামি একটি দেশ। সেখানে বহু বিবাহের প্রচলন রয়েছে। তাদের ধর্মীয় মতানুসারে একজন পুরুষ ডজন খানেক বিয়ে করতে পারে এবং একইসাথে ৪ জন স্ত্রী রাখার বিধান রয়েছে। ধর্ষকেরা আইনের মাধ্যমে উল্লিখিত ধর্ষণের বৈধতা পেয়ে যাবে। সমাজে ধর্ষণের মতো অপরাধ বেড়ে যাবে। কারণ ধর্ষণের পর ধর্ষিতাকে বিয়ে করলেই অপরাধ মাফ হয়ে যাবে।

তুরস্কের সরকার ও রাষ্ট্র যে নারী বিরোধী এবং পুরুষতান্ত্রিক তার আরো একটি প্রমাণ মেলে এই আইন পাশ করার যে পায়তারা করছে তার মাধ্যমেও।

আমাদের দেশে হাসিনা সরকার মেয়েদের বিয়ের বয়স ১৮ করে তার আগেও বিয়ে হতে পারে- এভাবে আইন পাশ করতে যাচ্ছে। হাসিনা তার এক ভাষণে এই আইনের পক্ষে সাফাই গাইতে গিয়ে বলেই ফেলেছে ১৮ বছরের আগে অনাকাঙ্ক্ষিত গর্ভধারণ করলে তার মঙ্গলের জন্য বিশেষ ব্যবস্থা রাখতে হবে। হাসিনা যা বুঝাতে চেয়েছে তাহলো ১৮ বছর বয়সের আগে ধর্ষিত হলে ধর্ষকের সাথে বিয়ে দেয়া যাবে ইত্যাদি।

হাসিনা সরকার কার্যত তুরস্কের মতো আবস্থান নিয়েছে। এর মূল কারণ তুরস্ক এবং বাংলাদেশের শাসক শ্রেণির দৃষ্টিভঙ্গি একই রকম, নারীর বিরুদ্ধে- পুরুষতান্ত্রিক।

বিয়ের বয়স ১৮-এর নিচে করার বিরুদ্ধে আমাদের দেশের প্রগতিশীল নারী ও সংগঠন প্রতিবাদ করছেন। তুরস্কের প্রতিক্রিয়াশীল আইন পাশের বিরুদ্ধেও তুরস্কের প্রগতিশীল নারীসহ সকল স্তরের জনগণকে আন্দোলন করতে হবে। এবং এই আন্দোলনকে নারীমুক্তির শত্রু সাম্রাজ্যবাদ-আমলা মুৎসুদ্দি পুঁজিবাদ এবং সামন্ততন্ত্রের বিরুদ্ধে কেন্দ্রিভূত করতে হবে। এই আন্দোলনে নেতৃত্ব দিচ্ছে তুরস্কের মাওবাদী কমিউনিস্ট বিপ্লবীরা। যার চূড়ান্ত লক্ষ্য সমাজতন্ত্র-সাম্যবাদী সমাজ ব্যবস্থা। শুধুমাত্র এই সমাজ ব্যবস্থাই পারে তুরস্কের ধর্ষিত, নিপীড়িত, অবহেলিত নারীদেরকে মধ্যযুগীয় ধর্মান্ধতা থেকে সার্বিক মুক্তি দিতে।

ডিসেম্বর/’১৬

সূত্রঃ নারী মুক্তি, মার্চ ২০১৭ সংখ্যা


তুরস্কে মাওবাদী গ্রামগুলোকে “অস্থায়ী সামরিক নিরাপত্তা অঞ্চল” ঘোষণা

ovacik-1-800x445

তুরস্কের দারসিমের প্রাদেশিক সরকার ওয়েব সাইটে প্রকাশিত এক লিখিত বিবৃতিতে, ৩১টি অঞ্চলের শহরের কেন্দ্রে এবং Ovacık, Nazımiye এবং Hozat জেলায় ৬ মাসের জন্য(১লা সেপ্টেম্বর, ২০১৬ থেকে ১লা মার্চ, ২০১৭)  প্রবেশ নিষিদ্ধ করেছে।

তুরস্ক রাষ্ট্রের মধ্যে এই গ্রামগুলোতে মাওবাদীদের উপস্থিতি যথেষ্ট শক্তিশালী ছিল। এর মধ্যে Ovacık জেলার মেয়র তুরস্কে “কমিউনিস্ট মেয়র” হিসেবে পরিচিত। তিনি DHF নামে মাওবাদী গণ সংগঠনের একজন সদস্য।

সূত্রঃ http://www.redspark.nu/en/peoples-war/turkey/dersim-maoist-villages-declared-as-temporary-military-security-zone/


তুরস্কে সেনাবাহিনীর উপর মাওবাদী গেরিলাদের হামলা, খতম ১ সেনা

hko-cevizlidere-eylemi

গত ১৭ই জুলাই তুরস্কের মাওবাদী কমিউনিস্ট পার্টির(MKP) সশস্ত্র শাখা পিপলস লিবারেশন আর্মি (HKO) এর গেরিলারা Ovacik Cevizlidere শহরে টহলরত প্রতিক্রিয়াশীল সেনাদের উপর অতর্কিত আক্রমণ চালায়।  এতে গেরিলারা সফল ভাবে ১ সেনাকে খতম করেছে।


তুর্কি সেনাদের বিরুদ্ধে ল্যান্ড মাইন হামলায় দায়দায়িত্ব স্বীকার করেছে বিপ্লবী HBDH

HBDH

HBDH

গত ১১ই জুন তুরস্কের হাতায় এর ইস্কেন্দেরুনে বিপ্লবীদের যৌথ সংগঠন HBDH এর গেরিলা সদস্যদের পুঁতে রাখা ল্যান্ড মাইন বিস্ফোরণে ফ্যাসিস্ট সশস্ত্র বাহিনীর একজন অফিসার গুরুতর জখম হয়।   


তুরস্কে পুলিশের প্রধান কার্যালয়ে কমিউনিস্টদের হামলা, শহীদ ২ নারী কমরেড

failedturkeyattack-crop

তুরস্কের ইস্তাম্বুলে পুলিশের প্রধান কার্যালয়ে ২ নারী কমিউনিস্ট হামলা চালানোর পর পুলিশের গুলিতে নিহত হয়েছে বলে জানিয়েছে গণমাধ্যম।

শহর কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে পুলিশ ভবনে বন্দুক এবং গ্রেনেড নিয়ে হামলার পর দুই নারী কমিউনিস্ট পাশের একটি ভবনে লুকিয়ে ছিল। এ সময় পুলিশ অভিযান চালালে ঘণ্টা ব্যাপী সংঘর্ষ বেধে যায়। পরে ভবন থেকে তাদের মৃতদেহ উদ্ধার করা হয়। সংঘর্ষে দুই পুলিশ সদস্যও আহত হয়েছে বলে জানিয়েছে তারা।

এদিকে তুরস্কের মার্কসবাদী লেনিনবাদী কমিউনিস্ট পার্টি- রেভ্যুলেশনারী পিপলস লিবারেশন পার্টি “ডিএইচকেপি-সি” এক বিবৃতিতে জানায়, দুই নারী কমরেড ‘বেরনা ইলমিয ও ফেরহাত তুযের’ তাদের নির্দেশে এই হামলা চালিয়েছে। এর পূর্বে ২০১০ সালে এরদোগানের বক্তৃতা করার সময় বিনামূল্যে শিক্ষার দাবি সম্বলিত একটি ব্যানারে নিয়ে আন্দোলনের জন্য এই দুই নারী কমরেড ১৯ মাস কারাগারে বন্দী ছিলেন।

অনুবাদ সূত্রঃ ANF News এবং Bianet