নেপালঃ সিপিএন(মাওবাদী) স্বায়ত্তশাসিত প্রদেশ ঘোষণা করেছে

নেত্র বিক্রম চাঁদ

নেত্র বিক্রম চাঁদ

গতকাল নেত্র বিক্রম চাঁদ-নেতৃত্বাধীন সিপিএন মাওবাদী লুম্বিনি জোনের তিনটি জেলাকে একত্রিত করে ‘অবাধ‘ নামে স্বায়ত্তশাসিত রাজ্য ঘোষণা করে সমান্তরাল সরকার ব্যবস্থা চালু করেছে। বুতয়াল, রুপান্দেহিতে অনুষ্ঠিত সম্মেলনে চাঁদ নেতৃত্বাধীন মাওবাদীরা এক ইশতেহারে  রুপান্দেহি, নাওালপারাসি এবং কপিলাবস্তু জেলাকে নিয়ে ‘অবাধ’ নামে স্বায়ত্তশাসিত রাজ্য ঘোষণা করেন। এ প্রসঙ্গে পলিটব্যুরো সদস্য ও বিপ্লবী পিপলস কাউন্সিল নেপালের প্রধান সন্তোষ বুধামাগার মাওবাদী বিদ্রোহের সময় স্বাধীন প্রদেশ গঠনের তুলনা করে বলেন, এটিও একই কেন্দ্রগত ভূমিকা পালন করবে। ‘অবাধ’ রাজ্য ঘোষণার পর আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে, মাওবাদী পলিটব্যুরো সদস্য সন্তোষ বুধামাগার বলেন, তার পার্টি শীঘ্রই পিপলস কাউন্সিল ও স্বায়ত্তশাসিত রাজ্যের নিয়ম ও প্রবিধান জনসমক্ষে প্রকাশ করবে।

এর আগে মাওবাদীরা স্বায়ত্তশাসিত রাজ্য হিসেবে মাগ্রাট, তামসালিং ও থারুকে ঘোষণা করেছিল।

অবাধ রাজ্য ঘোষণার পর আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে মাওবাদীদের পলিটব্যুরো সদস্য সন্তোষ বুধামাগার বলেন, তার দল বিক্ষোভের আকার উন্মুক্ত রেখেছিল। তিনি সতর্ক করে দিয়ে বলেন, তারা যদি দমনের শিকার হন, তবে তারা সরকারের বিরুদ্ধে প্রতিহিংসার পথে যাবেন। বুধামাগার বলেন, নেপালের সীমান্ত পয়েন্ট ভারতের অবরোধের পর  সরকার জনগণের মৌলিক সমস্যার সমাধান করতে অক্ষম ছিল, ফলে পার্টি তার পুরোনো কাঠামো পুনরুজ্জীবিত করতে বাধ্য হয়”।

অভিযোগে আছে যে, তার পার্টি বিলুপ্ত রাজতন্ত্র পুনরুজ্জীবিত করার জন্যে যুদ্ধ করেছে।

এ প্রসঙ্গে বুধামাগার ব্যাখ্যা করে বলেন যে, তার পার্টি  রাজতন্ত্র বিলোপের জন্য দশ বছর যুদ্ধ করেছে। তিনি সতর্ক করে দিয়ে বলেন, যদি প্রয়োজন দেখা দেয়, তবে তার পার্টির যুবকরা যে কোন মুহূর্তে অস্ত্র ব্যবহার করতে পারেন।

অনুবাদ সূত্রঃ http://thehimalayantimes.com/nepal/cpn-m-declares-autonomous-province/