মেহেরপুরে পূর্ব বাংলার কমিউনিস্ট পার্টি (এমএল) এর শতাধিক প্রচারপত্র ও বোমা উদ্ধার

132809a

মেহেরপুর এক আইনজীবীর চেম্বারের সিঁড়িঘর থেকে তিনটি ককটেল এবং পূর্ব বাংলার কমিউনিস্ট পার্টি (এমএল) লেখা শতাধিক প্রচারপত্র উদ্ধার করেছে পুলিশ।

আজ সোমবার সকাল ৯টায় মেহেরপুর সদর থানার উপপরিদর্শক (এসআই) রবিউল ইসলামের নেতৃত্বে পুলিশের একটি দল এগুলো উদ্ধার করে।

উদ্ধার করা এই প্রচারপত্রে লেখা রয়েছে, ‘জনগণের ঘৃণিত শত্রু  নজরুল খতম প্রসঙ্গে পার্টির বীর গেরিলা, শুভানুধ্যায়ী ও বিপ্লবী জনগণের প্রতি আমাদের আহ্বান।’ দুই পাতার এ প্রচারপত্রে চুয়াডাঙ্গা আলমডাঙ্গা উপজেলা বন তিত্তরাবিলের নজরুলকে বেপরোয়া কার্যক্রমের বর্ণনা ও তাকে খতম করার কথা স্বীকার করা হয়েছে।  এ ছাড়া গত ২১ এপ্রিল পূর্ব বাংলার কমিউনিস্ট পার্টি (এমএল লাল-পতাকা) এবং পূর্ব বাংলার কমিউনিস্ট পার্টি (এমএল-জনযুদ্ধ) নামের সংগঠন দুটিকে বিলুপ্ত করে পূর্ব বাংলার কমিউনিস্ট পার্টি (এমএল) নামে পার্টি গঠনের কথাও বলা হয়েছে।

স্থানীয় লোকজনের সঙ্গে কথা বলে জানা যায়, মেহেরপুর আইনজীবী সমিতির ভবন, যা নিমতলা ভবন নামে পরিচিত, এর পাশের ভবনের সিঁড়ি ঘরে লাল টেপ মোড়ানো তিনটি ককটেল ও কাগজপত্র দেখতে পেয়ে পুলিশ খবর দেয় প্রত্যক্ষদর্শীরা।  পরে পুলিশ এসে ঘটনাস্থল থেকে ককটেল ও শতাধিক প্রচারপত্র উদ্ধার করে।

সংশ্লিষ্টদের সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, ভবনটির দ্বিতীয় তলায় আওয়ামী লীগ নেতা আইনজীবী ইয়ারুল ইসলামের চেম্বার ও একটি নোটারি পাবলিকের অফিস রয়েছে।

সূত্রঃ ntv
Advertisements

ঝিনাইদহে ‘পূর্ববাংলার কমিউনিস্ট পার্টি’র সদস্য গ্রেপ্তার

 সূত্রঃ http://bangla.bdnews24.com/samagrabangladesh/article1163594.bdnews


বাংলাদেশঃ পাবনায় পূর্ববাংলার কমিউনিস্ট পার্টি’র নেতাকে হত্যা

santhia

পাবনার সাঁথিয়া উপজেলার একটি আমবাগানে দিনে -দুপুরে ইব্রাহিম হোসেন (৩৫) নামে পূর্ববাংলার কমিউনিস্ট পার্টি (এমএল) এর আঞ্চলিক এক নেতাকে কুপিয়ে হত্যা করেছে দুর্বৃত্তরা।

মঙ্গলবার (১৯ এপ্রিল) দুপুর ১টার দিকে উপজেলার ভুলবাড়িয়া ইউনিয়নের ভায়নাপাড়া গ্রামের একটি আমবাগানে ‍তাকে হত্যা করা হয়। তিনি ওই গ্রামের মৃত মোন্তাজ ব্যাপারীর ছেলে।

আতাইকুলা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আব্দুর রাজ্জাক ও স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, গতকাল দুপুর ১২টার দিকে ইব্রাহিম নিজ বাড়ির পাশে বাগানে ঘুমাচ্ছিল। এ সময় দুর্বৃত্তরা ধারালো অস্ত্র দিয়ে তাকে কুপিয়ে হত্যা করে চলে যায়।

ইব্রাহিমের বিরুদ্ধে সাঁথিয়া ও আতাইকুলা থানায় হত্যাসহ একাধিক মামলা রয়েছে বলে ওসি জানায়।

সূত্রঃ mzamin