নিউ ইয়র্কে গৃহহীন মানুষের সংখ্যা ৬০০০০, তাদের ৪০ শতাংশ শিশু

images

প্রত্যেক রাতে নিউ ইয়র্কে অন্তত ৬০ হাজার মানুষ রাস্তার ফুটপাতে ঘুমান, এর মধ্যে ৪০ শতাংশ শিশু। এসব গৃহহীন মানুষের সংখ্যা আগের যেকোনো সময়ের চেয়ে বেশি।

সম্প্রতি যুক্তরাষ্ট্রের ন্যাশনাল সেন্টার অন ফ্যামিলি হোমলেসের এক প্রতিবেদনে এ তথ্য উঠে এসেছে। প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, দেশটিতে গৃহহীন পরিস্থিতি জটিল হচ্ছে। আর এসব গৃহহীন মানুষ নিরুপায় হয়ে রাস্তায় থাকছে। শুধুমাত্র নিউ ইয়র্কেই অন্তত ৮ লাখ ৪০ হাজার মানুষ বসবাস করে। কিন্তু ১৯৩০ সালের পর এই প্রথম শহরটিতে গৃহহীন মানুষের পরিমাণ সবচেয়ে বেশি। ২০১৪ সালে নিউ ইয়র্ক শহরে প্রত্যেক রাতে ৬০ হাজার মানুষ রাস্তায় রাত কাটিয়েছেন।
ওই প্রতিবেদনে আরো বলা হয়েছে,এটা শুধুমাত্র নিউ ইয়র্ক শহরে গৃহহীন মানুষের পরিস্থিতি। কিন্তু দেশটির অন্যান্য শহরের অবস্থা সম্পর্কে কোনো কিছু বলা হয়নি।

সূত্রঃ https://www.rt.com/usa/319799-homelessness-new-york–children/

Advertisements

যুক্তরাষ্ট্রঃ বর্ণবাদী কনফেডারেট পতাকা নামিয়ে ফেললেন আফ্রিকান বংশোদ্ভূত বিদ্রোহী মার্কিন নারী

image

concommenters0

যুক্তরাষ্ট্রের সাউথ ক্যারোলাইনার আইনসভা ভবন থেকে কনফেডারেট পতাকা সরিয়ে নিয়েছেন এক বিক্ষোভকারী। বর্ণবাদের প্রতীক হিসেবে চিহ্নিত পতাকাটি নিয়ে চলমান বিতর্কের মধ্যে এ ঘটনা ঘটল।

অবশ্য গত শনিবার স্থানীয় সময় ভোরে পতাকাটি নামিয়ে ফেলার এক ঘণ্টার মধ্যেই সেখানে নতুন আরেকটি উত্তোলন করা হয়। পতাকা নামানোর ঘটনায় জড়িত কৃষ্ণাঙ্গ নারী ব্রি নিউসামকে (৩০) গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। ৩০ ফুট উঁচু খুঁটি থেকে পতাকা নামাতে নিউসামকে সহায়তা করার অভিযোগে জেমস ইয়ান টাইসন নামের এক শ্বেতাঙ্গ যুবককে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। তাঁদের দুজনের বিরুদ্ধেই গুরুত্বপূর্ণ স্থাপত্যের বিকৃতি ঘটানোর অভিযোগ আনা হয়েছে।

নিউসামকে গ্রেপ্তারের ঘণ্টাখানেকের মধ্যে তাঁর ছবি সামাজিক যোগাযোগের মাধ্যমগুলোতে ব্যাপক আলোড়ন তোলে। ছবিতে দেখা যায় একজন পুলিশ কর্মকর্তা তাঁকে পেছনে হাতকড়া পরা অবস্থায় নিয়ে যাচ্ছে। টুইটারে ফ্রিব্রি নামের হ্যাশটাগে হাজার মানুষ যোগ দেয়। অন্যদিকে অনলাইনভিত্তিক একটি জনহিতকর ওয়েবসাইট এক ঘণ্টারও কম সময়ে নিউসামের জামিনের জন্য ৮০ হাজার ডলারের বেশি অর্থ সংগ্রহ করে। একই সঙ্গে ‘কৃষ্ণাঙ্গদের বেঁচে থাকার আন্দোলনে সরাসরি হিস্যা নিতে’ বিভিন্ন কর্মকাণ্ডে সহায়তা করতেও তহবিল জোগাড় করা হয়।

গত সপ্তাহে অঙ্গরাজ্যটির চার্লসটনে একটি গির্জায় এক শ্বেতাঙ্গের গুলিতে ৯ কৃষ্ণাঙ্গ নিহত হয়। ওই ঘটনায় গ্রেপ্তার হওয়া ডিলান রুফের (২১) অনলাইনে পোস্ট করা অনেক ছবিতে কনফেডারেট পতাকা দেখা যায়। এর পর থেকে পতাকাটি নিয়ে দেশে-বিদেশে বিতর্ক জোরালো হয়েছে।

যুক্তরাষ্ট্রের গৃহযুদ্ধের সময় (১৮৬১-১৮৬৫ সাল) দাসপ্রথা বিলোপের প্রশ্নে দেশটি বিভক্ত হয়ে পড়ে। দক্ষিণের ১১টি রাজ্য কেন্দ্রের দাসপ্রথা বিলোপের সিদ্ধান্তের বিপক্ষে অবস্থান নিয়ে নিজেদের ‘কনফেডারেট স্টেট অব আমেরিকা’ বলে ঘোষণা দেয়। এই কনফেডারেট রাজ্যগুলোর সেনাবাহিনীর পতাকাই কনফেডারেট পতাকা হিসেবে পরিচিত।

নিউসাম এক বিবৃতিতে শনিবার বলেছেন, ‘আমরা আজই পতাকা সরিয়ে নিয়েছি। কারণ, আমরা আর দেরি করতে পারছিলাম না। সময় এখন নতুন অধ্যায় সূচনা করার, যেখানে শ্বেতাঙ্গদের আধিপত্য নিরসনের ব্যাপারে সচেতন থাকতে হবে।’ 

সূত্রঃ

AFP

http://www.washingtonpost.com/news/post-nation/wp/2015/06/27/woman-takes-down-confederate-flag-in-front-of-south-carolina-statehouse/


যুক্তরাষ্ট্রে প্রতিদিন ৩৩ জন বিচার বহির্ভূত হত্যার শিকার

justiceblind

যুক্তরাষ্ট্রে প্রতিদিন আগ্নেয়াস্ত্রের গুলিতে গড়ে ৩৩ জন মানুষ বিচার বহির্ভূত হত্যার শিকার হচ্ছে। সম্প্রতি প্রকাশিত ফেডারেল প্রশাসনের একটি প্রতিবেদনে এই তথ্য পাওয়া যায়।

প্রতিবেদনের ফলাফল অনুযায়ী গত ১৯ জুনের আগ পর্যন্ত আড়াই বছরে বন্দুকের গুলিতে ২৯ হাজার ৭ শ’ ৯৫ জনের মৃত্যু হয়েছে। আর এই হতাহতের বড় একটি অংশ শিশু-কিশোর। শিক্ষা প্রতিষ্ঠান, চার্চ, রেস্টুরেন্ট ও জনসমাগমে এসব অতর্কিত হামলা হয়েছে।

সর্বশেষ সাউথ ক্যারোলাইনার চার্লস্টনে শত বছরের পুরনো গির্জায় এক বন্দুকধারীর গুলিতে ৯ জন নিহত হন।


যুক্তরাষ্ট্রে দুই পুলিশ কর্মকর্তাকে গুলি করে হত্যা

file (1)

যুক্তরাষ্ট্রের মিসিসিপি রাজ্যে দুই পুলিশ কর্মকর্তাকে গুলি করে হত্যা করা হয়েছে বলে স্থানীয় এক গণমাধ্যমের খবরে জানানো হয়েছে।

শনিবার মিসিসিপির হ্যাটিসবার্গে এ ঘটনা ঘটেছে বলে স্থানীয় টেলিভিশন স্টেশন ডাব্লিউডিএএম জানিয়েছে।

ঘটনার পর পুলিশেরই একটি গাড়ি নিয়ে গুলিবর্ষণকারীরা ঘটনাস্থল থেকে পালিয়ে যায় বলে প্রকাশিত প্রতিবেদনে বলা হয়েছে। পরে স্থানীয় একটি রেল গুদামের কাছে পুলিশের গাড়িটি পরিত্যক্ত অবস্থায় পাওয়া যায়।

স্থানীয় কর্মকর্তাদের বরাত দিয়ে ডাব্লিউডিএএম জানিয়েছে, সন্দেহভাজনদের খোঁজে আইনপ্রয়োগকারী সংস্থাগুলো ওই এলাকায় তল্লাশি শুরু করেছে।

এলাকাটি মিসিসিপির জ্যাকসন শহর থেকে ১২৯ কিলোমিটার দক্ষিণপূর্বে।

বার্তা সংস্থা রয়টার্স জানিয়েছে, ঘটনার বিষয়ে পুলিশের এক মুখপাত্রের সঙ্গে যোগাযোগ করা হলে তিনি কোন মন্তব্য করতে রাজি হননি, অপরদিকে হ্যাটিসবার্গ পুলিশ বিভাগের সঙ্গে ঘটনা নিশ্চিত করতে তাৎক্ষণিকভাবে যোগাযোগও করা যায়নি।

প্রকাশিত খবর অনুযায়ি, গুলিবিদ্ধ পুলিশ কর্মকর্তাদের হ্যাটিসবার্গের ফরেস্ট জেনারেল হাসপাতালে নেওয়া হলে সেখানে তাদের মৃত ঘোষণা করা হয়।

ঘটনাস্থল থেকে প্রতিবেদন দেওয়া ডাব্লিউডিএএম-র সাংবাদিক রায়ান মুর এক টুইটার বার্তায় জানিয়েছেন, একটি ট্র্যাফিক সিগন্যালে ওই দুই পুলিশ কর্মকর্তা গুলিবিদ্ধ হন, এরপর সন্দেহভাজন গুলিবর্ষণকারীরা পুলিশের একটি গাড়ি নিয়ে পালিয়ে যায়।

সূত্রঃ http://bangla.bdnews24.com/world/article966196.bdnews


যুক্তরাষ্ট্রের বাল্টিমোরে বর্ণ বৈষম্যের প্রতিবাদে খণ্ড যুদ্ধ চলছে, সাত পুলিশ জখম

freddie-gray-arrest-record-2

balti

 

সুত্র – http://samayikprasanga.in/epaper.php?pn=5