বাংলাদেশঃ যশোরে কথিত বন্দুকযুদ্ধে পূর্ব বাংলার কমিউনিস্ট পার্টি (এমএল) এর সদস্য নিহত

jessore

যশোরের অভয়নগরে প্রতিপক্ষের মধ্যে কথিত ‘বন্দুকযুদ্ধের’ ঘটনায় বিদ্যুৎ কুমার রায় (৩৫) নামে পূর্ব বাংলার কমিউনিস্ট পার্টি (এমএল) এর একজন সদস্য নিহত হয়েছেন। বুধবার ভোররাতের দিকে অভয়নগরের রানাগাতি শ্মশান ঘাট এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। তবে স্থানীয়রা বলছেন ঘটনাটি সাজানো।

অভয়নগর থানার ওসি শেখ নাসির উদ্দিনের ভাষ্য অনুযায়ী,রাত আড়াইটার দিকে দুই প্রতিপক্ষ দলের মধ্যে বন্দুকযুদ্ধ শুরু হওয়ার খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে গেলে সবাই পালিয়ে যায়। বিদ্যুৎকে গুলিবিদ্ধ অবস্থায় পড়ে থাকতে দেখা যায়। পরে সেখান থেকে রাত সোয়া তিনটার দিকে বিদ্যুৎকে অভয়নগর স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নেওয়া হলে ডাক্তাররা তাকে মৃত ঘোষণা করেন। ওসি আরো জানান, বিদ্যুতের বিরুদ্ধে হত্যা, বিস্ফোরকসহ মোট ৯টি মামলা রয়েছে। পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে একটি পাইপগান ও তিনটি গুলির খোসা উদ্ধার করেছে।

প্রসঙ্গত, পুলিশের বন্দুকযুদ্ধের সাজানো গল্পের ঘটনা ঘটেই চলেছে। সেই গল্পে এবার বিদ্যুতের মৃত্যুটি সংযুক্ত হল।

সূত্রঃ http://www.thedailystar.net/country/outlaw-killed-rivals-181648


বাংলাদেশঃ রাজবাড়ীতে পুলিশের কথিত বন্দুকযুদ্ধে পূর্ববাংলা সর্বহারা পার্টির (মাওবাদী বলশেভিক পুনর্গঠন আন্দোলন-MBRM) নেতা নিহত

pisci shahin-5-11-15_2764রাজবাড়ী সদর উপজেলার আলীপুরে ডিবি পুলিশের সঙ্গে কথিত বন্দুকযুদ্ধে শাহীনুর রহমান (৩৯) নামে এক যুবক নিহত হয়েছেন। বুধবার রাত ৩টার দিকে আলীপুরের রহিমপুরে কথিত এ বন্দুকযুদ্ধের ঘটনা ঘটে।

পুলিশ জানায়, শাহীন পূর্ববাংলার সর্বহারা পার্টির (মাওবাদী বলশেভিক পুনর্গঠন আন্দোলন) নেতা। রাজবাড়ী ডিবি পুলিশের সাব ইন্সপেক্টর কামাল হোসেনের বক্তব্য অনুযায়ী, সোমবার গ্রেফতারকৃত MBRM এর রাজবাড়ী জেলার আঞ্চলিক নেতা আকরাম হোসেনের দেয়া তথ্যের ভিত্তিতে শাহীনকে বুধবার সন্ধ্যায় গ্রেফতার করা হয়। আগ্নেয়াস্ত্র উদ্ধারের জন্য ডিবি পুলিশ শাহীনকে নিয়ে যায়। এসময় শাহীনের সাথে থাকা দুই সহযোগী পুলিশকে গুলি করলে পুলিশ পাল্টা গুলি চালায়। পালানোর চেষ্টাকালে পুলিশ শাহীনকে গুলি করে। রাজবাড়ী সদর হাসপাতালে নেয়ার পর কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করে।  পুলিশ আরো জানায়, ২০১৩ সালের ফেব্রুয়ারিতে গোয়ালন্দ ঘাটে পুলিশের একটি দলের উপর বোমা নিক্ষেপ করেছিল শাহীনুর।
উল্লেখ্য যে, এ ধরনের কথিত বন্দুকযুদ্ধের কাহিনী পুলিশ নিয়মিত একইভাবে সাজিয়ে আসছে।
অনুবাদ সূত্রঃ http://www.thedailystar.net/country/3-killed-separate-gunfights%E2%80%99-167758

ভারতঃ ৩০শে সেপ্টেম্বর ‘এসেম্বলি চল’ শীর্ষক প্রতিবাদ

12004887_1155189277830625_3201026931100461318_n

12027772_1155206274495592_2852349268622743635_n

12036371_1155500151132871_623092811855436327_n

সাজানো বন্দুকযুদ্ধে সাম্প্রতিক হত্যাকাণ্ডের বিশদ তদন্তের দাবীতে আগামী ৩০শে সেপ্টেম্বর ‘এসেম্বলি চল’ শীর্ষক প্রতিবাদ প্রদর্শনের ডাক দিয়েছে তেলেঙ্গানা ডেমোক্রেটিক ফ্রন্ট এর ব্যানারে বিভিন্ন গণ সংগঠন। শুক্রবার প্রতিবাদের পোস্টার প্রকাশ কালে বিপ্লবী কবি ভারাভারা রাও বলেন,  মাওবাদী পার্টির এজেন্ডা বাস্তবায়ন করার যে প্রতিশ্রুতি মুখ্যমন্ত্রী কে চন্দ্রশেখর রাও দিয়েছিলেন, তা পালন করতে তিনি ব্যর্থ হয়েছেন। তার পরিবর্তে তিনি মাওবাদী পার্টির সদস্যদের অপসারণ করতে তাদের বিরুদ্ধে সন্ত্রাস লেলিয়ে দিয়েছেন।

বন্দুকযুদ্ধটিকে ‘সাজানো’ বর্ণনা করে গোবিন্দরাওপেট মণ্ডলের মদ্দুলাগুত্তায় সংঘটিত শ্রুতি ও বিদ্যাসাগর রেড্ডিকে হত্যার অপারেশনে অংশগ্রহণকারী পুলিশদেরকে এই হত্যাকাণ্ডের জন্য দায়ী হিসেবে অভিযুক্ত করেন ভারাভারা রাও। তিনি দাবী জানান, “এই হত্যাকাণ্ডের জন্য রাজ্য সরকারকে দায়ভার নিতে হবে। সরকারকে এই সাজানো বন্দুকযুদ্ধের বিশদ তদন্তের নির্দেশ দিতে হবে”। বিভিন্ন গণ সমিতি ও গণতান্ত্রিক সংগঠন একত্রে হাত মিলিয়ে এই হত্যাকাণ্ডের প্রতি নিন্দা জানায়। শ্রুতির পিতা সুদর্শন বলেন, এটি অত্যন্ত পরিস্কার যে হত্যা করার আগে তার মেয়েকে ধর্ষণ করা হয়েছে ও নৃশংস নির্যাতন চালানো হয়েছে।

সূত্রঃ http://www.thehindu.com/news/national/telangana/chalo-assembly-protest-on-september-30/article7691647.ece