কলম্বিয়ার মার্কসবাদী গেরিলা সংগঠন ‘ফার্ক'(FARC) সংবাদ –

farc_139720
ফার্ক গেরিলাদের বিরুদ্ধে সেনা অভিযান
farc
farc-jpg
ফার্ক গেরিলা
কলম্বিয়ার উত্তর-পশ্চিমাঞ্চলে সামরিক বাহিনীর অভিযানে সোমবার অন্তত মার্কসবাদী ৫ ফার্ক গেরিলা নিহত হয়েছে। এ ঘটনা মার্কসবাদী সংগঠনটির সঙ্গে সরকারের চলমান শান্তি আলোচনাকে হুমকির মুখে ঠেলে দিচ্ছে।
সামরিক সূত্রের বরাতে বুধবার বার্তা সংস্থা এএফপি জানায়, প্রত্যন্ত চোকো এলাকায় এই বোমা হামলায় গেরিলা যোদ্ধারা নিহত হয়। তবে ওই হামলা সম্পর্কে বিস্তারিত তথ্য জানানো হয়নি।
হাভানায় মার্কসবাদী রিভোল্যুশনারি আর্মড ফোর্সেস অব কলম্বিয়া (ফার্ক)-এর সঙ্গে সরকারের দ্বিপক্ষীয় শান্তি আলোচনা অব্যাহত থাকলেও সাম্প্রতিক দিনগুলোতে সরকারি সেনারা মার্কসবাদী গেরিলা সংগঠনটির ওপর সামরিক হামলা চালিয়ে আসছে।
প্রেসিডেন্ট জুয়ান ম্যানুয়েল সান্টোস গত মাসে মার্কসবাদী সংগঠনটির ওপর বিমান হামলার নিষেধাজ্ঞা তুলে নেয়ার পর এটাই সবচেয়ে বড় ধরনের হামলার ঘটনা।
গেরিলাদের হামলায় ১১ সেনা নিহত হওয়ার পর এপ্রিল মাসে এ অভিযান শুরু হয়।
এখন পর্যন্ত গেরিলাদের ওপর সেনাবাহিনীর চলমান অভিযানে ৪০ গেরিলা নিহত হয়েছে।
গত সপ্তাহে সেনাবাহিনীর বিমান হামলায় ২৬ গেরিলা নিহত হওয়ার পর ফার্ক শুক্রবার অস্ত্রবিরতি প্রত্যাহার করে এবং উভয়পক্ষের মধ্যে শান্তি আলোচনা স্বল্পসময়ের জন্য স্থগিত হয়ে যায়।
eln_guerrillas_s_youtube-770x433

ELN গেরিলা

এদিকে – কলম্বিয়ার দ্বিতীয় বৃহত্তম বিদ্রোহী গেরিলা গ্রুপ ELN , সেনা আক্রমণে ফার্কের ২৬ গেরিলা নিহত হওয়ার পর, ফার্কের একতরফা যুদ্ধবিরতি প্রত্যাখ্যান ও পুনরায় আক্রমণ শুরু করায়, ELN- ফার্কের প্রতি সমর্থন জানিয়েছে। ELN এর ন্যাশনাল লিবারেশন আর্মি, সরকারী সেনাদের হাতে নিহত ফার্ক গেরিলাদের পরিবার ও  বন্ধুদের প্রতি সমবেদনা ও সংহতি জানিয়ে তাদের ওয়েবসাইটে বিবৃতি দিয়েছে।

ELN , কলম্বিয়ার প্রেসিডেন্ট জুয়ান ম্যানুয়েল সান্তোস সরকারের সমালোচনা করে বলে যে, “সামরিক সুবিধার জন্য”ই সরকার যুদ্ধ বিরতি করেছিল।

ফার্ক এবং ELN ১৯৬৪ সাল থেকে কলম্বিয়া রাষ্ট্রের বিরুদ্ধে যুদ্ধ চালিয়ে যাচ্ছে।

সুত্রঃ http://colombiareports.com/eln-rebels-support-farc-in-resuming-attacks-against-colombian-state/

Advertisements

কলম্বিয়ায় বিমান হামলায় মার্কসবাদী ফার্ক সংগঠনের ১৮ গেরিলা নিহত

images

কলম্বিয়ায় সেনাবাহিনীর এক বিমান হামলায় ১৮ ফার্ক গেরিলা নিহত হয়েছে। গত বৃহস্পতিবার এ হামলা চালানো হয়। প্রেসিডেন্ট জুয়ান ম্যানুয়েল সান্টোস গত মাসে মার্কসবাদী সংগঠনটির ওপর বিমান হামলার নিষেধাজ্ঞা তুলে নেয়ার পর এটাই সবচেয়ে বড় হামলার ঘটনা। খবর এএফপি।

প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয়ের এক কর্মকর্তা নাম প্রকাশ না করার শর্তে বলেন, ‘১৫ এপ্রিল প্রেসিডেন্ট সান্টোস গেরিলাদের বিরুদ্ধে বিমান হামলা শুরুর নির্দেশ দেয়ার পর এটাই ফার্ক বিদ্রোহীদের ওপর প্রথম বড় আঘাত।’ তিনি আরও জানান যে,শান্তি প্রক্রিয়া সফল না হওয়া পর্যন্ত এমন হামলা চলতেই থাকবে। সরকারি এক টুইটার বার্তাতেও এ বক্তব্য সমর্থন করা হয়েছে। দেশটির পুলিশ ও সেনাবাহিনী সম্মিলিতভাবে এ বিমান হামলা চালিয়েছে বলে নিশ্চিত হওয়া গেছে।

তবে বিশেষজ্ঞরা ধারণা করছেন, সাম্প্রতিক এই হামলা সরকার ও বিদ্রোহী পক্ষের মাঝে চলমান শান্তি আলোচনায় বিঘ্ন ঘটাতে পারে। কারণ বিমান হামলা এমন সময় চালানো হয়েছে, যেদিন এই দুই পক্ষের মধ্যে শান্তি আলোচনা পুণরায় শুরু হয়েছে। গত বছর ফার্ক বিদ্রোহীরা শান্তি আলোচনায় অগ্রগতি আনতে একতরফা যুদ্ধবিরতির ঘোষণা দিয়েছিল। তবে যুগপত্ভাবে যুদ্ধবিরতির ঘোষণা দিতে রাজি ছিল না কলম্বিয়ার সরকার। অবশ্য বিমান হামলা কিছুদিনের জন্য বন্ধ করা হয়েছিল।

images (1)

উল্লেখ্য, ২০১২ সালে কলম্বিয়ার সরকার ও ফার্ক বিদ্রোহীদের মধ্যে শান্তি আলোচনা শুরু হয়। তবে দুই পক্ষের মধ্যকার পাল্টাপাল্টি হামলার কারণে প্রায়শই এ আলোচনা স্থগিত হয়ে গেছে। প্রায় এক দশক ধরে চলা এ সংঘর্ষে দেশটিতে প্রায় ২ লাখ মানুষ নিহত হয়েছে।

সুত্রঃ http://www.theguardian.com/world/2015/may/22/colombian-army-kills-18-farc-rebels