চাঁদ নেতৃত্বাধীন সিপিএন-এম জনগণের সরকার পুনরুজ্জীবিত করবে

13244714_1057175767714357_4852063206900585910_n

অনূদিতঃ

সিপিএন-মাওবাদী সাধারণ সম্পাদক নেত্র বিক্রম চাঁদ বলেছেন, তার দল জনগণের সরকার এবং স্থানীয় পর্যায়ে জনগণের আদালত পুনরুজ্জীবিত করবে যেমন নতুন সংবিধান তার দলের সঙ্গে পরামর্শ ছাড়াই জারি করা হয়েছিল। পুস্প কমল দহল প্রচণ্ডের নেতৃত্বে ১০টি মাওবাদী দল মিশে গিয়ে সিপিএন-মাওয়িস্ট সেন্টার গঠনের ১ দিন পরেই চাঁদের এই বিবৃতি প্রকাশিত হয়েছে।

গতকাল গণমিছিল শেষে খুল্লা মঞ্চে আয়োজিত এক সমাবেশে বক্তৃতাকালে চাঁদ বলেন, তার দল আগামীকাল থেকে কালোবাজারী ও দুর্নীতির বিরুদ্ধে অভিযান শুরু করবে।  তিনি দাবি করেন, প্রধানমন্ত্রী কেপি শর্মা অলি মিথ্যা অভিযোগে মাওবাদী নেতা ও কর্মীদের ফ্রেম করার পরিকল্পনা করছিলেন।  তিনি বলেন, কিছু মাওবাদী নেতারা মূল মাওবাদী আদর্শ থেকে বিচ্যুত করেছে এবং সেই কারণে পুষ্প কমল দাহাল সহ কিছু নেতৃবৃন্দ বাস্তব মাওবাদী ছিল না।  ধর্মেন্দ্র বাস্তোলা, একরাজ ভান্ডারি, খড়গ বাহাদুর বিশ্বকর্মা এবং কমিউনিস্ট নিউক্লিয়াস পার্টির হেমন্ত প্রকাশ অলি আহ্বায়ক সহ অন্যান্য নেতৃবৃন্দ এই গণ সমাবেশে ভাষণ দেন।

সূত্রঃ https://thehimalayantimes.com/nepal/chand-led-cpn-m-revive-peoples-govt/


নেপালঃ চাঁদ নেতৃত্বাধীন মাওবাদীরা বাঝাং জেলায় জনগণের সরকার গঠনের ঘোষণা দিয়েছে

n

নেত্র বিক্রম চাঁদ নেতৃত্বাধীন সিপিএন মাওবাদী গত রোববার বাঝাং জেলায় জনগণের সরকার গঠনের ঘোষণা দিয়েছে।

কর্মসূচি চলাকালে, চন্দ্র বাহাদুর সিং এর সমন্বয়ের অধীনে ১৭ সদস্যের জেলা পরিষদ গঠনের ঘোষণা দেয়া হয়। এসময় নেতা পুন বলেন, যদি সরকার ও সংসদীয় দল তাদের পথকে পুননির্মাণ না করেন, তবে তাদের একটি সমান্তরাল সরকার চালাতে হবে। পুন আরো বলেন, “সরকার আমাদের দিকে মনোযোগ দিতে ব্যর্থ হলে আমরা গণআদালত ও পিপলস আর্মি গঠন করবো”।

এদিকে, কর্মসূচীতে আসা জনগণ জানাচ্ছেন যে চাঁদ নেতৃত্বাধীন সিপিএন মাওবাদীর চলমান আন্দোলন আরেকটি বিদ্রোহের উত্থান ঘটাতে পারে।

nn

অনুবাদ সুত্রঃ http://kathmandupost.ekantipur.com/news/2016-01-25/chand-led-maoist-announce-formation-of-peoples-govt-in-bajhang.html


নেপালঃ অগ্নিসংযোগের জন্য সিপিএন মাওবাদীর ৪ ক্যাডার গ্রেফতার

Biplab1

ঝাপদা পুলিশ গতকাল নেত্র বিক্রম চাঁদ নেতৃত্বাধীন সিপিএন মাওবাদীর ৪ ক্যাডারকে অগ্নিসংযোগের জন্য গ্রেফতার করেছে, এর মধ্যে পার্টির জেলা সম্পাদক রয়েছেন। তাদের বিরুদ্ধে গত ২১শে ডিসেম্বর দুওাগাধি-৯ জেলার  প্রগতিটোল এ সাকাম্বারি প্রোডাক্টে(একটি গুটকা ফ্যাক্টরি) অগ্নিসংযোগের অভিযোগ আনা হয়েছে।

জেলা পুলিশের এসপি ঠাকুর প্রসাদ গিইয়াওয়ালি’র জানায়, জেলা সম্পাদক বিবাস কিরাতি, জেলা সদস্য চমন লাল মাঝি ও পুষ্প অধিকারী এবং ছাত্রনেতা নবীন অধিকারীকে অভিযুক্ত হিসেবে চিহ্নিত করা হয়েছে। জেলার বিভিন্ন প্রান্ত থেকে তাদের গ্রেফতার করা হয়। পার্টির জেলা নেতা সুমন সিং পৌদেল জানান- তাদের জেলা সম্পাদক মণ্ডলীর সদস্য লক্ষ্মী ইয়াক্বা’র বাসা থেকে গ্রেফতার করা হয়। অভিযুক্তদের জেলা পুলিশ কার্যালয়ে রাখা হয়েছে ।

অনুবাদ সূত্রঃ http://thehimalayantimes.com/nepal/four-cpn-maoist-cadres-arrested-for-arson/


নেপালঃ সিপিএন(মাওবাদী) স্বায়ত্তশাসিত প্রদেশ ঘোষণা করেছে

নেত্র বিক্রম চাঁদ

নেত্র বিক্রম চাঁদ

গতকাল নেত্র বিক্রম চাঁদ-নেতৃত্বাধীন সিপিএন মাওবাদী লুম্বিনি জোনের তিনটি জেলাকে একত্রিত করে ‘অবাধ‘ নামে স্বায়ত্তশাসিত রাজ্য ঘোষণা করে সমান্তরাল সরকার ব্যবস্থা চালু করেছে। বুতয়াল, রুপান্দেহিতে অনুষ্ঠিত সম্মেলনে চাঁদ নেতৃত্বাধীন মাওবাদীরা এক ইশতেহারে  রুপান্দেহি, নাওালপারাসি এবং কপিলাবস্তু জেলাকে নিয়ে ‘অবাধ’ নামে স্বায়ত্তশাসিত রাজ্য ঘোষণা করেন। এ প্রসঙ্গে পলিটব্যুরো সদস্য ও বিপ্লবী পিপলস কাউন্সিল নেপালের প্রধান সন্তোষ বুধামাগার মাওবাদী বিদ্রোহের সময় স্বাধীন প্রদেশ গঠনের তুলনা করে বলেন, এটিও একই কেন্দ্রগত ভূমিকা পালন করবে। ‘অবাধ’ রাজ্য ঘোষণার পর আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে, মাওবাদী পলিটব্যুরো সদস্য সন্তোষ বুধামাগার বলেন, তার পার্টি শীঘ্রই পিপলস কাউন্সিল ও স্বায়ত্তশাসিত রাজ্যের নিয়ম ও প্রবিধান জনসমক্ষে প্রকাশ করবে।

এর আগে মাওবাদীরা স্বায়ত্তশাসিত রাজ্য হিসেবে মাগ্রাট, তামসালিং ও থারুকে ঘোষণা করেছিল।

অবাধ রাজ্য ঘোষণার পর আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে মাওবাদীদের পলিটব্যুরো সদস্য সন্তোষ বুধামাগার বলেন, তার দল বিক্ষোভের আকার উন্মুক্ত রেখেছিল। তিনি সতর্ক করে দিয়ে বলেন, তারা যদি দমনের শিকার হন, তবে তারা সরকারের বিরুদ্ধে প্রতিহিংসার পথে যাবেন। বুধামাগার বলেন, নেপালের সীমান্ত পয়েন্ট ভারতের অবরোধের পর  সরকার জনগণের মৌলিক সমস্যার সমাধান করতে অক্ষম ছিল, ফলে পার্টি তার পুরোনো কাঠামো পুনরুজ্জীবিত করতে বাধ্য হয়”।

অভিযোগে আছে যে, তার পার্টি বিলুপ্ত রাজতন্ত্র পুনরুজ্জীবিত করার জন্যে যুদ্ধ করেছে।

এ প্রসঙ্গে বুধামাগার ব্যাখ্যা করে বলেন যে, তার পার্টি  রাজতন্ত্র বিলোপের জন্য দশ বছর যুদ্ধ করেছে। তিনি সতর্ক করে দিয়ে বলেন, যদি প্রয়োজন দেখা দেয়, তবে তার পার্টির যুবকরা যে কোন মুহূর্তে অস্ত্র ব্যবহার করতে পারেন।

অনুবাদ সূত্রঃ http://thehimalayantimes.com/nepal/cpn-m-declares-autonomous-province/


নেপালঃ একীভূত হবার ঘোষণা দিল CPN-Maoist ও CPN (Unified)

??????????????????????

৮ নভেম্বর, ২০১৫– রবিবার নেপালের রাজধানী কাঠমান্ডুর কুপান্ডলের মাওবাদী ভ্যালি ব্যুরো কার্যালয়ে অনুষ্ঠিত একত্রিকরণ সম্মেলনে সিপিএন-মাওবাদী ও সিপিএন (ঐক্যবদ্ধ) দল দুটি একীভূত হবার ঘোষণা দিয়েছে। নতুন গঠিত এই পার্টির নাম আপাতত সিপিএন (মাওবাদী বিপ্লবী) / CPN (Maoist Revolutionary) রাখার ব্যাপারে দুই দলের পক্ষ থেকে সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে। জাতীয় সম্মেলনে নামটি চূড়ান্ত করা হবে বলে জানা গেছে।

সম্মেলনে সিপিএন-মাওবাদী এর সভাপতি মোহন বৈদ্য বলেন, নেপালের জনগণের গণতান্ত্রিক বিপ্লব ও বিপ্লবের বাদবাকি কাজ সমাপ্ত করার লক্ষ্যে এই দুই পার্টির একত্রীকরণ ঘটেছে। সম্মেলনে সিপিএন (ঐক্যবদ্ধ) এর সাধারণ সম্পাদক পারি থাপা বলেন, দেশে উদ্ভূত সমস্যাসমূহ মোকাবেলা ও বিপ্লবের কর্তব্য সম্পন্ন করার লক্ষ্যে দুই পার্টি একত্রিত হয়েছে।

অনুবাদ সূত্রঃ http://kathmandupost.ekantipur.com/news/2015-11-08/cpn-maoist-cpnunified-announce-merger.html


সিপিএন-মাওবাদী ক্যাডারদের গ্রেফতার করেছে ভারতীয় এসএসবি

Lipulake_20150811084330_20150811085526

দারচুলা, আগস্ট ১১– মোহন বৈদ্য নেতৃত্বাধীন সিপিএন-মাওবাদী অধিভুক্ত সর্ব নেপাল জাতীয় স্বাধীন ছাত্র ইউনিয়নের-বিপ্লবী এর দশ জন কর্মী ভারতীয় সীমান্তরক্ষী বাহিনী (এসএসবি) কর্তৃক দারচুলাতে গ্রেফতার হয়েছে।

সিপিএন-মাওবাদী কর্মীরা ‘লিপুলেক বাঁচাও ক্যাম্পেইন’ নিয়ে পর্যায়ক্রমে দারচুলাতে পৌঁছায়। SSB (Armed Border Force) সিপিএন-মাওবাদী এর ক্যাডারদের নিয়ন্ত্রণ করে ও তাদের থেকে লিপুলেকের মানচিত্র, সংশ্লিষ্ট কাগজপত্র ও পুস্তিকা জব্দ করে। ভারতীয় সীমান্তের কাছে তাদেরকে গ্রেফতার করার খবর নিশ্চিত করেছে দারচুলার জেলা প্রশাসন অফিস।

সূত্রঃ http://www.ekantipur.com/2015/08/11/top-story/cpn-maoist-cadres-arrested-by-indian-ssb/409302.html


নেপালঃ দুর্নীতির দায়ে অভিযুক্ত নির্বাহী কর্মকর্তার মুখে কালিমা লেপন করল সিপিএন মাওবাদী ক্যাডাররা

মাওবাদী নেতা নেত্র বিক্রম চাঁদ

মাওবাদী নেতা নেত্র বিক্রম চাঁদ

দুর্নীতিতে জড়িত থাকার অভিযোগে রবিবার ভরতপুর সাব মেট্রোপলিসের নির্বাহী কর্মকর্তা নারায়ণ প্রসাদ সপকতার মুখে কালিমা লেপন করল নেত্র বিক্রম চাঁদ নেতৃত্বাধীন সিপিএন মাওবাদী দলের ক্যাডাররা। পার্টির জেলা ইন চার্জ মহেশ থারু বলেন, ভূমি ও গাড়ি কেনার সময় বিপুল পরিমাণ অর্থ আত্মসাতের পরেও সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ তার বিরুদ্ধে কোন পদক্ষেপ না নেয়ায় তারা এই পদক্ষেপ নিয়েছে। এই নির্বাহী কর্মকর্তাকে ভবিষ্যতে শারীরিকভাবে আরো লাঞ্ছিত করার হুমকিও দিয়েছে পার্টির ক্যাডাররা।

ইতোমধ্যে, জেলার কয়েকজন পার্টির নেতা দাবী করেছেন বৃক্ষ রোপনের উদ্দেশ্যে ভূমি কেনার সময় সপকতা সাব মেত্রোপলিসের কোন জন আর্থিক কার্যক্রম পরিচালনা করেননি। অতীতে স্থানীয় কিছু নেতারা জনসম্মুখে তার সমালোচনা করেছিল বিশেষ করে ১০.৬৫ মিলিয়ন রুপি দিয়ে একটি গাড়ি ক্রয়ের পর। একইভাবে প্রধান জেলা কর্মকর্তা বিনোদ প্রকাশ সিং বলেন একটি দল সপকতার গাড়ি পুড়িয়ে দেয়ার চেষ্টা করেছিল। সিং বলেন, “সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে কিছু ছবি দেখে আমি তাকে এ ব্যাপারে জিজ্ঞেস করলে সে বলে এ ধরনের কিছু ঘটেনি”। সিং আরো বলেন তিনি সপকতাকে দলটির বিরুদ্ধে অভিযোগ দায়ের করারও পরামর্শ দেন।

সূত্রঃ

http://www.ekantipur.com/2015/07/27/national/cpn-m-men-smear-soot-on-face-of-graft-accused/408480.html


নেপালে নতুন সংবিধান বিরোধী বিক্ষোভে গ্রেফতার ২০০ মাওবাদী

a

নেপালে নতুন খসড়া করা সংবিধানের বিরুদ্ধে এবং ভারত ও চীনের মধ্যে সীমান্ত বাণিজ্য জোরদার করতে স্বাক্ষরিত লিপুলেক চুক্তির প্রতিবাদে গত শুক্রবার মাওবাদীদের ডাকা দেশব্যাপী ধর্মঘটে প্রায় ২০০ মাওবাদীকে গ্রেফতার করা হয়। এ সময় মাওবাদীরা গাড়িতে আগুণ ও স্কুল কলেজ বন্ধ করে দেয়।

b

সিপিএন-মাওবাদী (চাঁদ),বিক্রম চাঁদের নেতৃত্বে মাওবাদীরা কাঠমান্ডু ও অন্যান্য বড় শহরের রাস্তায় যানবাহন চলাচল, বেশীরভাগ বাজার ও শিক্ষা প্রতিষ্ঠান গুলো বন্ধ করে দেয়। বিক্ষোভের সময় সহিংসতা প্রতিরোধে কাঠমান্ডু সহ পার্শ্ববর্তী এলাকায় শত শত নিরাপত্তা কর্মী মোতায়েন করা হয়। গত এপ্রিলে দেশে একটি বিধ্বংসী ভূমিকম্প আঘাত হানার পরে এটাই প্রথম জাতীয় ধর্মঘট।

c

পুলিশ কাঠমান্ডু এবং অন্যান্য পার্শ্ববর্তী এলাকায় রাস্তা ব্লক এবং ভাংচুরের জন্যে  ১৯০ জন মাওবাদী সক্রিয় কর্মীকে ধরপাকড় করে বলে পুলিশ জানায়। আন্দোলনরত কর্মীরা বিক্ষোভের সময় বিভিন্ন যানবাহনে আগুন ধরিয়ে দেয়, পুলিশ এ পর্যন্ত কোন হতাহতের বিষয়ে রিপোর্ট করেনি।

বিক্ষোভ চলাকালীন মাওবাদীদের মুখপাত্র খড়গ বাহাদুর বিশ্বকর্মা এএফপিকে বলেন- “এই খসড়া জনগণ, নৈতিকতা এবং গণযুদ্ধের আশা বিরোধী”।
সংঘাতের বিষয়ে উল্লেখ তিনি বলেন, “সংবিধানে আদিবাসী, জাতিগত এবং লিঙ্গ বৈষম্যের সমস্যার সমাধান নেই ” – তাই এই সংবিধানের বিরুদ্ধে আমরা আন্দোলন করছি।

সূত্রঃ http://www.hindustantimes.com/world-news/200-maoists-arrested-in-protest-against-new-nepal-constitution/article1-1372729.aspx

http://www.dailystar.com.lb/News/World/2015/Jul-24/308084-nepal-arrests-60-over-constitution-protest.ashx


নেপালঃ সংবিধানের খসড়া কপিতে চাঁদ নেতৃত্বাধীন মাওবাদী ক্যাডারদের অগ্নিসংযোগ

11140060_10153144012152981_1149811910921717714_n_20150719014204

দং, ১৯ জুলাই– দং জেলায় নতুন সংবিধানের খসড়া কপি পুড়িয়ে ফেলল নেত্র বিক্রম চাঁদ নেতৃত্বাধীন সিপিএন-মাওবাদী এর ক্যাডাররা। জেলার তুলসিপুর ও গোরাহিতে প্রাথমিক খসড়া বিষয়ে আলোচনা চলাকালে এই অগ্নিসংযোগ ঘটানো হয়। তুলসিপুরের দামারগাঁও ও গোরাহির রাপ্তি সুপার লজে পার্টির ক্যাডাররা খসড়া কপি ছিঁড়ে ফেলে ও আগুন ধরিয়ে দেয়।

পার্টির জেলা সম্পাদক বল বাহাদুর ওলি জানিয়েছেন ক্যাম্পেইনে বাধা দানের সিদ্ধান্ত নিয়েছে পার্টি, সুতরাং তারা খসড়া কপি পুড়িয়ে ফেলবেন এবং মতামত সংগ্রহের পথে বাধা সৃষ্টি করবেন। দং জেলার ডিএসপি রণজিৎ সিং রাঠোর বলেন, যে কেউ মতামত সংগ্রহ ক্যাম্পেইনে বাধাদান করবে ও খসড়া কপি পুড়িয়ে ফেলবে তার বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে। দং জেলার প্রধান জেলা কর্মকর্তা লোকনাথ পোদিয়াল বলেন, মতামত সংগ্রহ ক্যাম্পেইন সুষ্ঠুভাবে সম্পন্ন করার জন্য জেলায় প্রচুর সংখ্যক নিরাপত্তা বাহিনীর সদস্য মোতায়েন করা হয়েছে।

 

সূত্রঃ

http://www.ekantipur.com/2015/07/19/top-story/chand-cadres-burn-copies-of-statute-draft/408115.html

 


নেপালের মাওবাদী সংবাদঃ লিপুলেক চুক্তির বিরুদ্ধে সিপিএন-মাওবাদী ক্যাডারদের প্রতিবাদ সমাবেশ অনুষ্ঠিত

jinping-main (1)

কাঠমান্ডু, ২৮শে জুন– ভারত ও চীনের মধ্যে স্বাক্ষরিত লিপুলেক চুক্তি বাতিলের দাবীতে কাঠমান্ডুর সুন্ধরাতে সিপিএন-মাওবাদীর ডাকা প্রতিবাদ সমাবেশে পুলিশ বাধা দেয় ও প্রায় তিন ডজন ক্যাডারকে আটক করে।

কাঠমান্ডুর টেকুতে মেট্রোপলিটান পুলিশ রেঞ্জ প্রদত্ত তথ্য অনুযায়ী, সিপিএন-মাওবাদী এর পলিটব্যুরো সদস্য তিলক পোখরেল সহ প্রায় ৩২ জন বিক্ষোভকারীকে গ্রেফতার করা হয়েছে।

পুলিশের সুপারিন্টেন্ডেন্ট বিশ্ব রাজ পোখরেল বলেন, কাঠমান্ডুতে কোন ধরনের প্রতিবাদ সমাবেশ করার অনুমতি নেই কারণ সাম্প্রতিক ভূমিকম্পের ঘটনার পর কাঠমান্ডুকে জরুরী জোন হিসেবে ঘোষণা করে হয়েছে। এ ঘটনায় তদন্ত চলছে বলে তিনি জানান।

সূত্রঃ

http://www.ekantipur.com/2015/06/24/capital/cpn-maoist-cadres-stage-protest-against-lipulek-pact/406992.html