শান্তিচুক্তির শর্ত বারবার লঙ্ঘন : কলম্বিয়া সরকারের সমালোচনা মার্কসবাদী ফার্কের

farc_tropa_tres

কলম্বিয়া সরকারের তীব্র সমালোচনা করেছে মার্কসবাদী গেরিলা দল ‘ফার্ক’। তাদের সাথে করা শান্তিচুক্তির শর্ত বারবার লঙ্ঘন করায় সরকারকে অভিযুক্ত করে অস্ত্র পরিত্যাগ বিলম্ব করার হুমকি দিয়েছে ফার্ক।

গত নভেম্বরে স্বাক্ষরিত শান্তিচুক্তির শর্ত সরকার বারবার লঙ্ঘন করায় তারা এ হুমকি দিয়েছে। খবর এএফপি’র। এক বিবৃতিতে ফার্কের পক্ষ থেকে বলা হয়েছে, সরকারের এই ধরণের দীর্ঘসূত্রিতা চলতে থাকলে তারা অস্ত্র পরিত্যাগের ক্ষেত্রে বিলম্ব করবে।

দলটির গেরিলা নেতা রদ্রিগো লন্ডনো এক টুইটার বার্তায় বলেন, সরকারের এমন আচরণের কারণে ফার্ক আন্তর্জাতিক মনিটরিংয়ের দাবি জানাতে যাচ্ছে। এর আগে তিনি গেরিলাদের অস্ত্র ত্যাগ স্থগিতের কথা বিবেচনা করেছিলেন। চুক্তি অনুযায়ী কলম্বিয়ার ২৬টি অঞ্চলের ৭ হাজার বিদ্রোহীর জাতিসংঘের কাছে অস্ত্র সমর্পণের কথা রয়েছে।


কলম্বিয়ায় মার্কসবাদী গেরিলা দল ‘ফার্ক ও সরকার’ এর যুদ্ধবিরতি চুক্তি সই

cuba-s-president-raul20160624022235

বৃহস্পতিবার (২৩ জুন) যুদ্ধবিরতি বিষয়ক এক ঐতিহাসিক চুক্তিতে সই করেন কলম্বিয়ার প্রেসিডেন্ট জুয়ান ম্যানুয়েল স্যান্টোস ও ফার্কের নেতা টিমোচেনকো।

বৃহস্পতিবার এ তথ্য জানিয়েছে আন্তর্জাতিক সংবাদমাধ্যমগুলো।

সংবাদমাধ্যমগুলো জানায়, কলম্বিয়া সরকার ও ফার্কের মধ্যকার যুদ্ধের অবসান ঘটতে এখন মাত্র আর কিছুটা পথ বাকি।  হয়তো তা এক সপ্তাহের মধ্যে হতে পারে।  এই এক সপ্তাহের মধ্যে চূড়ান্ত চুক্তিতে সই করবে উভয়পক্ষ।

প্রায় তিন বছর আগে ২০১২ সালের নভেম্বরে শান্তিচুক্তির বিষয়ে আলোচনা শুরু হয়।  এরপর গত বুধবার কিউবার রাজধানী হাভানায় একটি ইশতেহার ঘোষণা করেছে দুই পক্ষই।  নানা কারণে বিষয়টি সাফল্যের মুখ না দেখলেও সম্প্রতি দেশটির সরকার ও ফার্ক একটি সমঝোতায় আসে।


কলম্বিয়ার মার্কসবাদী ‘ফার্ক’ এর নারী গেরিলাদের কিছু বিরল ছবি –

জুলিয়ানাকে তার প্রেমিক অ্যালেক্সিসের সঙ্গে দেখা যাচ্ছে৷ ১৬ বছর বয়সে জুলিয়ানের সৎ বাবা তাকে ধর্ষণ করলে সে পালিয়ে গিয়ে ফার্কে যোগ দেয়৷ এ মুহূর্তে ফার্কের সঙ্গে সরকারের যুদ্ধবিরতি চলছে৷ অচিরেই একটি শান্তিচুক্তি স্বাক্ষরিত হতে পারে৷ এমন শান্তিপূর্ণ পরিবেশের কারণে ফার্ক গেরিলাদের জঙ্গলের জীবন সম্পর্কে এ সব বিরল ছবি ও বিষয় জানা গেছে৷

জুলিয়ানাকে তার প্রেমিক অ্যালেক্সিসের সঙ্গে দেখা যাচ্ছে৷ ১৬ বছর বয়সে জুলিয়ানের সৎ বাবা তাকে ধর্ষণ করলে সে পালিয়ে গিয়ে ফার্কে যোগ দেয়৷ এ মুহূর্তে ফার্কের সঙ্গে সরকারের যুদ্ধবিরতি চলছে৷ অচিরেই একটি শান্তিচুক্তি স্বাক্ষরিত হতে পারে৷ এমন শান্তিপূর্ণ পরিবেশের কারণে ফার্ক গেরিলাদের জঙ্গলের জীবন সম্পর্কে এ সব বিরল ছবি ও বিষয় জানা গেছে৷

 

প্রায় সাত হাজার ফার্ক গেরিলাদের মধ্যে প্রায় এক-তৃতীয়াংশ নারী৷ গোয়েন্দা তথ্য সংগ্রহ, সরকারি সেনাদের গতিবিধি শনাক্তকরণ – এ সব কাজ করে নারী গেরিলারা৷ তবে কিউবায় চলা শান্তি আলোচনা সফল হলে পরবর্তীতে কীভাবে জীবন কাটাবে সেই পরিকল্পনা করছে গেরিলারা৷ জুলিয়ানার ইচ্ছা রাজনীতিতে ঢোকা৷

প্রায় সাত হাজার ফার্ক গেরিলাদের মধ্যে প্রায় এক-তৃতীয়াংশ নারী৷ গোয়েন্দা তথ্য সংগ্রহ, সরকারি সেনাদের গতিবিধি শনাক্তকরণ – এ সব কাজ করে নারী গেরিলারা৷ তবে কিউবায় চলা শান্তি আলোচনা সফল হলে পরবর্তীতে কীভাবে জীবন কাটাবে সেই পরিকল্পনা করছে গেরিলারা৷ জুলিয়ানার ইচ্ছা রাজনীতিতে ঢোকা৷

 

ফার্ক নারী গেরিলারা অন্য মেয়েদের মতোই ঠোঁটে লিপস্টিক আর নখে নেইলপলিশ দেয়৷ কিন্তু তারা নাকি বেশ কঠোর! কলোম্বিয়ার এক সরকারি সেনা ‘ওয়াশিংটন পোস্ট’-কে বলেন, ফার্কের হাতে ধরা পড়লে আপনাকে এই প্রার্থনা করতে হবে যেন পুরুষ গেরিলাদের হাতে ধরা পড়েন৷ কেননা নারী গেরিলারা বেশ কঠোর আচরণ করে৷

ফার্ক নারী গেরিলারা অন্য মেয়েদের মতোই ঠোঁটে লিপস্টিক আর নখে নেইলপলিশ দেয়৷ কিন্তু তারা নাকি বেশ কঠোর! কলোম্বিয়ার এক সরকারি সেনা ‘ওয়াশিংটন পোস্ট’-কে বলেন, ফার্কের হাতে ধরা পড়লে আপনাকে এই প্রার্থনা করতে হবে যেন পুরুষ গেরিলাদের হাতে ধরা পড়েন৷ কেননা নারী গেরিলারা বেশ কঠোর আচরণ করে৷

 

ইনার নাম ইরা কাস্ত্রো৷ ফার্কের মধ্যম পর্যায়ের এই কর্মী অন্য নারী গেরিলাদের কাছে মেন্টরের মতো৷ ছবিই বলে দিচ্ছে আধুনিক প্রযুক্তির সঙ্গে তার একটা বেশ সখ্যতা রয়েছে৷ কিউবায় তিন বছর ধরে চলা সরকারের সঙ্গে শান্তি আলোচনায় তিনি অংশ নিচ্ছেন৷

ইনার নাম ইরা কাস্ত্রো৷ ফার্কের মধ্যম পর্যায়ের এই কর্মী অন্য নারী গেরিলাদের কাছে মেন্টরের মতো৷ ছবিই বলে দিচ্ছে আধুনিক প্রযুক্তির সঙ্গে তার একটা বেশ সখ্যতা রয়েছে৷ কিউবায় তিন বছর ধরে চলা সরকারের সঙ্গে শান্তি আলোচনায় তিনি অংশ নিচ্ছেন৷

 

ছবিগুলো তোলা হয়েছে কলোম্বিয়ার গহীন জঙ্গলে অবস্থিত অ্যান্টিওকিয়া ক্যাম্প থেকে৷ ঐ জঙ্গলে বিষধর সাপ সহ রয়েছে প্রায় ২০ প্রজাতির উদ্ভট ধরনের ব্যাঙ৷ এখানে পরিবেশের কারণে নারী এবং পুরুষ গেরিলারা একসাথেই গোসল/স্নান করেন-

ক্যাম্পের পরিবেশ – ছবিগুলো তোলা হয়েছে কলোম্বিয়ার গহীন জঙ্গলে অবস্থিত অ্যান্টিওকিয়া ক্যাম্প থেকে৷ ঐ জঙ্গলে বিষধর সাপ সহ রয়েছে প্রায় ২০ প্রজাতির উদ্ভট ধরনের ব্যাঙ৷ এখানে নারী এবং পুরুষ গেরিলারা কোন রকম সংকোচ ছাড়াই একসাথেই গোসল/স্নান করেন। 

 

পিস্তলটি পরিষ্কারের পর বৃষ্টির পানি আর আর্দ্রতা থেকে বাঁচাতে কাপড় দিয়ে পেঁচিয়ে রাখছে সিন্ডি৷ ১৮ বছর বয়সে ফার্কে যোগ দেয়া সিন্ডি শান্তিচুক্তি স্বাক্ষরিত হলে তার পরিবারের কাছে ফিরে যেতে চায়৷ এরপর রাজনীতিতে যোগ দিতে চায়৷ আর চায় জনগণকে শিক্ষিত করে তুলতে৷

পিস্তলটি পরিষ্কারের পর বৃষ্টির পানি আর আর্দ্রতা থেকে বাঁচাতে কাপড় দিয়ে পেঁচিয়ে রাখছে সিন্ডি৷ ১৮ বছর বয়সে ফার্কে যোগ দেয়া সিন্ডি শান্তিচুক্তি স্বাক্ষরিত হলে তার পরিবারের কাছে ফিরে যেতে চায়৷ এরপর রাজনীতিতে যোগ দিতে চায়৷ আর চায় জনগণকে শিক্ষিত করে তুলতে৷

 

ছবিই বলে দিচ্ছে সব...৷

ছবিই বলে দিচ্ছে সব…৷ অস্ত্রের সঙ্গে বসবাস

 

একজন সন্তানসম্ভবা গেরিলা মা

একজন সন্তানসম্ভবা গেরিলা মা


শান্তি চুক্তি সই হলে প্রকাশ্য রাজনীতিতে প্রবেশ করবে মার্কসবাদী গেরিলা দল ‘ফার্ক’

রোডিগো লন্ডোনো

রোডিগো লন্ডোনো

কলম্বিয়ার বামপন্থী ফার্ক গেরিলা দল ‘ফার্ক’ বলেছে, শান্তি চুক্তি সই হলে তারা দেশটির প্রকাশ্য রাজনীতিতে প্রবেশ করবে এবং অন্যান্য দলের সঙ্গে জোট গঠন করবে। বোগোটা সরকারের সঙ্গে চুক্তি করতে রাজি হওয়ার পর এ ঘোষণা দেন ফার্কের প্রধান রোডিগো লন্ডোনো। কলাম্বিয়ার স্থানীয় সাময়িকী সেমানা’কে দেয়া সাক্ষাৎকারে তিনি বলেন, অস্ত্র তুলে রেখে প্রকাশ্য রাজনীতিতে ঢুকবে ফার্ক। চুক্তি বাস্তবায়ন নিশ্চিত করার জন্য দেশটির সর্বাধিক সংখ্যক দলকে একত্রিত করার বিষয়টি মৌলিক দায়িত্ব হয়ে দাঁড়াবে বলেও জানান তিনি

লন্ডেনো আরো বলেন, চুক্তি সই হওয়ার পর অস্ত্র নামিয়ে রাজনৈতিক সংগ্রামে নামবে ফার্ক। এ ছাড়া, ২০১৮ সালে অনুষ্ঠেয় কলাম্বিয়ার সংসদ এবং প্রেসিডেন্ট নির্বাচনেও হয়ত অংশ গ্রহণ নেবে তার সংগঠন।

কিউবার রাজধানী হাভানায় কলম্বিয়া সরকার এবং ফার্ক প্রতিনিধি দল শান্তি আলোচনা অব্যাহত রেখেছে। সাম্প্রতিক মাসগুলোতে এ আলোচনায় অনেক গুরুত্বপূর্ণ অগ্রগতি হয়েছে। আগামী ২৩ মার্চের মধ্যে চূড়ান্ত যুদ্ধবিরতি চুক্তি সই হবে বলে সিদ্ধান্ত নিয়েছে দু’পক্ষ।

১৯৬০-এর দশক থেকে ল্যাতিন আমেরিকার এ দেশটির বুর্জোয়া সরকারের বিরুদ্ধে গেরিলা যুদ্ধ চালিয়ে আসছে মার্কসবাদী ফার্ক গেরিলারা।

অনুবাদ সূত্রঃ http://www.semana.com/nacion/articulo/timochenko-vamos-a-hacer-politica-sin-armas/458573


চলচ্চিত্রঃ কলম্বিয়ার মার্কসবাদী নারী গেরিলাদের নিয়ে তথ্যচিত্র ‘গোলাপ এবং রাইফেল’

এই পুঁজিবাদী বাস্তবতায় কলম্বিয়ার নারীরা অর্থনৈতিক, যৌন, মেধা সহ বিভিন্ন ক্ষেত্রে সব ধরণের নারী নির্যাতনের সম্মুখীন হচ্ছে। বিভিন্ন সরকারী স্তরে নারীদের অংশগ্রহণ প্রায় নেই বললেই চলে এবং বাম থেকে আইনি রাজনীতি করতে যাওয়া নারীদের জন্য এটা প্রায়ই অসম্ভব। প্রতিদিন অনেক নারীরা কেন লাতিন আমেরিকার প্রাচীনতম গেরিলা দলে যোগ দিচ্ছেন? তারা নিজেদের মুক্তির জন্য সামাজিক ন্যায়বিচারের সঙ্গে শান্তিপূর্ণ একটি সমাজ নির্মাণের আদর্শে থেকে একটি সমাজতান্ত্রিক সমাজের জন্য সংগ্রাম করার সিদ্ধান্ত নেন। কলম্বিয়ার বুর্জোয়াদের নিয়ন্ত্রিত মিডিয়া, এসব সত্য গোপন করে। এই সকল মিডিয়া কোম্পানিগুলো প্রচার করে থাকে যে, ফার্কের নারী গেরিলারা তাদের কমান্ডারদের যৌন দাসী হিসেবে ব্যবহৃত হন।

জনগণের কাছে বুর্জোয়া মিডিয়ার এই সব মিথ্যে প্রোপাগান্ডার বিপরীতে আসল সত্যতা তুলে ধরার জন্যেই ফার্কের বিপ্লবী নারীদের প্রকৃত জীবন নিয়ে এই তথ্যচিত্রটি নির্মিত হয়েছে।


কলম্বিয়ায় সরকার ও মার্কসবাদী গেরিলাদের মধ্যে চুক্তি স্বাক্ষর

colombia-farc-la_calle.jpg_1718483346

কলম্বিয়ায় দীর্ঘ ৪০ বছরের গৃহযুদ্ধে ক্ষতিগ্রস্তদের পুনর্বাসন ও যুদ্ধাপরাধীদের বিচারে একটি চুক্তি স্বাক্ষর করেছে দেশটির সরকার ও মার্কসবাদী গেরিলা সংগঠন -ফার্ক।

মঙ্গলবার কিউবার রাজধানী হাভানায় কলম্বিয়ার সরকারী কর্মকর্তা ও মার্কসবাদী গেরিলারা এ চুক্তি স্বাক্ষর করে। খুব শিগগিরই যুদ্ধাপরাধের বিচারে একটি ট্রাইব্যুনাল গঠন করা হবে বলে জানা গেছে।

মার্কিন প্রভাবিত কলম্বিয়ার প্রেসিডেন্ট জুয়ান ম্যানুয়েল সন্তোষ এ চুক্তিকে স্বাগত জানিয়ে এক টুইটার বার্তায় বলেছেন, স্থায়ী শান্তিচুক্তি ও যুদ্ধবিরতির পথে আরো এক ধাপ এগিয়ে গেছে দু’পক্ষ।


শান্তিচুক্তির আলোচনায় মার্কসবাদী গেরিলা দল ‘ফার্ক’ এর ৩০ জন রাজবন্দীকে মুক্তি দিচ্ছে কলম্বিয়া সরকার

সূত্রঃ http://farc-epeace.org/index.php/what-you-should-know/item/918-30-political-prisoners-of-the-farc-ep-will-be-granted-pardon-as-a-result-of-peace-negotiations.html


কলম্বিয়ার ফার্ক গেরিলাদের সঙ্গে শান্তিচুক্তি জনসম্মুখে প্রকাশের উদ্যোগ

news_img

কলম্বিয়ার মার্কসবাদী ফার্ক গেরিলাদের সঙ্গে শান্তিচুক্তির বিস্তারিত জনসম্মুখে প্রকাশের উদ্যোগ নেয়া হয়েছে।

শুক্রবার কলম্বিয়ার সরকার ও গেরিলাদের মধ্যে প্রধান মধ্যস্থতাকারী একথা জানান।

এ চুক্তির প্রেক্ষাপটে প্রকাশিত এক বিবৃতিতে সাবেক মার্কসবাদী গেরিলা, সরকারি সৈন্য এবং ডানপন্থী আধা-সামরিক সৈন্যদের বিচারে একটি বিশেষ আদালত প্রতিষ্ঠায় সম্মত হয় সরকার এবং গেরিলারা। তবে কিছু অস্পষ্টতা ও অসম্পূর্ণতার কারণে সমগ্র শান্তিচুক্তিটি এখনি প্রকাশ করা হবে না।

উল্লেখ্য, আগামী ছয় মাসের মধ্যে যুদ্ধ বন্ধে ফার্ক গেরিলাদের আহ্বান জানানো হয়। এর আগে ২৩ সেপ্টেম্বর প্রেসিডেন্ট জুয়ান ম্যানুয়াল স্যান্টোস এবং ফার্ক নেতা রদ্রিগোর উপস্থিতিতে কিউবার রাজধানী হাভানায় এ চুক্তি স্বাক্ষরিত হয়েছিল। এছাড়াও উপস্থিত ছিলেন রাউল কাস্ত্রো।

প্রসঙ্গত, পঞ্চাশ বছর মেয়াদী এ যুদ্ধে প্রায় ২ লক্ষ বিশ হাজার মানুষ মৃত্যুবরণ করেন।

তবে চুক্তিটি আদৌ বাস্তবায়িত হবে কিনা, তা নিয়ে সন্দেহ রয়েছে ।


মার্কসবাদী ফার্ক গেরিলাদের বিরুদ্ধে বিমান হামলা স্থগিত করল কলাম্বিয়া সরকার

8f43570ee3d52a745fb8ce4d71e8e2b0_XL

কলাম্বিয়া সরকার দেশটির মার্কসবাদী ফার্ক গেরিলাদের বিরুদ্ধে বিমান হামলা স্থগিত করেছে। দু’পক্ষ টেকসই শান্তি চুক্তির বিষয় আলোচনা করতে সম্মত হওয়ার পরিপ্রেক্ষিতে বিমান হামলা স্থগিত করা হয়।

কলাম্বিয়ার প্রেসিডেন্ট জুয়ান ম্যানুয়েল স্যান্তাস এ হামলা বন্ধের ঘোষণা দিয়েছেন। দেশটির উত্তরাঞ্চলীয় উপকূলীয় শহর কার্টাজেনায় এক সামরিক অনুষ্ঠানে এ ঘোষণা দেন প্রেসিডেন্ট স্যান্তাস।

অবশ্য একই সঙ্গে তিনি বলেছেন, ফার্ক গেরিলারা দেশটির অবকাঠামো বা বেসামরিক মানুষের জন্য হুমকি হয়ে দেখা দিলে বিমান হামলা বন্ধ রাখার বিষয়টি বাতিল করা হতে পারে।

চলতি মাসের ২০ তারিখে ফার্ক গেরিলারা এক তরফা যুদ্ধবিরতির ঘোষণা দেয়ার পর বিমান হামলা বন্ধের ঘোষণা দেয়া হয়। গেরিলাদের অতর্কিত হামলায় ১১ সেনা নিহত হওয়ার পরিপ্রেক্ষিতে এপ্রিলে এ বিমান হামলা শুরু করেছিল কলাম্বিয়ার সেনাবাহিনী।

উল্লেখ্য, মার্কসপন্থী ফার্ক গেরিলারা ল্যাটিন আমেরিকার মধ্যে সবচেয়ে বড় গেরিলা গ্রুপ; এবং ১৯৬৪ সাল থেকে তারা সশস্ত্র সংগ্রাম চালিয়ে আসছে। দলটি ক্ষমতাসীন বুর্জোয়া, মার্কিন মদদপুষ্ট কলম্বিয়া সরকার, বহুজাতিক কোম্পানি ও নয়া উপনিবেশিকতার বিরুদ্ধে গরীব মানুষদের অধিকার আদায়ের জন্যে সংগ্রাম করে যাচ্ছে।


সাময়িক সমঝোতায় কলম্বিয়ার সরকার ও মার্কসবাদী ফার্ক গেরিলারা

download

সহিংসতা হ্রাসে কলম্বিয়ার সরকার ও বামপন্থী মার্কসবাদী ফার্ক গেরিলারা একটি সমঝোতায় পৌছতে সক্ষম হয়েছে। রোববার হাভানায় এই সমঝোতা হয় বলে জানিয়েছেন সংশ্লিষ্ট কূটনীতিকরা। এর ফলে প্রথমবারের মতো কলম্বিয়ার সরকার মার্কসবাদীদের বিরুদ্ধে অভিযান সীমিত করার প্রতিশ্রুতি দিয়েছে। একই সাথে ফার্ক গেরিলারাও সরকারী নিরাপত্তা বাহিনীর বিরুদ্ধে সহিংস কার্যক্রম বন্ধ করবে বলে জানিয়েছে। খবর এএফপি।

গত বুধবার ফার্ক ঘোষণা দেয় যে, আগামী ২০ জুলাই থেকে এক মাসের একতরফা যুদ্ধবিরতি পালন করবে তারা। এর প্রেক্ষিতে গত রোববার, কলম্বিয়ার সরকার গেরিলাদের বিরুদ্ধে চলমান অভিযান কার্যক্রম সীমিত করার কথা জানায়। শান্তি আলোচনা শুরুর পর এই প্রথম সরকার এ ধরণের উদ্যোগ নিল।

দুই পক্ষের মধ্যে মধ্যস্থতাকারী হিসেবে কাজ করছেন কিউবা ও নরওয়ের কূটনীতিকরা। এক যৌথ বিবৃতিতে তারা বলেন, ‘ফার্ক চলতি মাসের ২০ তারিখ থেকে যুদ্ধবিরতি পালনে সম্মত হয়েছে। অন্যদিকে কলম্বিয়ার সরকার বলেছে তারা ফার্কের বিরুদ্ধে অভিযান সীমিত করবে। এটি শান্তি আলোচনাকে এগিয়ে নিতে সাহায্য করবে বলে আমাদের বিশ্বাস। উভয়পক্ষই শান্তি আলোচনা পুণরায় শুরুর পদক্ষেপকে স্বাগত জানিয়েছে।’

এ প্রসঙ্গে ফার্কের প্রতিনিধি ইভান মারকুয়েজ বলেন, ‘এটি অবশ্যই একটি শক্তিশালী ও আশাব্যঞ্জক সিদ্ধান্ত। এর ফলে সংলাপ প্রক্রিয়া পুনরুজ্জীবিত হবে।’ অন্যদিকে কলম্বিয়ার সরকারের প্রতিনিধি হামবার্তো ডে লা ক্যালে বলেছেন, এর মাধ্যমে দুই পক্ষের মধ্যে চলমান সংঘাত নিরসনের সম্ভাবনা উজ্জ্বল হলো।

উল্লেখ্য, কলম্বিয়ার সরকার ও ফার্ক বিদ্রোহীদের মধ্যে ২০১২ সাল থেকে শান্তি আলোচনা চলছে। তবে সাম্প্রতিক সময়ে পাল্টাপাল্টি সংঘর্ষের কারণে এটি বন্ধ হয়ে যায়। নতুন সমঝোতা শান্তি আলোচনাকে আরও বেগবান করবে বলে বিবেচনা করা হচ্ছে।

colombia-farc-la_calle.jpg_1718483346

সূত্রঃ http://www.telesurtv.net/english/news/FARC-and-Colombian-Government-Agree-to-Bilateral-Cease-fire-20150712-0010.html