‘লাল সংবাদ’ এর প্রতি কলম্বিয়ার মার্কসবাদী গেরিলা দল ‘ফার্ক’ এর বার্তা

farc-flag

 

লাল সংবাদএর প্রতি কলম্বিয়ার মার্কসবাদী গেরিলা দলফার্কএর বার্তা

Thank you very much comrades, your website is interesting and we feel glad to have people on the other side of the world who show their solidarity with us! For our news in English: www.farc-epeace.org. Keep up the good work!”   FARCEP

নোটঃ 

[কলম্বিয়ার সর্ববৃহৎ মার্কসবাদী গেরিলা দল ‘ফার্ক‘ এক বার্তায় তাদের বিপ্লবী সংবাদ সমুহ নিয়মিত বাংলায় প্রকাশ করায় ‘লাল সংবাদ‘কে ধন্যবাদ জানিয়েছেন। উল্লেখ্য যে, ‘লাল সংবাদ‘ দীর্ঘদিন ধরে ‘ফার্ক‘ এর গেরিলা সংগ্রামের সংবাদ সমূহ বাংলায় প্রকাশ করে আসছে। ]

লাল সংবাদ‘ এ প্রকাশিত ‘ফার্ক‘ সংবাদ সমুহ পড়তে নীচের লিঙ্কে ক্লিক করুন –

ফার্ক-লাল সংবাদ

farc_tropa_tres


কলম্বিয়াঃ মার্কসবাদী ফার্ক গেরিলাদের ভূমি মাইন হামলায় BLACK HAWK হেলিকপ্টার বিস্ফোরিত, নিহত ৪ সেনা, আহত ৬

Part-MVD-Mvd6692058-1-1-0

সোমবার কলম্বিয়ার সেনাবাহিনীর Black Hawk হেলিকপ্টার অবতরণের সময় মার্কসবাদী ফার্ক গেরিলা দলের সদস্যদের পেতে রাখা ভূমি মাইন বিস্ফোরিত হয়ে চারজন সৈনিক নিহত ও ছয়জন আহত হয়েছে বলে জানিয়েছে সরকারী কর্মকর্তারা। ২০১২ সাল থেকে চলে আসা শান্তি আলোচনা স্তিমিত হয়ে পড়ায় মার্কসবাদী দল হামলা চালানোর পদক্ষেপ গ্রহণ করেছে বলে জানা গেছে।

মঙ্গলবার, দ্বিপাক্ষিক যুদ্ধবিরতির জন্য ফার্ক আহ্বান জানায় কিন্তু সরকার বরাবরের মতো এ প্রস্তাব প্রত্যাখান করে জানিয়েছে এ ধরনের যুদ্ধবিরতি গেরিলাদেরকে পুনর্গঠিত ও পুনরায় সশস্ত্র হবার সুযোগ করে দেবে।

ভেনেজুয়েলার সীমান্তে নর্তে সান্তান্দর দপ্তরে অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ একটি তেলের পাইপলাইন পাহারা দেয়ার দায়িত্বে নিয়োজিত সেনাবাহিনীকে সহযোগিতা প্রদানের উদ্দেশ্যে বিমান বাহিনীর হেলিকপ্টারটি কর্তব্যরত ছিল।

Black Hawk হেলিকপ্টারটি ভূমিতে অবতরণ করলে এটি পুঁতে রাখা ভূমি মাইনে আঘাত করে ও মাইনটি বিস্ফোরিত হয় বলে জানান আর্মির জেনারেল লুইস মালদোনাদো। তিনি বলেন গেরিলারা মাইনটি পুঁতে রেখেছিল।

মালদোনাদো বলেন, “তেওরামাতে আজ চারজন সৈনিকের মৃত্যু হয়েছে।”

রবিবারে আরেকটি তেলের পাইপলাইনে ফার্কের হামলা ঘটে।

এ সপ্তাহের মধ্যে দ্বিতীয়বারের মতো গেরিলারা সরকারী বাহিনী ও পাইপলাইনের উপর হামলা চালালো।

সূত্রঃ http://news.yahoo.com/farc-rebels-kill-four-rupture-colombian-pipeline-110914208.html


কলম্বিয়ায় তেলের পাইপলাইন উড়িয়ে দিয়েছে মার্কসবাদী ফার্ক গেরিলারা

oil_attack

কলম্বিয়ার মার্কসবাদী ফার্ক গেরিলা গোষ্ঠী ফার্ক দেশটির দ্বিতীয় বৃহত্তম তেলের পাইপ লাইন উড়িয়ে দিয়েছে।

farc

গেল মঙ্গলবারই রাজধানী বোগোটার উত্তর পূর্ব অঞ্চল তিয়োরামায় লিমন কোভেনাস তেলপাইপলাইনে হামলা চালায় গেরিলারা। এরপরপরই টিবু পৌর এলাকায় ঐ তেল পাইপলাইনের আরেক অংশে বোমা হামলা চালায় ফার্ক গেরিলারা। ঐ এলাকার সেনা কমান্ডারের দাবি ফার্ক গেরিলারাই এ হামলা চালিয়েছে। তবে ঠিক কি পরিমাণ তেল নষ্ট হয়েছে তা এখনও জানা যায়নি। লিমন কোভেনাস ভেনেজুয়েলার সীমান্ত বন্দর কোভেনাস থেকে প্রতিদিন প্রায় ৮০ হাজার ব্যারেল তেল সরবরাহ করে থাকে।
কলম্বিয়ার উত্তরাঞ্চলে কাটাটম্বু পৌরসভায় এ হামলা চালানো হয়। বিশেষজ্ঞরা বুধবার পরিবেশ বিপর্যয় ঠেকাতে কাজ করে যাচ্ছেন বলে জানা গেছে।
এছাড়া গেরিলারা মঙ্গলবার পৃথক এক হামলায় চার সৈন্যকে হত্যা ও আরো চার জনকে আহত করেছে।
গত ২২ মে ফার্ক (রিভ্যুলিশনারী আর্মড ফোর্সেস অব কলম্বিয়া) তার একতরফা অস্ত্রবিরতি প্রত্যাহার করে নেয়ার পর তারা অবকাঠামোর ওপর হামলা জোরদার করেছে।
এর আগে তারা গত ১২ জুন তেলের পাইপলাইনে হামলা চালিয়েছে।
ফার্ক গেরিলা গোষ্ঠী গত ডিসেম্বরে একতরফা অস্ত্রবিরতি ঘোষণা করে। কিন্তু মে মাসে তারা অতর্কিত হামলা চালিয়ে ১১ সৈন্যকে হত্যা করে।
এরপর বিমান সেনার অভিযানে ১৮জন গেরিলা নিহত হয়।
উল্লেখ্য, ১৯৬৪ সালে ফার্ক গঠিত হওয়ার পর থেকে কলম্বিয়ায় রাষ্ট্র ও গেরিলাদের সংঘর্ষে দুই লাখেরও বেশি লোক নিহত ও ৬০ লাখেরও বেশি লোক বাস্তুচ্যুত হয়েছে।

সুত্রঃ http://colombiareports.com/farc-attack-forces-ecopetrol-to-suspend-operations-in-northeast-colombia/


কলম্বিয়ার মার্কসবাদী গেরিলা সংগঠন ‘ফার্ক'(FARC) সংবাদ –

farc_139720
ফার্ক গেরিলাদের বিরুদ্ধে সেনা অভিযান
farc
farc-jpg
ফার্ক গেরিলা
কলম্বিয়ার উত্তর-পশ্চিমাঞ্চলে সামরিক বাহিনীর অভিযানে সোমবার অন্তত মার্কসবাদী ৫ ফার্ক গেরিলা নিহত হয়েছে। এ ঘটনা মার্কসবাদী সংগঠনটির সঙ্গে সরকারের চলমান শান্তি আলোচনাকে হুমকির মুখে ঠেলে দিচ্ছে।
সামরিক সূত্রের বরাতে বুধবার বার্তা সংস্থা এএফপি জানায়, প্রত্যন্ত চোকো এলাকায় এই বোমা হামলায় গেরিলা যোদ্ধারা নিহত হয়। তবে ওই হামলা সম্পর্কে বিস্তারিত তথ্য জানানো হয়নি।
হাভানায় মার্কসবাদী রিভোল্যুশনারি আর্মড ফোর্সেস অব কলম্বিয়া (ফার্ক)-এর সঙ্গে সরকারের দ্বিপক্ষীয় শান্তি আলোচনা অব্যাহত থাকলেও সাম্প্রতিক দিনগুলোতে সরকারি সেনারা মার্কসবাদী গেরিলা সংগঠনটির ওপর সামরিক হামলা চালিয়ে আসছে।
প্রেসিডেন্ট জুয়ান ম্যানুয়েল সান্টোস গত মাসে মার্কসবাদী সংগঠনটির ওপর বিমান হামলার নিষেধাজ্ঞা তুলে নেয়ার পর এটাই সবচেয়ে বড় ধরনের হামলার ঘটনা।
গেরিলাদের হামলায় ১১ সেনা নিহত হওয়ার পর এপ্রিল মাসে এ অভিযান শুরু হয়।
এখন পর্যন্ত গেরিলাদের ওপর সেনাবাহিনীর চলমান অভিযানে ৪০ গেরিলা নিহত হয়েছে।
গত সপ্তাহে সেনাবাহিনীর বিমান হামলায় ২৬ গেরিলা নিহত হওয়ার পর ফার্ক শুক্রবার অস্ত্রবিরতি প্রত্যাহার করে এবং উভয়পক্ষের মধ্যে শান্তি আলোচনা স্বল্পসময়ের জন্য স্থগিত হয়ে যায়।
eln_guerrillas_s_youtube-770x433

ELN গেরিলা

এদিকে – কলম্বিয়ার দ্বিতীয় বৃহত্তম বিদ্রোহী গেরিলা গ্রুপ ELN , সেনা আক্রমণে ফার্কের ২৬ গেরিলা নিহত হওয়ার পর, ফার্কের একতরফা যুদ্ধবিরতি প্রত্যাখ্যান ও পুনরায় আক্রমণ শুরু করায়, ELN- ফার্কের প্রতি সমর্থন জানিয়েছে। ELN এর ন্যাশনাল লিবারেশন আর্মি, সরকারী সেনাদের হাতে নিহত ফার্ক গেরিলাদের পরিবার ও  বন্ধুদের প্রতি সমবেদনা ও সংহতি জানিয়ে তাদের ওয়েবসাইটে বিবৃতি দিয়েছে।

ELN , কলম্বিয়ার প্রেসিডেন্ট জুয়ান ম্যানুয়েল সান্তোস সরকারের সমালোচনা করে বলে যে, “সামরিক সুবিধার জন্য”ই সরকার যুদ্ধ বিরতি করেছিল।

ফার্ক এবং ELN ১৯৬৪ সাল থেকে কলম্বিয়া রাষ্ট্রের বিরুদ্ধে যুদ্ধ চালিয়ে যাচ্ছে।

সুত্রঃ http://colombiareports.com/eln-rebels-support-farc-in-resuming-attacks-against-colombian-state/


কলম্বিয়ায় বিমান হামলায় মার্কসবাদী ফার্ক সংগঠনের ১৮ গেরিলা নিহত

images

কলম্বিয়ায় সেনাবাহিনীর এক বিমান হামলায় ১৮ ফার্ক গেরিলা নিহত হয়েছে। গত বৃহস্পতিবার এ হামলা চালানো হয়। প্রেসিডেন্ট জুয়ান ম্যানুয়েল সান্টোস গত মাসে মার্কসবাদী সংগঠনটির ওপর বিমান হামলার নিষেধাজ্ঞা তুলে নেয়ার পর এটাই সবচেয়ে বড় হামলার ঘটনা। খবর এএফপি।

প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয়ের এক কর্মকর্তা নাম প্রকাশ না করার শর্তে বলেন, ‘১৫ এপ্রিল প্রেসিডেন্ট সান্টোস গেরিলাদের বিরুদ্ধে বিমান হামলা শুরুর নির্দেশ দেয়ার পর এটাই ফার্ক বিদ্রোহীদের ওপর প্রথম বড় আঘাত।’ তিনি আরও জানান যে,শান্তি প্রক্রিয়া সফল না হওয়া পর্যন্ত এমন হামলা চলতেই থাকবে। সরকারি এক টুইটার বার্তাতেও এ বক্তব্য সমর্থন করা হয়েছে। দেশটির পুলিশ ও সেনাবাহিনী সম্মিলিতভাবে এ বিমান হামলা চালিয়েছে বলে নিশ্চিত হওয়া গেছে।

তবে বিশেষজ্ঞরা ধারণা করছেন, সাম্প্রতিক এই হামলা সরকার ও বিদ্রোহী পক্ষের মাঝে চলমান শান্তি আলোচনায় বিঘ্ন ঘটাতে পারে। কারণ বিমান হামলা এমন সময় চালানো হয়েছে, যেদিন এই দুই পক্ষের মধ্যে শান্তি আলোচনা পুণরায় শুরু হয়েছে। গত বছর ফার্ক বিদ্রোহীরা শান্তি আলোচনায় অগ্রগতি আনতে একতরফা যুদ্ধবিরতির ঘোষণা দিয়েছিল। তবে যুগপত্ভাবে যুদ্ধবিরতির ঘোষণা দিতে রাজি ছিল না কলম্বিয়ার সরকার। অবশ্য বিমান হামলা কিছুদিনের জন্য বন্ধ করা হয়েছিল।

images (1)

উল্লেখ্য, ২০১২ সালে কলম্বিয়ার সরকার ও ফার্ক বিদ্রোহীদের মধ্যে শান্তি আলোচনা শুরু হয়। তবে দুই পক্ষের মধ্যকার পাল্টাপাল্টি হামলার কারণে প্রায়শই এ আলোচনা স্থগিত হয়ে গেছে। প্রায় এক দশক ধরে চলা এ সংঘর্ষে দেশটিতে প্রায় ২ লাখ মানুষ নিহত হয়েছে।

সুত্রঃ http://www.theguardian.com/world/2015/may/22/colombian-army-kills-18-farc-rebels