ভারতঃ “বদ্রু, হেমলা ভগতকে গণবিরোধী ও পার্টি বিরোধী কর্মকাণ্ডের জন্যে খতম করা হয়েছে”- সিপিআই(মাওবাদী)

মাওবাদী গণ আদালত

মাওবাদী গণ আদালত

ভারতের কমিউনিস্ট পার্টি (মাওবাদী)/সিপিআই(মাওবাদী) ছত্তিশগড়ের গোলযোগপূর্ণ বস্তার অঞ্চলে তাদের ২ সিনিয়র নেতা বদ্রু, হেমলা ভগতকে গণবিরোধী ও পার্টি বিরোধী কর্মকাণ্ডের জন্যে খতম করার দায়িত্ব স্বীকার করেছে।

বস্তারে সক্রিয় চার মাওবাদী গেরিলা গত কয়েক দিন আগে তাদের নিজস্ব পার্টি গেরিলাদের হাতে নিহত হয়।

একজন মাওবাদী নেতাকে আটক করা হয়, অপর মাওবাদী নেতা তার নিজের কমরেডদের বন্দিদশা থেকে পালিয়ে গিয়ে পুলিশের কাছে আত্মসমর্পণ করে।

গত রবিবার এক সংবাদ বিবৃতিতে সি পি আই(মাওবাদী) দারবা বিভাগের সম্পাদক সুরিন্দর বলেন  “আমাদের পার্টির গণআদালত বদ্রু(দারবা এলাকার একটি ডিভিসির সদস্য) এবং হেম্লা ভগত(অন্য দারবা এলাকার একটি ডিভিসির সদস্য ও মাওবাদীদের একই এলাকার ‘সামরিক গোয়েন্দা’ শাখার প্রধান) কে মৃত্যুদণ্ড দেয়। দুজনকেই গণবিরোধী ও পার্টি বিরোধী কর্মকাণ্ডে লিপ্ত থাকার জন্যে খতম করা হয়। তারা পুলিশের সঙ্গে যোগাযোগ রাখত এবং দলের কিছু সিনিয়র নেতাদের হত্যা করার পরিকল্পনা করছিল। তারা শত্রুর(পুলিশ) আগেই অস্ত্র সহ আত্মসমর্পণের ষড়যন্ত্র করছিল।”

যদিও এই বিবৃতিতে জুনের শেষ সপ্তাহে পার্টি কর্তৃক নিহত অন্য ২ নেতাদের( হিঙ্গে ও কোশী) সম্পর্কে কিছু উল্লেখ করা হয়নি।

“বদ্রু এবং হেমলা ভগতকে ব্যবহার করে মাওবাদী সংগঠন ধ্বংস করার ষড়যন্ত্র, পুলিশের কৌশলের একটি অংশ ছিল। বদ্রু এবং ভগত মৃত্যুর জন্য ঊর্ধ্বতন পুলিশ কর্মকর্তাদের দায়ী করে সুরিন্দর বলেন,- তারা যদি এইরুপ গণবিরোধী কার্যক্রম বন্ধ না করে তা হলে, আমরা আমাদের প্রতিক্রিয়াশীল কার্যক্রম জোরদার করতে বাধ্য হবো। বদ্রু এবং ভগতের বিশ্বাসঘাতকতা নিয়ে বস্তারের জনগণকে সচেতন করে দিয়ে সুরিন্দর বলেন, পুলিশ এবং সরকার মাওবাদীদের বিরুদ্ধে এই বলে মিথ্যা ছড়াচ্ছে যে, যে সব কমরেড পার্টি ছেড়ে দিতে চান বা বাড়ী চলে যেতে চান তাদের মাওবাদীরা হত্যা করে।”

মাওবাদী নেতা সুরিন্দর আরো বলেন- “আমাদের পার্টি কখনোই বাড়ী যেতে চাওয়া কমরেডের হত্যা করে না। আমরা শুধুমাত্র বিশ্বাসঘাতক এবং পার্টি ও আন্দোলনের যারা ক্ষতি করে তাদেরকেই শাস্তি দিয়ে থাকে। আমরা এই সংগ্রাম চালিয়ে যাওয়ার জন্যে জনগণের কাছে আবেদন রাখছি।”

সূত্রঃ http://www.thehindu.com/news/national/maoists-admit-to-killing-their-own-leaders-in-chhattisgarh/article7414112.ece


ভারতঃ পুলিশী হেফাজতে নির্যাতনের অভিযোগ মাওবাদীদের

police-kerala.jpg.image_.784.410

কোয়েম্বাটোরঃ দুই মাস আগে শহরের প্রান্ত থেকে গ্রেফতার হওয়া মাওবাদীরা বৃহস্পতিবার জানিয়েছেন পুলিশী হেফাজতে তাদের উপর নির্যাতন চালিয়েছে কেরালা পুলিশ এবং মারাত্মক পরিণতি হবে হুমকি দিয়ে তাদেরকে জোরপূর্বক কিছু বিষয় স্বীকার করতে বলে।

করুমাথামপট্টি থেকে গ্রেফতারকৃত ৫ জনের ভিতর ৩ জনকে প্রথমে তামিলনাড়ু পুলিশের Q Branch ও পরে কেরালা পুলিশ জিজ্ঞাসাবাদ করে। বীরামণি, সাইনা ও অনুপের হেফাজতের সময়সীমা বৃহস্পতিবার শেষ হওয়ায় তাদেরকে প্রথম অতিরিক্ত জেলা ও সেশন আদালতে হাজিরা দেয়ার জন্য নিয়ে যাওয়া হয়।

আদালতে নিয়ে যাওয়ার সময় বীরামণি জানান যে বিশেষ কিছু মামলায় তাদের সম্পৃক্ততা আছে, এমনটা স্বীকার করতে বলে পুলিশ তাদের উপর নির্যাতন চালিয়েছিল। তাদের কথা না মানলে ভয়ংকর পরিণতি হবে এমন হুমকি দেয় কেরালা পুলিশ। তিনি বলেন, “কিন্তু আমরা তাদের হুমকিতে নিজেদের অবস্থান থেকে সামান্যও সরে যাইনি।” মাওবাদী স্লোগান দিতে দিতে বিচারক আর শক্তিভেলের সামনে হাজির হন তিন মাওবাদী। অভিযুক্তদের ৮ই জুলাই আদালতে হাজির করার নির্দেশ দেন বিচারক এবং সাইনাকে কেরালায় নিয়ে যাওয়ার নির্দেশ দেয়া হয়। অন্যদিকে, বীরামণি ও অনুপকে কেন্দ্রীয় কারাগারে রাখা হয়।

সূত্রঃ http://english.manoramaonline.com/news/kerala/maoists-allege-torture-in-custody.html