পাকিস্তানঃ প্রশাসনের বাধা সত্ত্বেও করাচি বিশ্ববিদ্যালয়ে নিখোঁজ বালুচদের বিষয় সেমিনার

file (4)

মানবাধিকার কর্মী সাবিন মাহমুদের হত্যা ও তার পর অধ্যাপক সৈয়দ ওয়েদুর রহমানকে করাচিতে গুলি করে খুন করে গুপ্ত ঘাতকরা। তা সত্ত্বেও  পাকিস্তানের প্রতিবাদী কন্ঠ বন্ধ হচ্ছে না। প্রশাসনের  বাধা সত্ত্বেও গত ৬ মে করাচি বিশ্ববিদ্যালেয় অনুষ্ঠিত হল বালুচিস্তানের নিখোঁজদের বিষয় এক সেমিনার। ভিড়ে ঠাসা হলঘর প্রমাণ করল পাকিস্তানে শত বাধা সত্ত্বেও গণতান্ত্রিক প্রতিবাদে সামিল হচ্ছেন মানুষ।  প্রতিবাদের স্বরকে স্তব্ধ করার জন্য সাবিন বা  ওয়েদুরদের খুন শুধু পাকিস্তানের বিচ্ছিন্ন ঘটনা নয়।

 সৌজন্যে কাফিলা

Advertisements

পাকিস্তানে গুপ্ত খুন করা হল ‘ভয় জয়ী’ সাবিন মাহমুদকে

images (2)

আমাদের প্রতিবেশী দেশ পাকিস্তান।মৌলবাদী সন্ত্রাসে বিধ্বস্ত সে দেশে সম্প্রতি খুন হয়েছেন সে দেশের মানবাধিকার কর্মী সাবিন মাহমুদ।

images (1)

বালুচপ্রদেশে রাষ্ট্রীয় সন্ত্রাসের বিরুদ্ধে সরব হওয়ায় প্রাণ দিতে হল ৪০ বছরের সাবিনকে।গত ২৪ এপ্রিল রাষ্ট্রীয় রক্তচক্ষুকে উপেক্ষা করে বালুচিস্তানের সমস্যা নিয়ে এক আলোচনার আয়োজন করেছিলেন সাবিন। সভার শেষে মাকে পাশে বসিয়ে নিজেই গাড়ি চালিয়ে বাড়ি ফিরছিলেন তিনি। হঠাত্ তাঁর গাড়ির রাস্তা আটকে দাঁড়ায় মোটরবাইক করে আসা ৪জন। গুলি করে হত্যা করে সাবিনাকে। লাগাতার মৃত্যুর হুমকি উপেক্ষা করে মৌলবাদী , সেনাবাহিনী ও সরকারের অন্যায়ের বিরুদ্ধে সরব হয়েছিলেন সাবিন।তাঁকে খুনের দায় নেয়নি কেউই। যদিও অভিযোগের তির আইএসআইয়ের দিকেই। ভয়কে জয় করেছিলেন সাবিন। এদেশের মানবাধিকার কর্মীদেরও তাঁর থেকে শেখার অনেক কিছু রয়েছে বলে মনে হয়। সাবিন মাহমুদের হত্যার বিষয় মানস ঘোষের একটি বিস্তারিত লেখা প্রকাশিত হয়েছে আজকের দৈনিক স্টেটসম্যানে।

http://epaper.thestatesman.com  টাইপ করে দৈনিক স্টেটসম্যান পড়তে হবে।

সুত্রঃ 

http://www.satdin.in/index.php/13-2014-04-07-17-10-23/2220-2015-05-07-08-35-45


ভারতে নকশালরা ২০শে ফেব্রুয়ারি থেকে ৫ রাজ্যে বন্ধ ডেকেছে …

বিশাখাপত্তনম : রাজ্য ও কেন্দ্রীয় সরকারের জন বিরোধী কার্যক্রমের প্রতিবাদে সিপিআই (মাওবাদী) ফেব্রুয়ারীর ২০ তারিখ থেকে অন্ধ্র প্রদেশ ও তেলেঙ্গানা সহ পাঁচ রাজ্যে বন্ধ ডেকেছে। বৃহস্পতিবার টিওআই পাঠানো একটি প্রেস রিলিজে মাওবাদীদের কেন্দ্রীয় আঞ্চলিক ব্যুরো (CRb) মুখপাত্র প্রতাপ- ছত্তিশগড়, উড়িষ্যা এবং মহারাষ্ট্রে ধ্বংসাত্মক এবং গণবিরোধী নীতি বাস্তবায়নকারী হিসেবে, প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি , পি মুখ্যমন্ত্রী এন চন্দ্রবাবু নাইডু, তেলেঙ্গানা মুখ্যমন্ত্রী চন্দ্রশেখর রাও কে দায়ী করেন। 

Source – http://timesofindia.indiatimes.com/city/visakhapatnam/Naxals-call-for-5-state-bandh-on-Feb-20/articleshow/46224136.cms